অতিথি পাখির কলরবে মুখরিত ঘোপ বাঁওড়

অতিথি পাখির কলরবে মুখরিত ঘোপ বাঁওড়
ঘোপ বাঁওড়ে ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখি -যাযাদি

কাকডাকা ভোরে দলবেঁধে আসা পাখির কলরব কানে আসে। বলতে গেলে রোজ ঘুম ভাঙে এসব পাখির কিচিরমিচির শব্দে। ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখি এসে পড়ছে ঘোপ বাঁওড়ে। অতিথি পাখির কলতানে মুখর হয়ে উঠেছে মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলা সদরের ঘোপ বাঁওড়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিশাল এই জলায়তনের ঘোপ বাঁওড়ে পাখিদের ডানা মেলে ওড়া, পানিতে ডুব দিয়ে আহার শিকার এবং কলকাকলির মনোরম সব দৃশ্য, যা অন্যরকম আবহ তৈরি করে ঘোপ বাঁওড়ে। শীতের শুরুতেই আসতে শুরু করে নানা প্রজাতির অতিথি পাখি। শীত বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এসব পাখির আগমনও বাড়ছে। প্রাকৃতিক এই অভয়ারণ্যে মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখতে নানান শ্রেণি-পেশার মানুষ নিয়মিত আসেন। আগত লোকজন দূর থেকে উপভোগ করেন পাখির কলরব, মিতালি-মাতামাতি।

ভোরের আকাশ থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে পানকৌড়ি ও হাঁস পাখিসহ বিভিন্ন প্রজাতির অতিথি পাখি উপজেলার এই ঘোপ বাঁওড়ে নামে। দল বেঁধে পানিতে চলে খাদ্যের অভিযান। পানিতে টুপটাপ ডুব দিচ্ছে আর মনের আনন্দে শিকার করছে আহার। এরকম ছোটাছুটি আর লুটোপুটি চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

সন্ধ্যার পর দূর-দূরান্তের বিভিন্ন

গাছে এবং বাঁওড়ে ফেলে রাখা জেলেদের বিভিন্ন

গাছের ডালে ও ঝোপঝাড়ে আশ্রয় নেয় এসব পাখি। রাত পোহালেই দল বেঁধে আকাশে পাখা মেলে। তারপর ঝাঁকে ঝাঁকে পাখির দল বাঁওড়ের পানিতে নামে।

স্থানীয় নিজাম উদ্দিন বলেন, প্রতি বছর শীতের সময় অতিথি পাখিদের আগমনে মুখরিত থাকে ঘোপ বাঁওড়। শীত কমতে শুরু করলেই এসব পাখি আবার তাদের দেশে পাড়ি জমায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে