শেষমেশ আড়াল ভাঙলেন পপি

শেষমেশ আড়াল ভাঙলেন পপি
সাদিকা পারভীন পপি

প্রায় এক বছর ধরে 'উধাও' ছিলেন একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সাদিকা পারভীন পপি। বাসা, মুঠোফোন, ল্যান্ডফোন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম- কোথাও ছিলেন না এই নায়িকা। এমনকি তার পরিবারের একাধিক সদস্যদের কাছে খোঁজ গিয়েও সন্ধান মেলেনি পপির। এই এক বছরে কত রকম গুঞ্জন, গুজব ছড়িয়েছে পপিকে ঘিরে- তারও কোনো হিসাব নেই। গুঞ্জন উঠেছিল বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন এমনকি মা হয়েছেন এই অভিনেত্রী।

একবার চাউর হয় পুত্রের মা হয়েছেন পপি, আরেকবার শোনা যায় কন্যাসন্তান জন্ম দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। এত কিছুর পরও হদিস পাওয়া যায়নি তার। শেষপর্যন্ত সব সন্দেহ-সংশয়ের অবসান ঘটিয়ে নিজেই আড়াল ভাঙলেন পপি। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ঠিক একদিন আগে এক ভিডিওর মাধ্যমে সাড়া দিলেন এই আলোচিত নায়িকা। বুধবার দুপুর থেকেই সেই ভিডিও বার্তাটি চলচ্চিত্রের বিভিন্ন গ্রম্নপে ছড়িয়ে যায়। যেখানে নিজের ব্যক্তিগত বিষয় আড়ালে রেখে আসন্ন শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে কথা বলেন এই অভিনেত্রী। ভিডিও বার্তায় পপি বিগত দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা শিল্পী সমিতির ক্ষমতাসীন এক ব্যক্তিকে ইঙ্গিত করে বেশকিছু অভিযোগের কথাও তুলে ধরেন। যদিও তিনি সরাসারি ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেননি। ভিডিও বার্তায় পপি বলেন, 'ভেবেছিলাম আর কখনোই ক্যামেরার সামনে আসব না। কিন্তু একজন শিল্পী হিসেবে এবং নিজের দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে আজকে কিছু কথা না বললেই নয়।

দীর্ঘ ২৬ বছর ইন্ডাস্ট্রিতে সুনামের সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করেছি। তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি। আজকে অনেক কষ্ট নিয়ে কথাগুলো বলছি- আজ আমি কোথায়?

আমি আছি আপনাদের মধ্যেই, হয়তো ভাগ্য থাকলে আবারও ফিরব কাজে।'

পপি বলেন, 'বর্তমান শিল্পী সমিতির একটি মাত্র লোকের কারণে বার বার অপমানিত হতে হয়েছে। শুধু আমি না, আমার মতো রিয়াজ, ফেরদৌস, পূর্ণিমা, নিপুণও অপমানিত হয়েছেন। আমাদের ব্যবহার করে যে এই চেয়ারটিতে বসেছে- সেখানে বসেই বিভিন্ন রকমের অপকর্মের চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমরা গুটি কয়েকজন তাতে সাঁয় দিইনি।' তিনি আরও বলেন, 'যার কারণে আজকে আমিও ভিক্টিম। আমার মতো শিল্পীকে সদস্য পদ বাতিলের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে। এতো বছর কাজ করার পর এমন আচরণ, একটা শিল্পীর জন্য কতটুকু অপমানের- সেটা আমি বুঝতে পারি। ১৮৪ শিল্পীরাও এই কষ্টটা বুঝতে পারবে।'

এই অভিনেত্রী বলেন, 'এসব কারণে চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছি। আমার কাছে সদস্য পদ বাতিলের চিঠিটা এখনো আছে। ওই চিঠিটা যখনই পেয়েছি, তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছি নোংরামির মধ্যে আর যাব না। ভেবেছি, কখনো যদি পরিবেশ ভালো হয়- তখনই চলচ্চিত্রে ফিরব।'

চলচ্চিত্র শিল্পীদের উদ্দেশে পপি বলেন, 'আমরা যে ভুলটা করেছি, দয়া করে আপনারা সেই ভুলটা করবেন না। চলচ্চিত্র বাঁচলেই আমরা বাঁচব। আমরা পরিবর্তন চাই।

সেজন্য আমাদের পরীক্ষিত সৈনিক কাঞ্চন ভাই, নিপুণ, রিয়াজদের একটা সুযোগ দেওয়া উচিত। তারা অন্তত শিল্পীর মূল্যায়ন করবে।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে