শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

পূর্বধলা উপজেলা নির্বাচনে প্রচারনায় মাঠে আছেন যারা 

পূর্বধলা (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি
  ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১৮:৫৪
পূর্বধলা উপজেলা নির্বাচনে প্রচারনায় মাঠে আছেন যারা 

নেত্রকোণার পূর্বধলায় ২য় ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচনে অংশগ্রহনের জন্য মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২১ এপ্রিল।

পূর্বধলা উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে জানা গেছে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন প্রার্থীই এখন প্রর্যন্ত চুড়ান্ত মনোনয়ন পত্র দাখিল করেননি। ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন প্রার্থী তাদের আবেদন চুড়ান্ত সাবমিটের জন্য অনলাইনে প্রস্তুত করে রেখেছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো: নাজমুল ইসলাম জানিয়েছেন এ বছর সকল প্রার্থীকেই অনলাইনে মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে হবে। তাই তারা নির্ধারিত সময়ের পুর্বে দেশের যে কোন জায়গা থেকে যেকোন সময় অনলাইনে মনোনয়ন দাখিল করতে পারবেন। তবে সার্ভার জনিত ঝামেলা এড়াতে শেষ তারিখের আগেই মনোনয়ন দাখিলের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহনের জন্য শুরুতে এখানে প্রায় দেড় ডজন প্রার্থীর নাম শোনা গেলেও শেষ মুহুর্তে অনেকেই প্রার্থীতা থেকে এখন সড়ে দাঁড়িয়েছেন। বতর্মান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম সুজন এবারও নির্বাচনে অংশ গ্রহন করার জন্য প্রচারনায় রয়েছেন।

তিনি এ উপজেলায় টানা ২য় বারের মত উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। টানা তৃতীয়বার জয়ের আশায় তিনি এবারও উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে লড়বেন। এই উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মাঝে মুখে মুখে যার নাম বেশি শোনা যাচ্ছে তিনি হলেন এটিএম ফয়জুর সিরাজ জুয়েল।

এর আগেও দুইবার উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক এই সদস্য। এটিএম ফয়জুর সিরাজ জুয়েল, পূর্বধলা সরকারি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল, সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম সিরাজুল ইসলামের জৈষ্ঠ পুত্র।

মাঠ পর্যায়ের অনেকেই মনে করছেন এবারের নির্বাচনে তিনি এখানে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন। এই উপজেলার আর এক শক্তিশালী প্রার্থীর নাম মাছুদ আলম তালুকদার টিপু। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

গত নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহন করে দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন। সর্বশেষ আলোচিত ব্যক্তি হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে এখানে প্রার্থী হয়েছেন শিল্পপতি আসাদুজ্জামান নয়ন। তার জায়গায় প্রথম দিকে প্রচারনায় ছিলেন তারই সহোদর বৈরাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান মোশাররফ।

শেষ মুহুর্তে ছোট ভাইয়ের পরিবর্তে বড় ভাইয়ের প্রার্থী হওয়ার ঘোষণায় অনেকটা আলোচনায় আসেন এই প্রার্থী। উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচনে তিনি একজন শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি সভায় জানান দিয়েছেন।

প্রতিদিন বিভিন্ন ইউনিয়নে চালিয়ে যাচ্ছেন ব্যাপক প্রচারানা। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি।

এখানে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রায় এক ডজন প্রার্থী মাঠে থাকলেও শেষ মুহুর্তে অনেকেই ঝিমিয়ে পড়েছেন। বর্তমানে ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শেখ রাজু আহমেদ রাজ্জাক সরকার।

শুরুতে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন বলে প্রচারনা চালিয়ে আসলেও শেষ মুহুর্তে তিনি ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহন করবেন বলে জানিয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আরও যারা মাঠে রয়েছেন তারা হলেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আকাইদুল ইসলাম, উপজেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি সৈয়দ হাসানুজ্জামান রাফি, স্বেচ্ছা সেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোখলেছুর রহমান খান ভাসানী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সুকান্ত চন্দ্র সরকার রঞ্জন, হাফেজ আব্দুল্লাহ আল আলী, হারুন অর রশীদ, জেলা ছাত্র লীগের সহ সভাপতি ফরহাদ হাসান শরাফ, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মো: শহিদুল ইসলাম শহিদ, মো: শফিকুল ইসলাম, উপজেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হারাধন সুত্রধর আরাধন। এসব প্রাথীদের মাঝে হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি বিশাল ভোট ব্যাংকের প্রার্থী হিসেবে সুকান্ত সরকার রঞ্জন অনেকটা সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছেন বলে অনেকে মনে করছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মাঝে আওয়ামী লীগ থেকে একাধিক প্রার্থী থাকলেও বর্তমান চেয়ারম্যান শারমিন সুলতানা সুমি আকন্দ, মনি রানী কর্মকার ও জেলা পরিষদের সংরক্ষিত আসনের সাবেক সদস্য মোছাঃ পারভীন খাতুন বেশ আলোচনায় রয়েছেন।

তাদের মধ্যে মনি রানী কর্মকার গত নির্বাচনে অংশগ্রন করে ২য় স্থানে ছিলেন। এছাড়া নমিতা রানী পাল, রোজিনা আক্তার, শারমিন আক্তার লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী পূর্বধলায় ২য় ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২১ এপ্রিল, মননোনয়ন বাছাই ২৩ এপ্রিল, আপিল ২৪-২৬ এপ্রিল, নিষ্পত্তি-২৭-২৯ এপ্রিল, প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩০ এপ্রিল, প্রতীক বরাদ্দ ২ মে, ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২১ মে।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে