logo
রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৫ আশ্বিন ১৪২৭

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

অবশেষে জয় পেল মোহামেডান

মোহামেডান স্পোটিং ক্লাব ১ উত্তর বারিধারা ০

অবশেষে জয় পেল মোহামেডান
ফেডারেশন কাপ থেকে আগেই বিদায় নিয়েছে উত্তর বারিধারা। শনিবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে মোহামেডানের বিপক্ষে ভালোই প্রতিরোধ গড়লেও হার নিয়েই মাঠ ছেড়েছে তারা -বাফুফে
ফেডারেশন কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে অবশেষে জয়ের দেখা পেয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। টানা দুই ম্যাচ ড্র'য়ের পর শনিবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে তারা সহজ প্রতিপক্ষ উত্তর বারিধারার বিপক্ষে ১-০ গোলের জয় পায়। তবে এই জয় পেতেই অনেক ঘাম ঝরাতে হয়েছে সাদা-কালোদের। গ্রম্নপের তিনটি ম্যাচেই হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে উত্তর বারিধারা ক্লাব।

এবারের আসরে 'ডি' গ্রম্নপে খেলছে ৪ দল। অন্য গ্রম্নপগুলোতে তিন দল হওয়ায় তাদের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে খেলতে হয়েছে দুটি করে ম্যাচ। কিন্তু এই গ্রম্নপের দলগুলোকে খেলতে হচ্ছে একটি করে বেশি ম্যাচ। তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে উত্তর বারিধারা খুব একটা কঠিন নয়। চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে রানার্সআপ হয়ে আবারও পেশাদার লিগের পথচলা শুরু করেছে তারা। সেই ক্লাবটিকেই হারাতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হয়েছে মোহামেডানের। তবে শন লিনের শিষ্যদের সাফল্যটা ছিল ম্যাচের শুরুর দশ মিনিটের মধ্যেই গোল আদায় করে নেয়া এবং সেই গোল ধরে রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়া।

আগের দুই ম্যাচে হারে বিদায় নিশ্চিতই ছিল উত্তর বারিধারার। কারণ চার দলের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা আর শেখ রাসেল আগেই ৪ পয়েন্ট করে সংগ্রহ করে রেখেছিল। মোহামেডানেরও ম্যাচে নামার আগেই ছিল ২ পয়েন্ট। তাই নিজেদের শেষ ম্যাচে জিতলেও টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়ই নিতে হতো বারিধারাকে। হারানোর কিছুই নেই। তাই তারা মোহামেডানের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ দিয়ে খেলেছে। যে কারণে তারুণ্যনির্ভর দলটিকে নিয়ে বারিধারাকে হারাতেও বেশ বেগ পেতে হয়েছে সাদা-কালোদের। তবে বারিধারা রক্ষণাত্মক খেলেছে এটা মোটেই বলা যাবে না। অভিজ্ঞতার অভাবেই তারা ব্যর্থ হয়েছে গোলমুখে গিয়ে।

শনিবার ম্যাচ শুরুর ৬ মিনিটে ফ্রি কিক পায় মোহামেডান। ডান প্রান্ত থেকে হাবিবুর যে স্পট কিকটি করেন সেটি বক্সে ফেলতে ব্যর্থ হন। তবে এর ঠিক দু'মিনিট পরই এগিয়ে যায় সাদা-কালোরা। ৮ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে বল নিয়ে দুরন্ত গতিতে বক্সে ঢুকে যেতে থাকেন সুলেমান দিবাতে। পেছন থেকে দৌড়ে এসে তাকে বাধা দিতে চেষ্টা করেন বারিধারার দুই ডিফেন্ডার। পোস্ট ছেড়ে এগিয়ে এসেছিলেন গোলরক্ষকও। সুযোগ হাতছাড়া না করে গড়ানো শট নেন সুলেমান। সেই বল পা দিয়ে আটকে দিতে চেষ্টা করেছিলেন প্রতিপক্ষের মো. সোহেল। কিন্তু শেষ রক্ষাটা হলো না। বল জড়ায় বারিধারার জালে। উলস্নাসে মাতে সাদা-কালো শিবির (১-০)।

১৯ মিনিটে মোহামেডানের বক্সে জটলার মধ্য থেকে বাঁ পায়ের শট নেন বারিধারার মো. আরিফ। কিন্তু বল অল্পের জন্য জড়ায়নি জালে। ৭৭ মিনিটে মোহামেডানের দলীয় অধিনায়ক নাগাতার ক্রসে লাফিয়ে উঠে ছোট বক্স থেকে হেড নেন সুলেমান। কিন্তু বল গ্রিপে নিয়ে নেন বারিধারার গোলরক্ষক। ৮০ মিনিটে বাঁপ্রান্ত থেকে অবি মনিকির শট ফাঁকা পোস্ট ঘেঁষে চলে যায় বাইরে। ৮৩ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে বল বাড়িয়ে দেন সোলেমান। বল বুঝে নিয়ে বদলি ফরোয়ার্ড আমিনুর রহমান সজীব যে শটটি করেন, সেটিও দক্ষতার সঙ্গেই ফিস্ট করেন বারিধারার গোলরক্ষক। ৮৫ মিনিটে শেষ সুযোগটা এসেছিল বারিধারার। বক্সের প্রায় দশগজ দূরে ফ্রি কিক পায় তারা। কিন্তু বিদেশি খেলোয়াড় সানগারির স্পটকিক বক্সে মোহামেডানের ফুটবলাররা প্রতিহত করেন। শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি বারিধারা। ১-০ গোলের ঘাম ঝরানো জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে সক্ষম হয় মোহামেডান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধার সঙ্গে ১-১ গোলে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে শেখ রাসেলের সঙ্গে গোলশূন্য (০-০) ড্র করেছিল সাদা-কালোরা। তিন ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৫ পয়েন্ট।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে