বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

টেক্সটাইল সোসাইটির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল

যাযাদি ডেস্ক
  ২৩ মার্চ ২০২৪, ১৬:৫১
টেক্সটাইল সোসাইটির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল

নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের স্থায়ী ক্যাম্পাসে টেক্সটাইল সোসাইটির উদ্যোগে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

ইফতার মাহফিলে অংশ নেন নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ এর বস্ত্র প্রকৌশল বিভাগের সম্মানিত বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক জিএম ফয়সাল, ডিপার্টমেন্ট কো-অডিনেটর জনাব নাজমুল ইসলাম ও রাসেল হাওলাদার, বেগম আমিনা মনসুর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট, কাজিপুর, সিরাজগঞ্জের অধ্যক্ষ ইঞ্জিঃ মোঃ নাসির উদ্দিন, সহকারী অধ্যাপক ইমরান আলী সহ অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দেশের বস্ত্র ও পোশাক শিল্পের সাথে জড়িত নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় ইঞ্জিনিয়ারর্স, এলামনাই, ব্যবসায়ী, পেশাজীবী, শিক্ষার্থী, গবেষক এবং একাডেমিক ব্যক্তিবর্গ।

এসময় দেশের বস্ত্র ও পোশাক শিল্পের সার্বিক অবস্থা ও টেক্সটাইল সোসাইটি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা সম্বলিত আলোচনা করেন বস্ত্র প্রকৌশল বিভাগের সম্মানিত প্রকৌশলীবৃন্দ।

এসময় বক্তব্য প্রদান করেন নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের বস্ত্র প্রকৌশল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক জনাব জিএম ফয়সাল।

তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন টেক্সটাইল মিল ও ফ্যাক্টরিতে চাকরির বাজারে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের অগ্রাধিকার পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন এবং তিনি বলেন, এই প্রতিযোগিতা মূলক চাকরির বাজারে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের অংশগ্রহণ এবং তাদের কাজের পরিধি ও সম্মান তাকে ব্যাপক ভাবে অনুপ্রাণিত করে।

তিনি ছাত্র ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে টেক্সটাইল পন্য ও উৎপাদন পদ্ধতি নিয়ে গবেষণার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন এবং নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব জার্নালে গবেষণা পত্র প্রকাশের জন্য সকল ছাত্র ছাত্রীদেরকে আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, বেগম আমিনা মনসুর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট, কাজিপুর, সিরাজগঞ্জের অধ্যক্ষ জনাব ইঞ্জিঃ মোঃ নাসির উদ্দিন। তিনি টেক্সটাইল সেক্টরের অগ্রগতি ও সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের টেক্সটাইল সেক্টর যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে এতে টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের ভূমিকা অপরিসীম। বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির জন্য টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

এছাড়াও নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক মন্ডলী আলোচনা করেন এবং বলেন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক দুর্যোগ পরিস্থিতিতে টেক্সটাইল সেক্টর যেভাবে বাংলাদেশকে বহিবিশ্বের কাছে তুলে ধরেছে তা বাংলাদেশে নজিরবিহীন। একসময় দেশের অন্যতম প্রধান শিল্প বস্ত্রখাতের মানোন্নয়নে ও বিকাশে টেক্সটাইল সোসাইটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এবং সোসাইটির মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জনে সহায়তা করবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তারা আলোচনা, দু'আ ও ইফতার শেষে টেক্সটাইল সোসাইটির অন্তর্ভুক্ত বাংলাদেশের বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে সুনামের সাথে কর্মরত নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্র ছাত্রীদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে