শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

গাজীপুরে ২ মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়েছে, থেমে থেমে হচ্ছে যানজট 

গাজীপুর প্রতিনিধি
  ১৪ জুন ২০২৪, ১৬:০৭
ছবি-যায়যায়দিন

শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এবং ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানবাহন ও ঘরমুখো মানুষের সংখ্যা বেড়ে গেছে।

এতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা এবং ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভোগড়া বাইপাস মোড়, চন্দনা-চৌরাস্তা এলাকায় গাড়ির চাপ বেড়েছে এবং থেমে থেমে জট তৈরি হচ্ছে।

শুক্রবার (১৪ জুন) ভোর থেকে ঈদযাত্রায় ঘরমুখী মানুষের চাপ তুলনামূলকভাবে বেড়েছে। ফলে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানবাহনের সংখ্যাও বেড়েছে কয়েকগুণ। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই সড়কটিতে থেমে থেমে যানজটের দেখা মিলছে। এর মধ্যে বৃষ্টি এলে ভোগান্তি আরও চরম আকার ধারণ করে ৷

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বৃহস্পতিবার অনেক শিল্পকারখানার ছুটি হয়েছে। তবে বৃষ্টির কারণে এসব কর্মজীবীরা বাসা থেকে বের হয়নি। তাঁদের অনেকেই বৃহস্পতিবার শেষরাত ও শুক্রবার ভোর থেকে গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। গাজীপুরের অধিকাংশ শিল্পকারখানা শুক্রবার ছুটি হয়ে গেছে। এতে এদিন বিকেলে মানুষের চাপ আরও কয়েকগুণ বেড়ে গেছে।

শুক্রবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের সফিপুর উড়ালসড়ক থেকে চন্দ্রা পর্যন্ত থেমে থেমে চলছে যানবাহন। কালিয়াকৈর-নবীনগর সড়কে কবিরপুর থেকে চন্দ্রা হয়ে কালিয়াকৈরে খাড়াজোরা পর্যন্ত কোথাও দেখা গেছে দীর্ঘ যানজট। যাত্রীরা যে যেভাবে পারছেন, বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করছেন। কেউ বাসে, কেউ ট্রাক, পিকআপ বা ফিরতি পশুবাহী ট্রাকে বাড়ি ফিরছেন। তবে পিক-আপের গন্তব্যে যাওয়ার জন্য যাত্রীদের আগ্রহ বেশি লক্ষ্য করা গেছে। বিশেষ করে বগুড়া, নওগাঁ, গাইবান্ধা, নাটোরের লোকজনকে ঝুঁকিপূর্ণ পরিবহনগুলোতে উঠতে দেখা গেছে৷ স্বাভাবিক সময়ের থেকে ভাড়া বেশি হাওয়ায় শিল্পকারখানা শ্রমিকেরা কম ভাড়ার আশায় ঝুঁকিপূর্ণ পরিবহন ব্যবহার করে বাড়ি ফিরছেন।

যাত্রীদের মধ্যে একই প্রবণতা দেখা গেছে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কের বোর্ডবাজার, ভোগরা বাইপাস, চান্দনা চৌরাস্তা, সালনা বাজার এলাকায়। এসব স্থানে সকাল থেকেই ঘরমুখী মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে।

ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় দায়িত্ব পালনরত গাজীপুর মহানগর পুলিশের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল থেকেই ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে ঘরমুখো মানুষ এবং গাড়ির চাপ বেড়ে যায়। এছাড়া এদের বিকালে প্রচুর বৃষ্টি হওয়ার কারণে ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকা থেকে চন্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত মহাসড়কে একাধিক স্থানে পানি জমে যাওয়ায় যানবাহন চলাচল ও বিঘ্নিত হয়। রাত সাড়ে আটটার দিকে পানি কমলেও গাড়ির চাপ থাকে রাত দুইটা পর্যন্ত। পরে পরিস্থিতি অনেকটা সার্বিক হলো শুক্রবার ভোর থেকে সকাল ১০ টা পর্যন্ত যাত্রী এবং গাড়ির চাপ বেড়ে যায়। দুপুরে গাড়ির চাপ কমলেও বিকেলে আবার তা বেড়ে গেছে। এতে যানজট না হলেও চন্দনা-চৌরাস্তা ও ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় মাঝেমধ্যেই গাড়ির দীর্ঘ লাইন সৃষ্টি হচ্ছে।

কালিয়াকৈর-নবীনগর সড়কে কবিরপুর থেকে চন্দ্রা হয়ে কালিয়াকৈরে খাড়াজোরা পর্যন্ত কোথাও দেখা গেছে দীর্ঘ যানজট। যাত্রীরা যে যেভাবে পারছেন, বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করছেন। কেউ বাসে, কেউ ট্রাক, পিকআপ বা ফিরতি পশুবাহী ট্রাকে বাড়ি ফিরছেন। তবে পিক-আপের গন্তব্যে যাওয়ার জন্য যাত্রীদের আগ্রহ বেশি লক্ষ্য করা গেছে।

বগুড়া এলাকার মো. রায়হান বলেন, ‘শুক্রবার সকালে বের হয়ে দেখি রাস্তায় মানুষের অনেক চাপ৷ অন্য সময়ের থেকে দুইগুণ বেশি ভাড়া নিচ্ছে বাসগুলো। এখন গাড়ির মালিকদের সঙ্গে ভাড়ার বিষয়ে দর-কষাকষির কোনো সুযোগই নেই। যার ফলে ইচ্ছামতো ভাড়া নিচ্ছে সবাই, এগুলো দেখার কেউ নেই।’

নাওজোড় হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাদাত হোসেন দাবি করেন, মহাসড়কটির কোথাও দীর্ঘ যানজট নেই। বৃষ্টির কারণে মাঝে কিছুটা ধীরগতি হয়। গাজীপুরসহ আশপাশের সব শিল্পকারখানা আজ ছুটি হওয়ার কথা রয়েছে। কারখানা ছুটি হলে বিকেলে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বাড়ার সম্ভাবনা আছে।

শাহাদাত হোসেন আরও বলেন, মহাসড়কে যানজট নিরসনে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। রেকার মজুত রাখা হয়েছে যাতে কোনো যানবাহন বিকল হলে দ্রুত সরিয়ে নেওয়া যায়। এ ছাড়া মোটরসাইকেলে পুলিশ সদস্যরা টহল দিচ্ছেন।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উপ কমিশনার মো. আলমগীর হোসেন, চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় কোন টার্মিনাল না থাকায় ফ্লাইওভারের ওভারের নিচে ময়মনসিংহগামী কিছু গাড়ি যাত্রী তোলার জন্য ভিড় করলেও এখানে কোন যানজট তৈরি হচ্ছে না। অন্যান্য দিনের মতোই গাড়ি চলাচল করছে। আর উত্তরবঙ্গগামী দূরপাল্লার যানবাহন ফ্লাইওভারের উপর দিয়েই চলে যাচ্ছে । এতে কোন সমস্যা হচ্ছে না। আজকেও প্রায় ১৬ ভাগ পোশাককারখানা ছুটি হবে। বাকি কারখানা শনিবার ছুটি হলে এই মহাসড়কে আরো গাড়ির চাপ ও যাত্রীর সংখ্যা বেড়ে যাবে। আমরা সেটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে মোকাবেলা করার জন্য সকল প্রস্তুতির নিয়েছি।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে