মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

তীব্র গরমে বেড়েছে ফ্যান, এসির চাহিদা 

যাযাদি ডেস্ক
  ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৩৩
আপডেট  : ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৯:৫০
তীব্র গরমে বেড়েছে ফ্যান, এসির চাহিদা 

সারাদেশে চলছে তীব্র তাপদাহ। তীব্র গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ। গরম বাড়ার কারণে রাজধানীসহ সারাদেশে ইলেকট্রনিক পণ্যের মার্কেট গুলো ও শোরুমে এসি, ফ্যান ও এয়ারকুলার বিক্রি বেড়েছে।

দেশের কোনো কোনো এলাকায় তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে গেছে। প্রথম দফায় সারাদেশে তিন দিনের জন্য হিট অ্যালার্ট জারি করে আবহাওয়া অধিদপ্তর। কিন্তু তাপমাত্রা না কমায় ফের তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

এসি উৎপাদন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকর্তারা জানান, প্রচণ্ড গরমের কারণে এখন স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় এসি বিক্রি ২০–৩০ শতাংশ বেড়েছে। বাসাবাড়ির জন্যই বেশি এসি কেনা হচ্ছে।

রাজধানীর গুলিস্তান, নিউমার্কেট, বায়তুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটের পাইকারি ইলেকট্রনিক পণ্যের দোকান, নবাবপুর রোডের পাইকারি ইলেকট্রনিক্স দোকানসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোয় ক্রেতার ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। বেশিরভাগ ক্রেতাই এসি, সিলিং ফ্যান-স্ট্যান্ড ফ্যান, চার্জার ফ্যান ও এয়ারকুলার কিনছিলেন।

বিক্রেতারা বলছেন, গরম বাড়ায় ফ্যান ও এসির চাহিদা বেড়েছে। চাহিদার তুলনায় জোগানেও টান পড়েছে। ব্র্যান্ডের কোম্পানিগুলো চাহিদা অনুযায়ী স্থানীয় দোকানগুলোয় ফ্যান দিচ্ছে না।

নন-ব্র্যান্ডের টাইফুন ফ্যানগুলোর দাম এখন ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা। অথচ গত মাসেও এগুলোর দাম ছিল ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা। ১২ ইঞ্চি ফ্যান কোথাও বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার ৫০০ টাকা, কোথাও ৭ হাজার টাকা।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, ছোট স্ট্যান্ড (৯-১০ ইঞ্চি) বা টাইফুন ফ্যান বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ থেকে ১৬০০ টাকা। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্ট্যান্ড ফ্যান বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার ২০০ থেকে ৮ হাজার টাকায়।

এ ছাড়া দেশি ব্র্যান্ডের সিলিং ফ্যান ১৭০০ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা, বিদেশি ব্র্যান্ডের সিলিং ফ্যান বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৪ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকায়।

তবে গত বছরের তুলনায় এবার ব্র্যান্ডের এসি ও এয়ারকুলারের দাম বেশি বলে মনে করেছেন ক্রেতারা। যদিও বিক্রেতারা বলছেন, নানা অফার ও ইএমআইতে সাশ্রয়ী দামে পাওয়া যাচ্ছে এসব পণ্য।

এই গরমে যমুনা ইলেকট্রনিক্স ক্রেতাদের জন্য মূল্যছাড় সহ বিভিন্ন সুযোগ। যমুনা ইলেকট্রনিক্সের এ.জি.এম. (ব্যান্ড ডেভেলপমেন্ট) রুহুল কে. সাগর যায়যায়দিনকে বলেন, যমুনাতে ১ টন এসি ৪১,৪০০ টাকা এবং ২ টন এসি ৬৯,১২০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। চলতি মৌসুমে এসির দাম বাড়ানো হয়নি।

গত রোজার ঈদের পর থেকেই দেশে তাপমাত্রা মোটামুটি ৩৫ ডিগ্রির ওপরে রয়েছে। আবহাওয়াবিদেরা বলছেন, আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত তাপমাত্রার তীব্রতা বেশি থাকবে।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে