রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সাফল্যে ধারাবাহিক ওটিটি পস্ন্যাটফরম

ম মাসুদুর রহমান
  ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০
'টান' ওয়েব ফিলমে সিয়াম ও বুবলী
বিনোদনের নয়া মাধ্যম ওটিটি পস্ন্যাটফরম। আলোচনার পাশাপাশি সমালোচনা থাকলেও এই মাধ্যমটি এখন দর্শকের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছে। টেলিভিশন ও প্রেক্ষাগৃহের দর্শক এখন ওটিটির দখলে। নানা সুবিধা থাকায় সময়ের আলোচিত নির্মাতা ও অভিনয়শিল্পীরাও এর প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়ছেন। তারা টিভি নাটকের চেয়ে ওটিটির কাজকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। এক সময় নাক সিঁটকালেও তারকা শিল্পীরা এখন এই অনলাইন, ডিজিটাল পস্ন্যাটফর্মেই মেতে আছেন। মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরীর মতো বড় মাপের অভিনেতারা বর্তমানে এই আঙিনায় বেশি ব্যস্ত। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই মাধ্যমে প্রচারিত বিষয়বস্তু (কনটেন্ট) জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। প্রযোজকরাও এই মাধ্যমের গুরুত্ব দিচ্ছেন। কেউ কেউ সিনেমার সফলতার অঙ্ক প্রেক্ষাগৃহের জন্য না ভেবে চিন্তা করেন ওটিটি নিয়ে। টেলিভিশন নাটক কিংবা প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমার মতো ব্যবসা সফল আবার ব্যর্থতার অভিযোগ এসে পড়ছে না এই পস্ন্যাটফরমে। এখানে কোনো কনটেন্ট মুক্তির পরপরই লুফে নিচ্ছেন দর্শক। রিতিমতো হইচই ফেলে দেওয়ার মতোও পরিস্থিতি হয়েছে কোনো কোনো ওয়েব ফিল্ম-ওয়েব সিরিজের বেলায়। সফলতার ধারাবাহিকতায় দুই বাংলায় যাত্রা শুরু করছে নতুন নতুন ওটিটি পস্নাটফরম। আমাদের দেশেও চলছে বেশকিছু ওটিটির সফলতা। এর মধ্যে অন্যতম চরকি। গত বছরের ১২ জুলাই যাত্রা শুরু করে এই পস্ন্যাটফরম। মাত্র এক বছর সময়ের মধ্যেই চরকি প্রায় ৫০টির বেশি অরিজিনাল কনটেন্ট মুক্তি দিয়েছে। এ ছাড়া বায়োস্কোপও রয়েছে প্রশংসায়। চলতি বছরের প্রথম মাসে দর্শক মহলে সাড়া ফেলে 'টান' নামের ওয়েব ফিল্ম। সময়ের আলোচিত চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী ও হালের নায়ক সিয়াম আহমেদ অভিনীত এই ফিল্মটি মুক্তি পায় ওটিটি পস্নাটফরম চরকিতে। এটি পরিচালনা করেন রায়হান রাফি। চলতি বছরের ফেব্রম্নয়ারিতে ওটিটি পস্নাটফর্ম বায়োস্কোপে প্রকাশ পায় ইফতেখার চৌধুরী প্রথম ওয়েব সিরিজ 'ড্রাইভার'। 'কোয়াইট অন সেট প্রোডাকশন্স'র ব্যানারে নির্মিত তিন পর্বের এই সিরিজটি খুব কম সময়ে দর্শকের ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে। একই সময় পস্ন্যাটফর্ম চরকিতে মুক্তি পায় ওয়েব ফিল্ম 'রেডরাম'। এটি আফরান নিশো ও মেহজাবীনের প্রথম ওয়েব ফিল্ম। অভিনেতা মনোজ প্রামাণিকেরও প্রথম ওয়েব ফিল্ম। 'রেডরাম' পরিচালনা করেন ভিকি জাহেদ। ওটিটি পস্ন্যাটফর্ম জিফাইভের প্রথম বাংলাদেশি ওয়েব সিরিজ 'কন্ট্রাক্ট' মুক্তি পায় ১৮ মার্চ। মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের লেখা উপন্যাস 'কন্ট্রাক্ট' অবলম্বনে নির্মিত এই সিরিজটি পরিচালনা করেন তানিম নূর ও কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায়। এতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, আরিফিন শুভ, জাকিয়া বারী মম, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা এবং তারিক আনাম খান। গত বছরের মাঝ সময়ে ইন্ডিয়ান ওটিটি পস্ন্যাটফর্ম হইচই এ মুক্তি পায় ওয়েব সিরিজ 'মহানগর'। ৮ পর্বের এই সিরিজটি ওয়েব দুনিয়ায় রীতিমতো সাড়া ফেলে। বিশেষ করে মোশাররফ করিমের দুর্দান্ত অভিনয়ে মুগ্ধ হন দুই বাংলার লাখ-কোটি দর্শক। এতে আরও অভিনয় করেন শ্যামল মওলা, জাকিয়া বারী মম, সাহেদ আলী, রুকাইয়া চমক, লুৎফর রহমান জর্জসহ অনেকেই। পরিচানা করেন আশফাক নিপুণ। একই পরিচালকের 'সাবরিনা' ওয়েব সিরিজটিও বছরের প্রথম দিকে প্রশংসিত হয়। সিরিজটির কেন্দ্রীয় দুই নারী চরিত্রে অভিনয় করেন মেহ্‌জাবীন চৌধুরী ও নাজিয়া হক অর্ষা। আরও অভিনয় করেছেন রুনা খান, সাঈদ জামান শাওন, ইন্তেখাব দিনার, ইয়াশ রোহান, হাসান মাসুদ, ফারুক আহমেদ, মনির খান শিমুল, নাদের খান, ডা. এজাজ প্রমুখ। মুক্তি পায় ওটিটি পস্নাটফর্ম হইচইতে। মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত প্রশংসিত ওয়েব সিরিজ 'লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান'। কর্মক্ষেত্রে নারীকে হয়রানি, বৈষম্যসহ বিভিন্ন স্তরের গল্প দেখানো হয়েছে ওয়েব সিরিজটিতে। ৮ পর্বের এই ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেন নুসরাত ইমরোজ তিশার প্রযোজনায় নির্মিত এই ওয়েব সিরিজের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন ফারিণ। এ ছাড়া আরও ছিলেন আফজাল হোসেন, হাসান মাসুদ, সাবেরী আলেম, পার্থ বড়ুয়া, ইরেশ যাকের, মারিয়া নূর প্রমুখ। পস্ন্যাটফরম চরিকর অন্যতম সাড়া জাগানো ওয়েব কন্টেন্ট 'নেটওয়ার্কের বাইরে'। ছোটপর্দার তারকা নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান পরিচালিত এই ওয়েব ফিল্মটির গল্প, নির্মাণ এবং অভিনয়শিল্পীদের দুর্দান্ত অভিনয় ছুঁয়ে যায়নি এমন সিনেদর্শক খুঁজে পাওয়া মুশকিল! বন্ধুত্বের অন্য রকম গল্পে নির্মিত এই ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করেছেন শরীফুল রাজ, ইয়াশ রোহান, খায়রুল বাসার, জুনায়েদ, অর্ষা, ফারিণসহ অনেকে। একই পস্ন্যাটফরমে আলোচিত অমনিবাস সিরিজ 'ঊনলৌকিক'। রবিউল আলম রবি পরিচালিত শিবব্রত বর্মণের গল্প অবলম্বনে এই সিরিজে অভিনয় করেন আসাদুজ্জামান নূর, নুসরাত ইমরোজ তিশা, চঞ্চল চৌধুরী, রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা, ইরেশ যাকের, শাহানা রহমান সুমী, ইন্তেখাব দিনার, গাজী রাকায়েত প্রমুখ। স্বাধীনতা ও বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিনটি স্বল্পদৈর্ঘ্য নিয়ে নির্মিত হয় 'জাগো বাহে'। মুক্তি পায় গত বছরের ডিসেম্বরে। লাইট ক্যামেরা অবজেকশন, শব্দের খোয়াব এবং বাংকার বয় নামে তিনটি পর্ব পরিচালনা করেন সালেহ সোবহান অনীম, সিদ্দিক আহমেদ এবং সুকর্ণ শাহেদ ধীমান।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে