বইমেলা প্রতিদিন

ছুটির দিনে জমেছে বইমেলা

ছুটির দিনে জমেছে বইমেলা

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির অবনতি ও চৈত্রের উত্তাপের মধ্যেই শুক্রবার ছুটির দিন বইপ্রেমীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে একুশে বইমেলা প্রাঙ্গণ। তবে মেলা জমে উঠতেই সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় আক্ষেপ রয়েই গেছে পাঠক, ক্রেতা এবং বিক্রেতাদের। দেশব্যাপী লকডাউনের পঞ্চম দিনে মেলার দর্শনার্থী-শূন্যতা কেটে যাওয়ার পাশাপাশি বেড়েছে বই বিক্রির পরিমাণও। এছাড়াও বন্ধ হয়ে যাওয়া অধিকাংশ স্টল এ দিন খুলতে দেখা গেছে। ফলে মেলার শেষ শুক্রবার উৎসবের আমেজে পার করেন বইপ্রেমীরা।

শুক্রবার ছিল মেলার এবারে অমর একুশে বইমেলার ২৩তম দিন। বাংলা একাডেমির তথ্যমতে এ দিন মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে ৮৮টি বইয়ের। দিনে গড়ে ৬০ থেকে ৭০টি বই এলেও আনুষ্ঠানিকভাবে সর্বোচ্চ ৮ থেকে ১০টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচিত হয়। তবে মেলার শেষ শুক্রবার মোড়ক উন্মোচন ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এ দিন লেখক প্রকাশক পাঠক ও বিশিষ্টজনদের উপস্থিতিতে প্রায় ৩০টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে।

এ বিষয়ে 'দাঁড়িকমা'র প্রকাশক আবদুল হাকিম নাহিদ জানান, মেলা প্রায় শেষের দিকে। অনেকেই তার পরিচিত কিংবা পছন্দের লেখকের বইটি সংগ্রহ করার জন্য ছুটির দিনটাকেই বেছে নিয়েছেন। আর তাই লেখক ও প্রকাশকরা তাদের নতুন বই আগত দর্শনার্থীদের জানান দিতে আনুষ্ঠানিকভাবে বইয়ের মোড়ক উন্মোচনে আগ্রহ বেড়েছে।

বই বিকিকিনির বিষয়ে এই প্রকাশক জানান, অন্যান্য দিনের তুলনায় তাদের বই বিক্রির পরিমাণ অনেকটাই বেড়েছে। তবে লকডাউনে অনলাইনে তুলানামূলক বই বিক্রির পরিমাণ বেশি। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় দর্শনার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং অনেক বন্ধ স্টলও এ দিন খুলেছে।

এদিকে মেলার সময় বিকেল ৫টায় শেষ এবং সাড়ে ৪টার মধ্যে প্রবেশ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আক্ষেপ জানিয়েছেন অনেক পাঠক ও প্রকাশক। মিরপুর থেকে আগত শিহাব ও তার বন্ধুরা এ দিন সময়ের অভাবে মাত্র অর্ধেক স্টলের বই দেখার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি বলেন, মেলার শেষ ছুটির দিন অর্থাৎ শনিবার সময় আরও কিছুটা বাড়িয়ে দিলে তাদের জন্য সুবিধা হবে। এদিকে মেলায় প্রবেশ করতে না পেরে শুক্রবারও অনেক দর্শনার্থীকে ফিরে যেতে দেখা গেছে।

শনিবারের ছুটির দিনে মেলার সময়সীমা বাড়নোর দাবি জানিয়েছে বেশকিছু প্রকাশনা সংস্থা। তবে আয়োজক বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির মধ্যে মেলার সময় বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। তারা বলছেন, অনেক প্রকাশকই তাদের কাছে এই দাবি জানালেও গণপরিবহণ চলার সময় সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত থাকায় মেলার সময় আর বাড়ছে না।

এদিকে বহুমুখী সংকট আর অপ্রাপ্তির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এবারের অমর একুশে বইমেলা। দেশে দ্বিতীয় দফা লকডাউন ঘোষণার পর সময় পরিবর্তন করায় দুপুর থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত

মেলাপ্রাঙ্গণ থাকে দর্শকশূন্য। আর মেলা জমে উঠতেই হয়ে যায় সময় শেষ। তবুও মেলার শেষ শুক্রবারে আগত দর্শনার্থীতে সন্তোষ জানিয়েছেন মেলা সংশ্লিষ্টরা।

শুক্রবার অমর একুশে বইমেলার ২৩তম দিনে নতুন বই এসেছে ৮৮টি। এরমধ্যে গল্প ১০, উপন্যাস ৯, প্রবন্ধ ৬, কবিতা ৩৪, গবেষণা ১, ছড়া ১, শিশুসাহিত্য ২, জীবনী ৩, মুক্তিযুদ্ধ ৪, নাটক ১, বিজ্ঞান ২, ভ্রমণ ১, ইতিহাস ২, রাজনীতি ১, বঙ্গবন্ধু ৩, রম্য/ধাঁধা ২, ধর্মীয় ১, সায়েন্স ফিকশন ২ ও অন্যান্য ৩টি বই।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে