'দোগারি হিমাল' জয়ে যাচ্ছেন ৪ বাংলাদেশি

হিমালয়ের দোগারি হিমাল নামক চূড়াটি ২১ হাজার ৪৪৩ ফুট উঁচু। ওই পর্বত চূড়ায় এখন পর্যন্ত কেউ আরোহণ করেনি
'দোগারি হিমাল' জয়ে যাচ্ছেন ৪ বাংলাদেশি
শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে 'বাংলা মাউন্টেনিয়ারিং অ্যান্ড ট্রেকিং ক্লাব' আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অতিথিরা - ফোকাস বাংলা

বাংলাদেশ-নেপালের কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে হিমালয়ের 'দোগারি হিমাল' নামক পর্বতশৃঙ্গ জয়ে যৌথভাবে অভিযানে যাচ্ছে দুই দেশের একটি পর্বতারোহী দল। অভিযানে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবেন দুইবার এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহী এম এ মুহিত ও ৩ পর্বতারোহী।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে 'বাংলা মাউন্টেনিয়ারিং অ্যান্ড ট্রেকিং ক্লাব' আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, হিমালয়ের দোগারি হিমাল নামক চূড়াটি ২১ হাজার ৪৪৩ ফুট উঁচু। ওই পর্বত চূড়ায় এখন পর্যন্ত কেউ আরোহণ করেনি।

পর্বতারোহীরা বলেন, পর্বতশৃঙ্গ জয়ে যৌথভাবে অভিযানে বাংলাদেশ থেকে ৪ জন ও নেপাল থেকেও ৪ জন পর্বতারোহী অংশ নেবেন। চার সদস্যের বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দেবেন এম এ মুহিত। যিনি দুবার এভারেস্ট আরোহণ করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে তিন সদস্যের মধ্যে বাহলুল মজনু ও ইকরামুল হাসান একটি ৭ হাজার মিটার চূড়াসহ হিমালয়ের একাধিক পর্বত আরোহণ করেছেন এবং রিয়াসাদ সানভী ভারতে পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নেপালে পর্বত আরোহণে অংশ নিয়েছেন। চার সদস্যের নেপাল দলের নেতৃত্বে থাকবেন বিখ্যাত পর্বতারোহী ও গাইড মিংমা গ্যালজে শেরপা।

বাংলাদেশের পর্বতারোহী দলের তিন সদস্য ৩ অক্টোবর ২০২২ নেপালের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। চতুর্থ সদস্য, ইকরামুল হাসান 'গ্রেট হিমালয়ান ট্রেইলে' তার চলমান অভিযান ছেড়ে কাঠমান্ডুতে এই দলে যোগ দেবেন। এ অভিযানটি যৌথভাবে পরিকল্পনা করেছে বাংলা মাউন্টেনিয়ারিং অ্যান্ড ট্রেকিং ক্লাব ও ইমাজিন নেপাল এবং স্পন্সর করেছে ইস্পাহানি টি লিমিটেড, স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক লিমিটেড।

ওই পর্বত অভিযানে বাংলাদেশ থেকে নেতৃত্বদানকারী এম এ মুহিত বলেন, আমরা যে অভিযানে যাচ্ছি তার পরিকল্পনা গত বছর থেকে করছিলাম। যা আমাদের দুই দেশের কূটনীতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উপলক্ষে তাৎপর্যপূর্ণ হয়। এই পর্বতশৃঙ্গটি ৬ হাজার ৫শ' ৩৬ মিটার উঁচু। এ চূড়াটিতে আগে কোনো অভিযান হয়নি। ফলে পথঘাট সম্পূর্ণ অজানা হবে। সবকিছু আমাদের সেখানে গিয়ে ঠিক করতে হবে। কী কী কঠিন বিষয় আছে সেটা গিয়ে বুঝতে হবে। এই অভিযানটি পরিচালনা করতে আমাদের ২৮ দিন সময় লাগবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারি। বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও ব্র্যাক চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিলস্নুর রহমান। অ্যান্টার্কটিকা ও সুমেরু অভিযাত্রী ইনাম আল হক প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে