শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১

গাজীপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া : মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা

গাজীপুর প্রতিনিধি
  ২৩ মে ২০২৪, ১০:২০
-ফাইল ছবি

স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার জেরে সৎ ময়েকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে দ্বিতীয় স্ত্রীর বিরুদ্ধে। হত্যার পর নিজ ঘরের সানশেডের উপরে কাথা দিয়ে লুকিয়ে রাখা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণহাটি এলাকায় গতকাল বুধবার সকালে। পুলিশ সন্ধ্যায় দ্বিতীয় স্ত্রীর ঘর থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার করে এবং হত্যার অভিযোগে সৎ মা আয়না আক্তারকে (২৭) আটক করা হয়েছে।

নিহত শিশু মিম আক্তার (৮)। সে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার গাবামাসি গ্রামের সবুজ মিয়ার মেয়ে।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, সিরাগঞ্জের সবুজ মিয়া উপজেলার হরিণহাটি এলাকার সোজাবর আলীর ৬তলা ভবনের তৃতীয় তলার প্রথম স্ত্রী নাজমা বেগমকে নিয়ে একটি কক্ষে ভাড়া থেকে স্থানীয় একটি পোষাক তৈরি কারখানায় কাজ করেন। গত এক-দেড় বছর আগে সবুজ মিয়া ফের আয়না আক্তার নামে এক মেয়েকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। পরে তাকে একই ভবনের পঞ্চম তলায় আরেকটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে সেখানে দ্বিতীয় স্ত্রীকে রাখেন। গত কয়েকদিন ধরে পারিবারিক বিষয় নিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে বিবাদ চলে আসছিল। বুধবার সকাল থেকে সবুজের প্রথম সংসারের মেয়ে মিম আক্তারকে খুজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে তার পরিবার এলাকায় খোজাখুজি ও মাইকিং শুরু করে।

এদিকে সকল থেকে দ্বিতীয় স্ত্রী আয়নাকে দেখতে না পেয়ে একই ভবনের প্রতিবেশিরা তার খোঁজ করে দেখেন তিনি নিজ ঘরে দরজা বন্ধ করে আছেন। এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তাকে ডাকাডাকি শুরু করলে এক পযায়ে সন্ধায় সে নিজ ঘরের দরাজা খুলে দেয়। পরে প্রতিবেশিরা তার ঘরের সানসেটের উপরে কাথা দিয়ে ঢাকা অবস্থায় শিশু মিমের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মের্গে পাঠিয়েছে এবং সৎ মাকে আটক করেছে ।

কালিয়াকৈর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) জুয়েল বিশ্বাস জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার জের ধরে প্রথম স্ত্রীর ঘরের সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে। শিশুটির গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে