শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১

খালেদা জিয়া গৃহবন্দি নন : পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

যাযাদি ডেস্ক
  ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ২৩:২৩
প্রেস ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার প্রতিবেদন নিয়ে সরকারের অবস্থান তুলে ধরেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন। ছবি: সংগৃহীত

কয়েকদিন আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সারাবিশ্বের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে বাংলাদেশের প্রসঙ্গ উঠে আসে প্রতিবেদনে। বাংলােদেশে মানবাধিকার নিয়ে কড়া সমালোচনা করা হয় প্রতিবেদনে। এতে বলা হয় বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থির কোনো পরিবর্তন হয়নি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বার্ষিক মানবাধিকার প্রতিবেদনে বাংলাদেশ বিষয়ে যা বলা হয়েছে, তাতে ভিত্তিহীন তথ্য রয়েছে বলে দাবি ঢাকার। বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার এক ব্রিফিংয়ে দাবি করেছে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গৃহবন্দি নন; নির্বাহী আদেশে তার সাজা স্থগিত করা হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ও জনকূটনীতি অনুবিভাগের মহাপরিচালক সেহেলী সাবরীন মার্কিন প্রতিবেদনে বাংলাদেশ নিয়ে করা অভিযোগের বিষয়ে সরকারের প্রতিক্রিয়া পড়ে শোনান। এ সময় মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সেহেলী সাবরীন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে প্রকাশিত মানবাধিকার পরিস্থিতি প্রতিবেদন-২০২৩ এ তথ্যের অসংগতি আছে বলে মনে করে সরকার। ভুল তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি করা হয়েছে এবং সেখানে সরকারের ভালো কাজের স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, আমরা যতই চেষ্টা করি না কেন, পৃথিবীর কোথাও মানবাধিকার পরিস্থিতি শতভাগ নির্ভুল নয়। বাংলাদেশ সরকার দেশের জনগণের মানবাধিকার পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মানবাধিকার পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয়েছে। কিন্তু দুঃখজনক হলো– সরকারের অনেক ভালো কাজের স্বীকৃতি প্রতিবেদনে দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে ধারাবাহিকভাবে বিচ্ছিন্ন ও ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে ধরা হয়েছে। প্রতিবেদনে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ধারণা ও ভিত্তিহীন অভিযোগের কথা বলা হয়েছে। এসব ধারণা ও অভিযোগ স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক এনজিওদের কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে। এসব এনজিওর অনেককে যুক্তরাষ্ট্র অর্থায়ন করে।

মুখপাত্র বলেন, মার্কিন প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে– বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া গৃহবন্দি। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে তিনি একজন দোষী ব্যক্তি এবং নির্বাহী আদেশে তার সাজা স্থগিত করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রতিবেদনের আরেক জায়গায় বলা হয়েছে– বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিছু ক্ষেত্রে ‘অতিরিক্ত শক্তি প্রদর্শন করেছে’। কিন্তু বিএনপি ও তাদের রাজনৈতিক সহযোগীরা যে ভাঙচুর করেছে, তা উল্লেখ করতে ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নয়ন ও জনগণের মঙ্গলে সরকার জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য মেকানিজমের সঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে