logo
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৭ আশ্বিন ১৪২৭

  যাযাদি ডেস্ক   ০৫ আগস্ট ২০২০, ০০:০০  

চার জেলায় পানিতে ডুবে শিশুসহ ১১ জনের মৃত্যু

চার জেলায় পানিতে ডুবে শিশুসহ ১১ জনের মৃত্যু

দেশের ৪ জেলায় পানিতে ডুবে শিশুসহ ১১ জনের মৃতু্য হয়েছে। সোম ও মঙ্গলবার মানিকগঞ্জে ৪ জন, শেরপুরে ১ জন, কিশোরগঞ্জে ২ জন এবং টাঙ্গাইলে ৪ জন মারা গেছেন। আমাদের আঞ্চলিক অফিস ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর : দৌলতপুর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার চরমাস্তল চরপাড়া কুলের বিল এলাকায় ডিঙি নৌকা ডুবির ঘটনায় তিন ভাইবোনের মৃতু্য হয়েছে। এ ঘটনায় আরও দুই শিশু নিখোঁজ রয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে প্রবল বাতাস ও বৃষ্টির সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- হনুফা বেগম (৩০), তার বোন রোকসানা (১৮) ও ভাই জিয়াউল হক মিয়া (১৬)। স্থানীয় সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মুসা জানান, চরমাস্তল চরপাড়া বিলে ঝড়ের সময় ডিঙি নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে। এতে নৌকার মাঝি হনুফার বোনের ছেলে মনির ও হনুফার স্বামী আব্দুল হক জীবিত উদ্ধার হয়েছেন। নিখোঁজ রয়েছে হনুফার মেয়ে মিথিলা (১১) ও রোকসানার ছেলে শান্ত (১২)। তিনি আরও জানান, নিহতদের বাড়ি উপজেলার জিয়নপুর গ্রামের আবুডাঙ্গা গ্রামে। তারা চরমাস্তল চরপাড়া গ্রামে তাদের বোনের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে প্রবল বাতাস ও বৃষ্টির সময় নৌকা ডুবে যায়। নৌকার মাঝি মনির হনুফার বোনের ছেলে। তারা মনিরদের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। দৌলতপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাসমত আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নৌকা ডুবির ঘটনাস্থলে উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম রাজা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা মোস্তারী পরিদর্শন করেন। সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পানিতে ডুবে সানজিদা আক্তার (৯) নামে এক শিশুর মৃতু্য হয়েছে। গত সোমবার দুপুরে উপজেলার হেমায়েতপুর-মানিকগঞ্জ সড়কের মেদুলিয়া (ডবলব্রীজ) বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত শিশু সানজিদা আক্তার উপজেলার ধলস্না ইউনিয়নের মেদুলিয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের মেয়ে। জানা গেছে, শিশু সানজিদা তার বড় বোন হাবিবা আক্তারের (১০) সাথে সোমবার দুপুরে বাড়ির পাশে খাদে গোসল করতে যায়। গোসল করার একপর্যায়ে সানজিদা পানিতে ডুবে যায়। এ সময় বড় বোন হাবিবা আক্তার অনেক চেষ্টা করেও তাকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শ্রীবরদী (শেরপুর) : শেরপুরের শ্রীবরদীতে ডুবার পানিতে ডুবে মুসাফির (৭) নামে এক শিশুর মৃতু্য হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ভেলুয়া ইউনিয়নের চাংপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। মৃত শিশু চাংপাড়া গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে। মৃত শিশুর পরিবার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে খেলাধুলার একপর্যায়ে সবার অজান্তে মুসাফির বাড়ির পাশের ডুবার পানিতে পড়ে যায়। পরে খোঁজাখুঁজি করে পরিবারের লোকজন বাড়ির পার্শ্ববর্তী ডুবা থেকে মুসাফিরকে উদ্ধার করে শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে নিয়ে যান। শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিকলী (কিশোরগঞ্জ) : কিশোরগঞ্জের নিকলী সদর ইউনিয়নে মঙ্গলবার ২টা ৫০ মিনিটে পূর্বগ্রাম সরকারি হাটি গ্রামে মৃত মজিদ আলীর শিশুকন্যা সীমা আক্তার বাবুনীর (৬) লাশ উদ্বার করা হয়। পরে বিকাল ৩টার দিকে সীমা আক্তার বাবুনীকে নিকলী সরকারি হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ধারণা করা হয় সীমা আক্তার পানিতে ডুবে মারা গেছে। এদিকে গত সোমবার মজলিশপুর নরসুন্দা নদীতে সৈনিক সাদ্দাম হোসেনের সাথে তার শিশুকন্যা সুনিয়া আক্তার (৫) গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে ঐদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সুনিয়ার লাশ নরসুন্দা নদীতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া যায়। টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইল সদর, কালিহাতী ও মির্জাপুর উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে সোমবার (৩ আগস্ট) ভাইবোন ও এক স্কুলছাত্রের মর্মান্তিক মৃতু্য হয়েছে। জানা গেছে, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বেতবাড়ী গ্রামের এনজিওকর্মী আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে আবির হোসেন (৩) মা-বাবার সাথে কালিহাতী উপজেলার গিলাবাড়ী গ্রামে মামার বাড়ি বেড়াতে আসে। সোমবার দুপুরে মামাতো বোন খুশির (৪) সাথে আবির হোসেন খেলা করার একপর্যায়ে সবার অজান্তে দুজনেই বন্যার পানিতে ডুবে যায়। পরে তাদের উদ্ধার করে পাশের ভূঞাপুর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত খুশি গিলাবাড়ী গ্রামের ট্রাকচালক লাভলু তরফদারের মেয়ে। ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সের জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. কুমার বিশ্বজিৎ পাল জানান, হাসপাতালে পৌঁছার আগেই শিশু দুটি মারা যায়। অপরদিকে, বঙ্গবন্ধু সেতু-ঢাকা মহাসড়কে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে উপজেলার পোস্টকামুরি চরপাড়ায় কিছু অংশে বন্যার পানির স্রোত বইছে। স্কুলছাত্র নওশাদ তার মায়ের সাথে ওই স্থান দিয়ে যাচ্ছিল। বন্যার পানির প্রবল স্রোতে মায়ের অগোচরে নওশাদ ডুবে যায়। টাঙ্গাইল ও মির্জাপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় দেড়শ ফুট দূর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে। নওশাদ পোস্টকামুরি গ্রামের মো. হারুন-অর-রশিদ পান্নার ছেলে ও মির্জাপুর সরকারি সদয় কৃষ্ণ মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল। মির্জাপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমিরুল কাদের লাবন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। দেলদুয়ার (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে বন্যার পানিতে ডুবে মুন্নি আক্তার (৫) নামের এক শিশুর মৃতু্য হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সোমবার সকালে উপজেলার লাউহাটি ইউনিয়নের কাতুলি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মুন্নি আক্তার ওই গ্রামের রাসেল মিয়ার মেয়ে। এলাকাবাসী জানায়, মুন্নি আক্তার নামের ওই শিশুটি সকালে মা ও বাবার কাজের ফাঁকে চোখের আড়ালে চলে যায়। পরে দেখতে না পেয়ে সবাই তাকে খুঁজতে শুরু করে। পরে একপর্যায়ে বাড়ির পাশে বন্যার পানিতে মুন্নির লাশ খুঁজে পায় তারা। লাশ পেয়ে পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে