​ধামরাইয়ে অনশনকারী মাদ্রাসা ছাত্রীকে হত্যার চেষ্টা

​ধামরাইয়ে অনশনকারী মাদ্রাসা ছাত্রীকে হত্যার চেষ্টা

ঢাকার ধামরাইয়ে বিয়ের দাবীতে অনশনকরা মাদ্রাসার ছাত্রীকে গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করেছে লম্পট প্রেমিক দিদার। এমন খবর পেয়ে ছাত্রীর বাবা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হয়। এদিকে বিষয়টি মিমাংসার জন্য স্থানীয় মাতাব্বরা উঠে পড়ে লেগেছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, ধামরাইয়ের ইশাননগর গ্রামের খালেক মিয়ার লম্পট ছেলে দিদার (২৫) বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রায় আড়াই বছর ধরে গোপন সর্ম্পক করে আসছিল। এসময়ে তাদের মধ্যে একাধিকবার গোপন অভিসার হয়। এতে ওই ছাত্রী অন্তঃসত্বা হয়েও পড়ে। পরে তাকে বিয়ের আশ্বাসে কৌশলে ধামরাইয়ের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে গর্ভপাত ঘটানো হয়। এভাবেই চলে তাদের সর্ম্পক।

হঠাৎ করেই দিদার ধামরাইয়ের সানোড়া ইউনিয়নের ভালুম গ্রামে বিয়ে করার প্রস্তুতি নেয়। খবর পেয়ে প্রেমিকা মাদ্রাসার ছাত্রী বিয়ের দাবি নিয়ে দিদারের বাড়িতে উঠে। এতে চরম ক্ষোভে প্রেমিক তাকে হত্যার জন্য গলাটিপে ধরে। এসময় তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে প্রেমিকের হাত থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এব্যাপারে বিয়ের দাবিতে অনশন করা ছাত্রী জানান, আমার সব কিছু কেড়ে নিয়ে কেন দিদার আমাকে বিয়ে করবে না। আমাকে বিয়ে না করলে আমার আত্বহত্যা ছাড়া কোন পথ থাকবে না বলে জানান তিনি। তবে প্রেমিকাকে হত্যার চেষ্টার পর বাড়ি থেকে পালিয়েছে দিদার। তবে তার মা আনোয়ারা বেগম জানিয়েছেন, এলাকার মাতাব্বরা যা করেন তা মেনে নিব। এরির্পোট লেখা পর্যন্ত ছাত্রীর বাবা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।

যাযাদি/এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে