বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ৬ মাঘ ১৪২৭

শক্তিশালী কাতারকে প্রতিহত করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

শক্তিশালী কাতারকে প্রতিহত করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

গত বছর দেশের মাটিতে কাতারের বিপক্ষে সাহসী পারফরম্যান্স করেছিল বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলে হেরে গেলেও ওই ম্যাচ থেকে অনুপ্রেরণা নেওয়ার মতো অনেক মুহূর্ত তৈরি করেছিল লাল-সবুজরা। শুক্রবার যখন দোহার আব্দুল্লাহ বিন খলিফা স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের আয়োজকদের মুখোমুখি হবে, তখন সেগুলোই বাংলাদেশকে উজ্জীবিত রাখবে। শক্তিশালী কাতারের বিপক্ষে সফরকারীদের লক্ষ্য- খুব ভালো খেলা এবং প্রতিপক্ষের জন্য পরিস্থিতি কঠিন করে তোলা।

কাতার বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের স্থগিত হওয়া ম্যাচটি মাঠে গড়াচ্ছে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়। দোহার এই ম্যাচে নামার আগে দুই দলের পার্থক্য বিশাল। র‌্যাংকিংয়ে কাতারের চেয়ে ১২৫ ধাপ পিছিয়ে বাংলাদেশ। তাছাড়া মহামারির মধ্যেও সফরকারীদের চেয়ে দুই মাস আগে ফুটবল খেলা শুরু করেছে কাতার।

দুই দলের প্রস্তুতিতেও রয়েছে তফাৎ। কাতার গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়া ও কোস্টারিকার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে। আর বাংলাদেশ ৮ মাস পর মাঠে ফিরে ঢাকায় দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলেছে নেপালের বিপক্ষে। এমনকি ১৯ নভেম্বর কাতারের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে দলের সঙ্গে ছিলেন না কোচ জেমি ডে। করোনাভাইরাস জয় করে কদিন আগে দলে যোগ দিয়েছেন। প্রধান কোচকে ছাড়া দুই সপ্তাহ প্রস্তুতি নিয়েছে তারা, খেলেছে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ।

জেমির অনুপস্থিতিতে তার জায়গায় ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করা স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস খেলোয়াড়দের পূর্ণ ফিটনেস অর্জনে কাজ করে গেছেন। রক্ষণ নিয়েও কাজ করেছেন তিনি। কিন্তু ফর্মে থাকা নাবীব নেওয়াজ জীবন হাঁটুর চোটে ভোগায় তাকে নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। নেপালের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে চোট পাওয়ার এক সপ্তাহ পর দলে যোগ দেন এই ফরোয়ার্ড।

জীবনকে নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকায় সাদ উদ্দিন ও মোহাম্মদ ইব্রাহিমের মাঝে কে থাকবেন, তা নিয়ে জেমির কপালে ভাঁজ। নেপালের বিপক্ষে অভিষেক হওয়া সুমন রেজা দুটি ম্যাচ খেললেও এই স্ট্রাইকার বড় ম্যাচের জন্য একেবারে অনভিজ্ঞ। জীবন যদি না-ই থাকেন, তবে মাহবুবুর রহমান সুফিলকে আক্রমণের একটু সামনে রাখা হবে এবং তার পেছনে থাকতে পারেন সোহেল রানা কিংবা বিপ্লব আহমেদ।

রক্ষণে রিয়াদুল হাসান রাফি ও ইয়াসিন হাসান খানের সঙ্গে থাকবেন তপু বর্মণ। নেপালের সঙ্গে প্রীতি ও শেষ দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে একাদশে ছিলেন তিনি। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার সঙ্গে মিডফিল্ডে ভরসা মানিক মোল্লা। কাতারের রক্ষণে চমকে দেওয়ার জন্য থাকবেন লম্বা থ্রু ইনে দক্ষ রায়হান হাসান।

প্রতিপক্ষ যতই শক্তিশালী হোক না, বাংলাদেশ যেন বুক ফুলিয়ে মাঠ ছাড়তে পারে সেটাই চাওয়া জেমির, ‘এমন ম্যাচ খেলা হবে খেলোয়াড়দের জন্য দারুণ অভিজ্ঞতা। এটা অনেক কঠিন ম্যাচ। কিন্তু আমরা এমন কিছুর জন্য মুখিয়ে আছি, যেন আমাদের সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করে খেলতে পারি এবং বাংলাদেশকে গর্বিত করতে পারি। কাতার তো আমাদের বিপক্ষে জিততেই চাইবে। কিন্তু আমাদের ভালো পারফরম্যান্স নিশ্চিত করতে হবে এবং তাদের জন্য পরিস্থিতি কঠিন করে তুলতে হবে। ‘ই’ গ্রুপে চার ম্যাচ শেষে মাত্র এক পয়েন্ট নিয়ে সবার শেষ দল বাংলাদেশ। আর ১৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে কাতার।

যাযাদি/এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে