শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

পিস্তল নিয়ে ধর্মমন্ত্রীর বাংলোয় প্রবেশ : দুই যুবক আটক 

ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি
  ০৮ জুলাই ২০২৪, ১৩:৫৯
আপডেট  : ০৮ জুলাই ২০২৪, ১৪:০৪
ছবি-যায়যায়দিন

ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলালের সঙ্গে দেখা করে বের হওয়ার সময় দুই যুবককে পিস্তল সহ দেখতে পেয়ে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয় উপস্থিত নেতাকর্মী।

রবিবার (৭জুলাই) রাত দশটার দিকে ধর্মমন্ত্রী নির্বাচনে এলাকা ইসলামপুর পৌর শহরের জেলা পরিষদ ডাকবাংলোতে এই ঘটনা ঘটে।

আটকৃতরা হলেন, তানভীর আহমেদ তপু (৩৫) পিতা- হাজী আবুল হাসেম, সাং- বয়রা ডাংগা, নিহাল আহমেদ ললাট (২৫) পিতা- আলতাফুর রহমান, সাং- পাদুরপাড়া উভয়ের থানা-মেলান্দহ, জামালপুর।

জানা গেছে, ওই দুই যুবকের একজনের প্যান্টের পেছনে রাখা ছিল পিস্তল। লিটন দাস নামে আওয়ামী লীগের এক কর্মীর নজরে আসে পিস্তলের মত কিছু একটা। এ সময় অন্য নেতা কর্মীরা দুই যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে খবর দেয়। ধর্মমন্ত্রী তখন ডাকবাংলাতে বসে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলছিলেন। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ইসলামপুর থানা পুলিশের কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত হয়।

ইসলামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন তালুকদার জানান, দুই যুবক ধর্মমন্ত্রীর সাথে দেখা করে বের হয়ে যাওয়ার সময় জুতা পরতে গেলে তাদের এক জনের পেছনে রিভলবার সদৃশ কিছু দেখতে পেয়ে উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাদেরকে মারধর করে পুলিশে খবর দেয়। এ সময় দুই যুবককে আটক করে থানায় আনা হয়। আটকের সময় তাদের কাছ থেকে গ্যাস লাইট/খেলনা পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ধর্মমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কাজ করছে বলে জানান।

ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল বলেন, আমার কাছে আসছে, দেখা করেছে ছবিও তুলেছে। এরা যাবার সময় জুতা পায়ে দেয়ার সময় তাদের কাছে রিভলভার মতো বস্তু দেখে। তবে আটককৃত তপু পরিবারের দাবি, তপু মন্ত্রীকে বাবা বলে ডাকেন। ২০১৪ সালে সে সড়ক দুর্ঘনায় আহত হয়ে রাস্তায় পড়ে ছিল। সে সময় তিনি এমপি ছিলেন। তিনি ঢাকায় যাবার সময় তাকে সেখানে তুলে নিয়ে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে যান। তখন থেকেই মন্ত্রীর সাথে তার বাবা ছেলে সর্ম্পক। তিনি ইসলামপুরে আসলেই সে দেখা করতে আসে। কিন্তু তার সাথে যে ছেলেটি এসেছে তার কাছে পিস্তলের মতো বস্তু পেয়েছে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে