আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ

হাতে হাত রেখে আর পথ চলা হলো না বিল-মেলিন্ডার

হাতে হাত রেখে আর পথ চলা হলো না বিল-মেলিন্ডার

হাতে হাত রেখে আর এক সঙ্গে পথ চলা হলো না বিশ্বের অন্যতম ধনী বিল গেটস ও মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চের। হঠাৎ করেই দাম্পত্য জীবনে বিচ্ছেদের যে ঘোষণা দিয়েছিলেন তারা, অবশেষে সোমবার তাদের সেই বিচ্ছেদ আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পন্ন হলো। এর মধ্য দিয়ে এই দম্পতির দীর্ঘ ২৭ বছরের সংসার জীবনের ইতি ঘটল। বিচ্ছেদের ঘোষণা দেওয়ার তিন মাসের মাথায় আনুষ্ঠানিকভাবে আলাদা হলেন তারা। গত ৩ মে নিজেদের বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন বিল ও মেলিন্ডা গেটস। ওই সময় এক সঙ্গে তারা দুইজন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি ঘোষণা করেন। সংবাদসূত্র : সিএনএন সোমবার ওয়াশিংটনের কিং কাউন্টি সুপিরিয়র কোর্টের এক আইনজীবী তাদের ডিভোর্স পেপারে স্বাক্ষর করেন। অবশ্য নাম পরিবর্তনের জন্য আদালতে কেউ-ই আবেদন করেননি। গত আশির দশকের শেষের দিকে বিল গেটসের মাইক্রোসফট কোম্পানিতে যোগ দেন মেলিন্ডা। এরপরই দুইজনের পরিচয় হয়। পরে ১৯৯৪ সালে তারা বিয়ে করেন। দীর্ঘ ২৭ বছরের বৈবাহিক জীবনে তাদের সংসারে জন্ম হয় তিন সন্তানের। তিন মাস আগে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেওয়ার সময় টুইট বার্তায় বিল ও মেলিন্ডা বলেছিলেন, 'গত ২৭ বছরে আমরা অসাধারণ তিনটি সন্তান পেয়েছি। এমন একটি ফাউন্ডেশন গড়ে তুলেছি, যা বিশ্বজুড়ে মানুষকে স্বাস্থ্যকর ও সক্ষম করে গড়ে তুলতে কাজ করছে। আমরা যে বিশ্বাস থেকে ওই ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু করেছি, সেটা থাকবে। আমরা এই ফাউন্ডেশনের কাজ একসঙ্গে চালিয়ে যাবো। কিন্তু আমরা আর এটা বিশ্বাস করতে পারছি না, জীবনের পরের ধাপে দম্পতি হিসেবে আমরা আর এক সঙ্গে চলতে পারবো।' সাবেক এই দম্পতি ২০০০ সালে দাতব্য সংস্থা 'বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন' গঠন করেন। বিবাহ বিচ্ছেদ হলেও তারা এই সংস্থার মাধ্যমে এক সঙ্গে মানব কল্যাণমূলক কাজ চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রম্নতি দিয়েছেন। বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে মানবকল্যাণে কাজ করছে। বিশ্বজুড়ে সংক্রামক ব্যাধির বিরুদ্ধে লড়াই ও শিশুদের টিকাদানে উৎসাহিত করতে কোটি কোটি ডলার ব্যয় করছে তাদের এই প্রতিষ্ঠান। বস্নুমবার্গ বিলিয়নিয়ার ইনডেক্স বলছে, সোমবার পর্যন্ত বিল গেটসের সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মানে ডিভোর্সের পর এবার বিল গেটস ও মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ গেটস উভয়ে ৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার করে পাবেন। প্রভাবশালী মার্কিন সাময়িকী 'ফোর্বস'র বিচারে, বিল গেটস এখন বিশ্বের চতুর্থতম সম্পদশালী ব্যক্তি। বিল-মেলিন্ডার বিচ্ছেদের খবর সামনে আসতেই বেশ কিছু গণমাধ্যম তাদের এই বিচ্ছেদের পেছনে বিল গেটসের সাবেক বান্ধবী (প্রেমিকা) অ্যান উইনবস্ন্যাডকেই দায়ী করে আসছে। এর আগে 'নিউইয়র্ক টাইমস'র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মেলিন্ডাকে বিয়ের পরও প্রায় প্রতি বছরই নর্থ ক্যারোলিনার বিচে সাবেক বান্ধবীর সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন বিল গেটস। ১৯৯৪ সালে মেলিন্ডাকে বিয়ে করেন তিনি। সেই সময় নাকি সাবেক বান্ধবীর সঙ্গে সময় কাটানোর বিষয়ে মেলিন্ডার সঙ্গে বিল গেটসের অদ্ভূত এক চুক্তি হয়েছিল। ১৯৯৭ সালে নিজেই 'টাইম' ম্যাগাজিনকে এ বিষয়টি পরিষ্কার করেন বিল গেটস। এমনকি মেলিন্ডাকে বিয়ে করবেন কিনা, সে বিষয়েও নাকি তিনি উইনবস্ন্যাডের মতামত চেয়েছিলেন। এক সাক্ষাৎকারে বিল গেটস বলেছিলেন, 'যখন আমি মেলিন্ডাকে বিয়ে করার কথা ভাবছিলাম, তখন উইনবস্ন্যাডের মতামত জানতে চেয়েছিলাম। সে সময় মেলিন্ডাকে বিয়ের বিষয়ে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছিল উইনবস্ন্যাড।' এ বিষয়ে স্মৃতি স্মরণ করতে গিয়ে উইনবস্ন্যাড বলেন, 'আমি তাকে (বিল) বলেছিলাম, সে (মেলিন্ডা) তোমার জন্য উপযুক্ত। কারণ, সে বেশ বুদ্ধিদীপ্ত একজন মানুষ। এই দম্পতির বিচ্ছেদের খবরে অনেকেই হতবাক হয়ে গেছেন। তাদের দাম্পত্য জীবনে কখনো বড় ধরনের সমস্যা দেখা দেয়নি। বিভিন্ন সময় হাসি-খুশিভাবেই এই দম্পতিকে এক সঙ্গে দেখা গেছে। ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, বিল গেটসের যে সম্পত্তি রয়েছে, এর মধ্যে আবার মেলিন্ডারও অংশ রয়েছে। বিল গেটস নিজ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে বেসরকারিভাবে সবচেয়ে বেশি কৃষি জমির মালিক। তার মালিকানায় রয়েছে দুই লাখ ৪২ হাজার একর কৃষি জমি। তবে দেশটির ১৮টি অঙ্গরাজ্যে ছড়িয়ে থাকা এসব কৃষি জমিতে যৌথ মালিকানা রয়েছে মেলিন্ডারও। এর মধ্যে লুইজিয়ানায় ৬৯ হাজার ৭১ একর, আরকানসাসে ৪৭ হাজার ৯২৭ এবং নেব্রাস্কায় ২০ হাজার ৫৮৮ একর কৃষি জমি রয়েছে। যৌথ সম্পত্তি ছাড়াও তাদের নিজস্ব আলাদা সম্পত্তিও রয়েছে। তবে শুধুমাত্র যৌথ সম্পত্তিই দুইজনে ভাগ করে নেবেন। বিল এবং মেলিন্ডার পরিচিতজনরা বলছেন, বিচ্ছেদের পর এই বিশাল পরিমাণ সম্পত্তি দুইজনের মধ্যে ভাগ করা মোটেই সহজ নয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে