বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ছাত্রলীগ কর্মীদের ওপর হামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ৩

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
  ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:৪০
ছাত্রলীগ কর্মীদের ওপর হামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ৩

লক্ষ্মীপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের ৪ কর্মীর ওপর হামলার ঘটনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা তাজুল ইসলাম তাজু ভূঁইয়াসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে তাদেরকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এর আগে সোমবার (১৫ এপ্রিল) রাতে ঢাকায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রলীগ কর্মী এম সজিবের মা বুলি বেগম বাদী হয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে চন্দ্রগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক কাজী মামুনুর রশিদ বাবলুকে প্রধান করে ১১ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ২০ জনকে আসামি করা হয়।

গ্রেপ্তার তাজু ভূঁইয়া চন্দ্রগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সচিব ও চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের আমানি লক্ষ্মীপুর গ্রামের বাকা মিয়ার ছেলে। তিনি এজাহারভূক্ত ২ নম্বর আসামি। গ্রেপ্তার অন্যরা হলেন পাঁচপাড়া গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে ফারুক হোসেন ও একই গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে রেজাউল করিম প্রকাশ বাবু।

সোমবার দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে চন্দ্রগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে পুলিশ। পরে রাতে তাদেরকে মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার রাতে চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন পাঁচপাড়া গ্রামের যৈদের পুকুরপাড় এলাকায় ছাত্রলীগ কর্মী সজীব, সাইফুল পাটোয়ারী, মো. রাফি ও সাইফুল ইসলাম জয়ের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় অভিযুক্তরা।

একপর্যায়ে সজীবকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। এসময় তাকে বাঁচাতে গেলে অন্যদের ওপরও গুলি চালানোর অভিযোগ রয়েছে। পরে আহত অবস্থায় ওই চারজনকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য সজীব, সাইফুল ও রাফিকে ঢাকায় প্রেরণ করে।

সজীবের মা ও মামলার বাদী বুলি বেগম বলেন, আমার ছেলের অবস্থা সংকটাপন্ন। তাকে ঢাকার পপুলার হাসপাতালে নিবীড় পর্যবেক্ষণ কক্ষে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। আমি অভিযুক্তদের উপযুক্ত বিচার চাই।

ঘটনার পর চন্দ্রগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক কাজী মামুনুর রশিদ বাবলু বলেন, আমি বা আমার কেউই হামলার সঙ্গে জড়িত নয়। কিছুদিন ধরে আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতৃবৃন্দের সঙ্গে রাজনৈতিকভাবে রাগ-অভিমানের কারণে আমার দূরত্ব রয়েছে। এখন আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে। ষড়যন্ত্রমূলক আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে।

এ ব্যাপারে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক বলেন, ছাত্রলীগ কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার তিনজনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদেরকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে। অন্য অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

প্রসঙ্গত, আহত সজীব চন্দ্রগঞ্জ কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী। আহত সাইফুল, জয় ও রাফি ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী। তারা চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান মাসুদের অনুসারী। প্রায় ১ মাস আগেও মাসুদসহ আহত কর্মীরা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কাজী বাবলুর অনুসারী হিসেবে পরিচিত ছিল।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে