মান্দায় প্যারালাইজড রোগ ভালো করতে লাঠি খেলার আয়োজন

মান্দায় প্যারালাইজড রোগ ভালো করতে লাঠি খেলার আয়োজন

নওগাঁর মান্দায় প্যারালাইজড রোগ ভালো করার জন্য লাঠি খেলার আয়োজন করেন মেকেন্দার নামে এক ব্যাক্তি । তিনি গণেশপুর ইউনিয়নের কাঞ্চন গ্রামের খরু পাড়ার দিনু মন্ডলের ছেলে। পেশায় তিনি একজন গ্যাসলাইট ঠিক করার ম্যাকার।

তিনি জানান, গত প্রায় ২ বছর আগে স্ট্রোক করার পর তার দু’টি পা প্যারালাইজড হয়ে যার। এরপর থেকে অনেক চিকিৎসা করার পরেও তা পা ভালো না হওয়ায় তিনি স্থানীয় কবিরাজদের পরামর্শক্রমে নিজের সুস্থতার জন্য এ লাঠিখেলাসহ মঞ্জিল দেয়ার আয়োজন করেন।

এসব আয়োজন দেখতে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে শত শত নারী-পুরুষ, বৃদ্ধ-শিশু ভিড় জমান। এ সময় তার বাড়ির পাশের মাঠ পরিণত হয় মানুষের মিলন মেলায়।

প্রবীণ লাঠিয়ালরা বলেন, ঐতিহ্য রক্ষায় সরকারি-বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় গ্রামবাংলার হারিয়ে যাওয়া সব খেলা রক্ষার উদ্যোগ নেওয়া দরকার।

উল্লেখ্য,এই এলাকার মানুষদের সংস্কৃতি এটি। অত্র এলাকার মানুষ ভিন্নধর্মী আনন্দ বিনোদন পেতে এই গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলার আয়োজন করে থাকে।

গ্রামের সাধারণ মানুষেরা তাদের নৈমিত্তিক জীবনের উৎসব-বাংলা বর্ষবরণ, বিবাহ, অন্নপ্রাশন ইত্যাদি উপলক্ষে লাঠি খেলার আয়োজন করে থাকেন। এক্ষেত্রে সাধারণত কোনও লাঠিয়াল দলকে ভাড়া করে আনা হয়।

বিগত দশকেও গ্রামাঞ্চলের লাঠি খেলা বেশ আনন্দের খোরাক জুগিয়েছে। সাধারণ মানুষের হৃদয়ে ঠাঁই করে নিয়েছিল এ খেলাটি। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ ছুটে আসত এই খেলা দেখার জন্য।বিভিন্ন জায়গায় মাঝে মধ্যে এই খেলা দেখা গেলেও তা খুবই সীমিত। এ খেলাটি দিন দিন বিলুপ্তি হওয়ার কারণে এর খেলোয়ার সংখ্যাও কমে যাচ্ছে। তৈরি হচ্ছে না কোন নতুন খেলোয়ার।

গনেশপুর ইউ’পি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম চৌধুরী বাবুল জানান, দেশীয় সংস্কৃতি ধরে রাখতে সরকারের পাশাপাশি সামাজিক সংগঠন, বেসরকারি সংস্থা এবং তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে। সেইসাথে এ ঐতিহ্য রক্ষায় সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ গ্রহণ করে হারিয়ে যাওয়া গ্রাম বাংলার এ খেলাগুলো চালুর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার বলেও তিনি মনে করেন।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে