logo
মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ম্যাজিস্ট্রেট সংকট: নিয়মিত মোবাইল কোর্ট বসাতে পারছে না বিআরটিএ

কিশোর সরকার

জনবল সংকটের কারণে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছে না বিআরটিএ। ফলে সড়কে বাড়ছে ফিটনেসবিহীন গাড়ির সংখ্যা, বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা। এছাড়া ছোটখাটো অভিযোগে অভিযুক্ত ছোট যানবাহন মালিকরা বিচারের আশার মাসের পর মাস ঘুরছেন বিআরটিএ অফিসে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ঢাকা প্রধান কার্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য ১০টি ও চট্টগ্রাম বিআরটিএ অফিসে ৩টি ম্যাজিস্টেটের পদ রয়েছে। এছাড়া অন্যান্য সিটি করপোরেশনে বিআরটিএর কোন নিজস্ব ম্যাজিস্টেটের পদই সৃষ্টি হয়নি। বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে আবেদন করে ম্যাজিস্টেট নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে হচ্ছে বিআরটিএর। শুধু তাই নয় সারাদেশে বর্তমানে বিআরটিএর নিবন্ধিত ৪০ লাখ যানবাবাহন রয়েছে। কিন্তু বিআরটিএর ঢাকা অফিসে বর্তমানে ম্যাজিস্ট্রেট রয়েছেন মাত্র ৭ জন। অনেক সময় তা ৫ থেকে ৬ জনে এসে দাঁড়ায়। এছাড়া চট্টগ্রামে রয়েছে মাত্র একজন। কোনো সময়ই যেন তিনজনই পুরন হওয়া সম্ভব হচ্ছে না। যে কারণে ছুটির দিন বাদে ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় যেখানে বছরে কমপক্ষে সাড়ে চার হাজারের বেশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা হওয়ার কথা। সেখানে এ বছর গত জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত এক হাজার ৫৬০টি অভিযান

পরিচালনা হয়েছে। এসময় জরিমানা হিসেবে আদায় হয়েছে ৩ কোটি ৪৮ লাখ ২৭ হাজার ৭৩০ টাকা। মামলা হয়েছে ১৯ হাজার ৯০৩টি। এছাড়া ২৩৩ জনকে কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।

তবে ম্যাজিস্ট্রেটরা নিয়মিত বিচার কার্য পরিচালনা না করায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যানবাহন মালিকরা। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে ডাম্পিং হওয়া যানবাহনের মালিকরা মাসের পর মাস বিআরটিএর প্রধান কার্যালয়ে ঘুরছেন বিচারের আশায়। এতে ডাম্পিং হওয়া ছোট মালিকরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন বেশি।

মালিকদের ভোগান্তি বাড়ছে : সরেজমিন অনুসন্ধানে জানা গেছে, লেগুনার মালিক নারায়ণগঞ্জের মো. তাজুল ইসলাম দেড় মাস আগে তার ড্রাইভার ভুল করে রায়েরবাগ এলাকায় যাত্রী নিয়ে আসেন। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের রেজিস্ট্রেশন তার লেগুনার, ঢাকা আসার নিয়ম নেই। তাই ভ্রাম্যমাণ আদালত তার লেগুনা ডাম্পিং করেছে। দীর্ঘ দেড় মাস বিআরটিএর অফিসে ঘোরাঘুরির পর গত ৯ সেপ্টেম্বর মেজিস্ট্রেট তাকে চার হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। জরিমানা জমা দেয়ার রশিদ থানায় জমা দিলে তার লেগুনা দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, অপরাধ করেছে ড্রাইভার, অথচ শাস্তি পেতে হয়েছে তাকে। নারায়ণগঞ্জের রেজিস্ট্রেশন (নারায়ণগঞ্জ-ছ-১১০০৬৬) ঢাকায় ঢোকা অপরাধ তার পরও ঢুকেছে। ড্রাইভার লেগুনাটি ডাম্পিং হওয়ার পর একদিনও খোঁজ নেয়নি। অন্যত্র গাড়ি চালাচ্ছেন। তবে আতঙ্কে আছেন থানা থেকে তার লেগুনার যন্ত্রাংশ চুরি না হয়ে যায়।

তাজুল জানান, তিনি সৌদিআরব উটের খামারে কাজ করতেন। সেখান থেকে যা পেয়েছেন তাই দিয়ে একটি লেগুনা কিনেছেন। গত দেড় মাস ঘুরেছেন বিআরটিএতে। জরিমানা দিতে রাজি, তাও নিচ্ছে না বিআরটিএ। আজ বলছে ম্যাজিস্ট্রেট নেই, কাল আস। কাল এলে বলে পরশু আস। এই চলছে। অবশেষে জরিমান ধার্য শেষে মুক্তি মিলল। এতে জরিমানা ছাড়াও তিন হাজার টাকা খরচ করতে হয়েছে বিআরটিএ অফিসে।

একই অবস্থা নারায়ণগঞ্জে রেজিস্ট্রেশন হওয়া লেগুনা মালিক মো. সাকিলের। ঢাকা ঢোকা অপরাধ কিন্তু কাঁচামাল নিয়ে যাত্রাবাড়ী আড়তে এসেছিল তার ড্রাইভার। কিন্তু যাত্রাবাড়ী মোড় দিয়ে লেগুনাটি ঘোরানোর সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত লেগুনাটি আটক করে ডাম্পিং করে। দুই মাস ধরে ঘোরাঘুরির পর গত ৯ সেপ্টেম্বর চার হাজার টাকা জরিমানা করেন মেজিস্ট্রেট। জরিমানার টাকা জমা দেয়া ছাড়াও তাকে বিআরটিএর অফিসের কর্মচারীদের সাড়ে তিন হাজার টাকা দিতে হয়েছে। এছাড়া জরিমানা কাগজ জমা দেয়ার পর থানায়ও লেগুনাটি নিতে গেলে আরও হাজার টাকা খরচ করতে হবে বলে তিনি জানান।

বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে সারাদেশ ফিটনেস সার্টিফিকেট বিহীন ৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৮টি যানবাহন চলাচল করছে। এর মধ্যে কমপক্ষে ১০ বছর ফিটনেস সার্টিফিকেট নেয়নি এমন যানবাহনের সংখ্যা ৮০ হাজার ৮১৭টি।

জানা গেছে, নিয়মিত ফিটনেস পরীক্ষা না করায় সড়ক মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচলের সংখ্যা বাড়ছে। তবে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা না হওয়ায় বাড়ছে সড়ক দুর্ঘনা। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির হিসাব মতে, ২০১৮ সালে ৫ হাজার ৫১৪টি সড়ক দুর্ঘনা ঘটে। এতে ৭ হাজার ২২১ জন নিহত হয়। আহত হয় ১৫ হাজার ৪৬৬ জন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, বিআরটিএর চেয়ারম্যান মো. মশিয়ার রহমান যায়যায়দিনকে বলেন, যানবাহন বাড়ছে তাই ভ্রাম্যমাণ পরিচালনার জন্য ম্যাজিস্ট্রেট বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে। তিনি বলেন, একসময় কোনো কিছুই ছিল না এখন পর্যায়ক্রমে সবই হচ্ছে। তবে একটু সময় লাগবে। যানবাহনের জরিমানার সাথে উৎকোচ গ্রহণের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে, তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

\হ
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে