শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

জয় দিয়ে ইউরো মিশন শুরু জার্মানির

যাযাদি ডেস্ক
  ১৫ জুন ২০২৪, ১৮:২৫
সংগৃহীত ছবি

শুরু হয়ে গেল ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের পর সবচেয়ে জনপ্রিয় টুর্নামেন্ট ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ২০২৪ সালের আসর। উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল স্বাগতিক জার্মিন ও স্কটল্যান্ড। প্রথম ম্যাচেই মাঠে শক্তি প্রদর্শন করতে দেখা গেছে জার্মানদের। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে শেষ পর্যন্ত রেফারিকে বের করতে হয়েছিল লালকার্ডও।

শুক্রবার (১৪ জুন) জার্মানির মিউনিখের আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় স্কটিশদের ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ২০১৪ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

গোল উৎসবের শুরুটা করেন ফ্লোরিয়ান ভিরতজ। এরপর সেই উৎসবে যোগ দেন জামাল মুসিয়ালা, কাই হাভেরতজ, নিকলাস ফুলক্রুগ ও এমরি চানে। স্কটিশরা তাদের হওয়া গোলটি আত্মঘাতি থেকে পায়। জার্মানির হয়ে আত্মঘাতি গোলটি করেন অ্যান্তনিও রুডিগার।

ঘরের মাঠে স্কটল্যান্ড চাপে থাকবে এটা অনেকটা অনুমেয়ই ছিল। শুরু থেকেই বল দখলে নিয়ে স্কটিশ ডিফেন্সের উপর চাপ বাড়াতে থাকে জার্মানরা।ম্যাচের প্রথম মিনিটেই ভিরতজ গোলের সুযোগ পেলেও অফসাইডের কারণে তা আটকে যায়। তবে গোল পেতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি জার্মানদের।

ম্যাচের ১০ মিনিটের মাথায় জশুয়া কিমিখের অ্যাসিস্ট থেকে ভিরতজের ডান পায়ের কোনাকুনি শট স্কটিশ গোলরক্ষকের হাতে লেগে জালে প্রবেশ করে। এতে করে সবচেয়ে কমবয়সী জার্মান ফুটবলার হিসেবে ইউরোতে গোলের রেকর্ড গড়েন ভিরতজ। প্রথম গোল থেকে দ্বিতীয় গোলের সময় মাত্র ৯ মিনিট। দলের ১৯ মিনিটের সময় স্কোরশিটে নাম লেখান জামাল মুসিয়ালা। হাভেরতজের পাস থেকে ডান পায়ের বুলেট শটে গোল করেন এই বায়ার্ন তারকা।

২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে গোলের জন্য স্কটিশদের রক্ষণে একের পর এক আক্রমণ শানাতে থাকে জার্মানরা। তার ফল হিসেবে ম্যাচের ২৫তম মিনিটে মুসিয়ালাকে ডি-বক্সের ভেতর ফাউল করলে পেনাল্টির পায় জার্মানি। কিন্তু ভিএআর চেক করে দেখা যায় ফাউল ডি-বক্সের বাইরে হয়েছে, তাই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হয়ে ফ্রিকিক দেন রেফারি। ফ্রি-কিক থেকে হাভেরতজের শট স্কটিশ গোলরক্ষক গান রুখে দেন।

তবে প্রথমার্ধের একেবারে শেষ মুহূর্তে ডি-বক্সের ভেতর ইল্কাই গুন্দোগানকে ফাউল করলে লালকার্ড দেখেন স্কটল্যান্ডের রায়ান পরটিউস। প্রাপ্ত স্পট কিক থেকে জার্মানিকে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন আর্সেনাল তারকা হাভেরতজ। ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জার্মানি। ১৯৮৪ সালে ফ্রান্সের পর, প্রথম দল হিসেবে ইউরোর গ্রুপ পর্বের কোনো ম্যাচে প্রথমার্ধে তিন গোল করল জার্মানি।

বিরতি থেকে ফিরে আক্রমণের ধার আরো বাড়িয়ে দেয় জার্মানরা। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ায় তারা। এবার বদলি হিসেবে নেমে স্কোরশিটে নাম লেখান ফুলক্রুগ। ডান পায়ের দুর্দান্ত বাঁকানো শটে ৪-০ তে এগিয়ে যায় জার্মানরা। ৭৭ মিনিটে আবারো ফুলক্রগ গোল করলেও অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়ে যায়।

ম্যাচের শেষের দিকে ৮৭ মিনিটের সময় স্কটিশদের নেয়া ফ্রি-কিকে রুডিগার আত্মঘাতী গোল করলে এক গোল পরিশোধ করে স্কটল্যান্ড। এরপর যোগ করা সময়ে এমরি চানের দুর্দান্ত শটের গোলে ৫-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় জার্মানরা। শেষ পর্যন্ত ৫-১ ব্যবধানের দুর্দান্ত জয় নিয়ে ইউরোতে দারুণ প্রদর্শনী দেখিয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরত যান জার্মানরা।

সবশেষ বড় তিন টুর্নামেন্টে জার্মানির গল্প ছিল হতাশায় মোড়া, প্রতিবারই যার শুরু হয়েছিল প্রথম ম্যাচ হেরে। গত দুই বিশ্বকাপেই গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয় তারা, এর মাঝে গত ইউরোয় কোনোমতে গ্রুপের বৈতরণী পার হলেও আটকে যায় শেষ ষোলোয়।

সেই বৃত্ত ভেঙে এবার অসাধারণ শুরু পেল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামী বুধবার হাঙ্গেরির মুখোমুখি হবে নাগেলসমানের দল।

যাযাদি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে