"ইতালি থাকেন মেম্বার, জন্মসনদ নিতে ভোগান্তি ভোটারদের

গেলো ২৬ শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছিলো দেশব্যাপী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে জয়লাভ করেই মেম্বার চলেগেছেন ইতালিতে। এমন অভিযোগ উঠেছে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার নরায়নপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার সম্পা বেগমের বিরুদ্ধে। তিনি সরকারের কাছ থেকে কোন অনুমিত ছাড়াই দীর্ঘ ৪ মাসের ও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ ত্যাগ করে ইতালিতে রয়েছেন। এদিকে বিপাকে ও ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ জনগন।

উপজেলা প্রশাসন অফিস সুত্রে জানা যায়, সম্পা মেম্বার গত ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি নারায়নপুর ইউনিয়নের নির্বাচনে ৮ নং ওয়ার্ডের সদস্য হন। নিয়মে রয়েছে জেলা প্রশাশন অফিস সর্বচ্চো ৩ মাসের ছুটির অনুমিত দিতে পারে। তবে উপজেলা প্রশাসনের কাছে সম্পা আবেদন করেছিলো ছুটির জন্য। পরে তা শরীয়তপুর জেলা ডিসি অফিসে প্রেরণ করে তারা। তবে জেলা অফিস তাকে ছুটির অনুমিত না মঞ্জুর করলে দেশের বাহিরে গমন করার কোন সুযোগ নেই।

সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, ঐ এলাকার ভোটার বিউটি আক্তার ভূমিহীন সনদ ও তার ছেলের জন্মসনদ বানানোর জন্য সম্পা মেম্বারের বাড়িতে যান। তবে গিয়ে দেখেন মেম্বার বাড়িতে নেই।তিনি ইতালি চলে গেছেন ৪ মাস আগেই। তিনি বলেন মেম্বার যদি না থাকে দেশে তাহলে আমরা জনগণ সেবা পাবো কিভাবে।

আব্দুর রাজ্জাক বেপারী বলেন,আমি একটি ওয়ারীস সনদ আনতে মেম্বার সম্পার বাড়িতে যাই। গিয়ে শুনি তিনি নাকি ৫ মাস হয় ইতালি চলে গেছে। আমরা ভোট দিয়ে একজন মেম্বার নির্বাচিত করে কি লাভ। যদি কাগজপত্র ঠিক করতে না পারি ও ভোগান্তির স্বিকার হতে হয়।

এ ব্যপারে ইতালি প্রবাসী সম্পার স্বামী আজাহার বেপারির সাথে মোবাইলে ইমু অ্যাপের মাধ্যমে তিনি বলেন, আমরা স্ত্রীর গর্ববতী তাই ইতালিতে চলে আসছে সে। সন্তান হলে ইতালির নাগরিক হবে আমাদের সন্তান তাই। সম্পা ছুটির জন্য দরখাস্ত দিয়েছে ইউএনও বরাবর। আবার মন্ত্রণালয়ে ওছটির জন্য আবেদন দেয়া রয়েছে। কোন সমস্যা নেই।

নারায়নপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন মাতাব্বর বলেন,আমার কাছে সম্পা মেম্বার ইতালিতে যাবে বলে ছুটির জন্য আবেদন করেছিলো। আমরা ইউএনও স্যারের কাছে পাঠিয়েছি।তারপরে ডিসি স্যার তাকে ছুটি দিয়েছে কি না তা আমি জানি না। তবে একজন মেম্বার একটি ওয়ার্ডে উপস্থিত না থাকলে জনগণ তো একটু ভোগান্তিতে পড়বেই। সে গত মাসে আমাকে ইমুতে কল দিয়ে বলেছে তার মেয়ে বাবু হয়েছে, সুস্থ হলেই চলে আসবে।

এ বিষয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুলাহ আল মামুন বলেন, বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সম্পা নামের মেম্বারের ছুটির আবেদনের উপর একটি সঠিক মেডিক্যাল সার্টিফিকেট পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে। আমরা শিগ্রই মন্ত্রণালয় প্রতিবেদন ট্যাগ করবো। তবে মেম্বার নাকি ছুটি মঞ্জুর হবার আগেই ইতালিতে চলে গেছে শুনলাম। আমি বিষয়টি ডিসি স্যারকে জানাচ্ছি।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে