শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

নতুন কর্মসূচি আসছে আজ

যাযাদি রিপোর্ট
  ০৬ নভেম্বর ২০২৩, ০৯:৩২

সরকারের পদত্যাগ ও নিরপেক্ষ সরকারসহ এক দফা দাবিতে চলমান অবরোধ কর্মসূচিতে রাজধানীসহ সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি, জামায়াতসহ আন্দোলনে থাকা বিরোধী দল ও অঙ্গসংঠনের নেতাকর্মীরা। রাজধানীর কয়েকটি স্থানে পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের বাধার মুখে পড়তে হয়েছে বলে দলগুলোর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। অবরোধের শেষ দিনে আজ আন্দোলন কর্মসূচির পরবর্তী ঘোষণা আসতে পারে। এ ক্ষেত্রে আাগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার আবারও ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা আসতে পারে।

রোববার দুপুরে বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক-বিষয়ক সহ-সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া জুয়েলের নেতৃত্বে অবরোধের সমর্থনে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মালিবাগ মোড় থেকে সবুজবাগ অভিমুখে মিছিল করেছে। একই সময় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি ফখরুল ইসলাম রবিনের নেতৃত্বে মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট এলাকায় মিছিল হয়েছে। মোহাম্মদপুর শেরে বাংলা নগর ও আদাবর থানার উদ্যোগে এই মিছিল হয়। সকালে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের নেতৃত্বে কুর্মিটোলা হাসপাতালের সামনের ঢাকা-গাজীপুর সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মিছিল করেছে। অবরোধের সমর্থনে সকালে বনশ্রী এলাকায় মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। মিছিলে সংগঠনের সহ-সভাপতি নাছির উদ্দীন নাছির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পিয়াস ও রেহেনা আক্তার শিরিনসহ সংগঠনের কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর পূর্ব, ঢাকা কলেজ, খিলগাঁও, সবুজবাগ, মুগদা ও খিলগাঁও মডেল কলেজ ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। উত্তরা হাউস বিল্ডিং মমতাজ মহলের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রাসেল বাবুর নেতৃত্বে একটি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। অবরোধের সমর্থনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯টি গেটে তালা ঝুলিয়ে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল। এ সময় প্রতিটি গেটে ‘দেশ রক্ষার অবরোধ সফল হোক’ লেখা-সংবলিত একটি করে ব্যানার ঝুলিয়ে দেন নেতাকর্মীরা।

সন্ধ্যায় স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এএ জহির উদ্দিন তুহিন ও সাধারণ সম্পাদক সাদ মোর্শেদ পাপ্পা শিকদারের নেতৃত্বে একটি মশাল মিছিল বের হয়। এটি ফকিরাপুল কালভার্ট রোডের সামনে থেকে শুরু হয়ে ফকিরাপুল পানির ট্যাংকি হয়ে পল্টন মোড়ে এসে বিক্ষোভ প্রদর্শনের মাধ্যমে শেষ হয়। এর আগে বিকালে তাদের নেতৃত্বেই রাজধানীর শান্তিনগরে বিক্ষোভ মিছিল ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন দলটির নেতাকর্মীরা।

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির বাড্ডা থানা বিএনপি সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে, মিরপুর এক নম্বর গোল চত্বরের সামনে থানা বিএনপির উদ্যাগে, পল্লবী ইস্টার্ন হাউজিংয়ে থানা বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা, মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধে আদাবর থানা বিএনপি, কাকলীতে বনানী থানা বিএনপি, তুরাগ থানার উদ্যাগে আব্দুল্লাহপুর, রামপুরা থানার উদ্যাগে বনশ্রী এবং তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার উদ্যোগে গুলশান লিংক রোডে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মহানগর দক্ষিণের সূত্রাপুর, গেণ্ডারিয়া, কোতোয়ালি, বংশাল, হাজারীবাগ, মতিঝিল, ওয়ারী, কদমতলী, শ্যামপুর, যাত্রাবাড়ী, ডেমরা, খিলগাঁও, লালবাগ থানাসহ সব থানায় অবরোধের সমর্থনে মিছিল বের করেন নেতাকর্মীরা।

জামায়াত : অবরোধের সমর্থনে রাজধানীর কমলাপুর সড়কে জামায়াতে ইসলামীর মজলিসে শুরা সদস্য অ্যাডভোকেট ডক্টর হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে মিছিল হয়েছে। গেণ্ডারিয়া রেলস্টেশনের রেললাইনে অবরোধের সমর্থনে বের হওয়া মিছিলে নেতৃত্ব দেন মজলিসে শুরা সদস্য দেলাওয়ার হোসেন। রায়েরবাগে মিছিলে নেতৃত্ব দেন জামায়াতে ইসলামীর মজলিসে শুরা সদস্য মু. কামাল হোসাইন। ডেমরায় অবরোধের সমর্থনে বের হওয়া মিছিলের নেতৃত্ব দেন মজলিসে শুরা সদস্য মোকাররম হোসাইন খান। রামপুরা-স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় মিছিলের নেতৃত্ব দেন মজলিসে শুরা সদস্য শামসুর রহমান। গ্রিন রোডে বের হওয়া মিছিলের নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আবদুল মান্নান। জামায়াতে ইসলামীর কর্মপরিষদ সদস্য মুহাম্মদ রেজাউল করিমের নেতৃত্বে রাজধানীর উত্তরায় মিছিল হয়েছে। জামায়াতের মজলিসে শুরা সদস্য মাহফুজুর রহমানের নেতৃত্বে মিরপুরে স্টেডিয়াম এলাকায়। ভাটারা এলাকায় মিছিলে জামায়াতের ঢাকা মহানগর উত্তরের সহকারী সেক্রেটারি নাজিম উদ্দিন মোল্লা নেতৃত্ব দেন। কাফরুলে মিছিলের নেতৃত্ব দেন জামায়াতের মজলিসে শুরার ডা. মো. ফখরুদ্দীন মানিক। মগবাজার রেলগেটে বের হওয়া মিছিলের নেতৃত্ব দেন মহানগর উত্তরের প্রচার-মিডিয়া সম্পাদক আতাউর রহমান সরকার। মিরপুরের পূরবী বাসস্ট্যান্ডের সামনে মিছিলে নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ যুব কল্যাণ পরিষদের ঢাকা মহানগরী সেক্রেটারি নাসির উদ্দীন।

গণতন্ত্র মঞ্চ : অবরোধ কর্মসূচি সমর্থনে পুরানো পল্টনে গণতন্ত্র মঞ্চের নেতাকর্মীরা মিছিল বের করে। মিছিলটি বিজয়নগর হয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়। মঞ্চের সমন্বয়ক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপনের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেনÑ গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ।

এর বাইরে ১২-দলীয় জোট, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট, এলডিপি, গণঅধিকার পরিষদ (নুর), এবি পাটি, গণঅধিকার পরিষদ (রেজা) বিভিন্ন স্থানে অবরোধ সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করা হয়েছে। বিএনপির ডাকা অবরোধ কর্মসূচিকে সমর্থন জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। তবে তাদের কাউকে মাঠে দেখা যায়নি।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ অক্টোবর রাজধানী ঢাকার মহাসমাবেশ পণ্ড হওয়ার পর বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো ২৯ অক্টোবর দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতাল, ৩১ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত অবরোধ, গত শুক্রবার চলমান আন্দোলনে নিহত নেতাকর্মীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া এবং বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনা করা হয়।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে