শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১

মোহন খানের মৃতু্যতে শোবিজে শোকের মাতম

বিনোদন রিপোর্ট
  ০১ জুন ২০২৩, ০০:০০
মোহন খানের মৃতু্যতে শোবিজে শোকের মাতম

অসংখ্য জনপ্রিয় টিভি নাটকের নির্মাতা মোহন খান আর নেই। দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার সময় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে মাসখানেকের বেশি সময় ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। শুরুতে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়। এরপর পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে মোহন খানকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

জানা গেছে, গত মাসে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন মোহন খান। প্রাথমিক চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর পরিবারের সদস্যরা জানতে পারেন, মোহন খানের ব্রেন টিউমার হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে সেই টিউমারের অস্ত্রোপচার করতে হয়। তারপর শারীরিক অবস্থা ভালোর দিকেই যাচ্ছিল। এর মধ্যে ঘাড়ে স্পাইনাল কর্ডের ওপরের প্রেশার পয়েন্টে একটি অস্ত্রোপচার করতে হয়। এরপর থেকেই লাইফ সাপোর্টে ছিলেন মোহন খান। হাসপাতালের যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে মোহন খানের মরদেহ তার লালমাটিয়ার বাড়িতে নেওয়া হয়। বুধবার বাদ জোহর লালমাটিয়া শাহি মসজিদে জানাজা শেষে ঢাকার আজিমপুর কবরস্থানে মা-বাবার কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়। মোহন খানের গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলায়। তার স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

দেশের নাট্যাঙ্গনে মোহন খানের বিচরণ তিন দশকের বেশি সময়ের। তিনি ১৯৮৮ সাল থেকে নাটক নির্মাণ করেন। পাশাপাশি নাটক রচনাও করেন। তার পরিচালিত প্রথম নাটক 'আমার দুধমা' বিটিভিতে প্রচারিত হয়। তার লেখা ও পরিচালনায় নাটক 'সমুদ্রে গাঙচিল', 'সেই আমরা', 'নীড়ের খোঁজে গাঙচিল', 'জেগে উঠো সমুদ্র', 'মেঘবালিকা', 'দূরের মানুষ', 'আঙ্গুরলতা', 'হৃদয়পুরের গল্প' ইত্যাদি নাটক বানিয়ে তিনি প্রশংসিত হন। সবশেষ তিনি নাটক নির্মাণের পাশাপাশি এটিএন বাংলায় অনুষ্ঠান বিভাগের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

এদিকে মোহন খানের মৃতু্যতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে নাট্য ও চলচ্চিত্রাঙ্গনে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক পেজেও শোকবার্তা ও স্মৃতিচারণ করেছেন অনেক তারকারা। এই নির্মাতার স্মৃতিচারণ করে অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয় তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেছেন, 'সম্ভবত আমিই প্রথম লিখছি মোহন ভাই আর নেই। ইন্নালিলস্নাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। কি অদ্ভুত ব্যাপার মোহন ভাই আমি এখন কক্সবাজারে। যে কক্সবাজার আপনি চিনিয়েছেন, যে কক্সবাজার আপনার। আমি সমুদ্রকে বলে দিব আপনি আর কখনো আসবেন না।'

চিত্রনায়ক জায়েদ খান মোহন খানের স্মৃতিচারণ করে ফেসবুক পেজে লিখেছেন, 'ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমার ইতিহাস বিভাগের বড় ভাই জনপ্রিয় নাট্য নির্মাতা মোহন খান আর নেই।' অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী বিজরী বরকতউলস্নাহ লিখেছেন, 'আপনিই আমাকে সব সময় বলতেন 'কখনো আমাকে ভাই ডাকবি না, সব সময় আঙ্কেল ডাকবি। আমি তোর আঙ্কেল।' কত কাজ একসঙ্গে করেছি..., কত স্মৃতি...। এই তো সেদিনই শুনলাম আপনি আইসিইউ থেকে রুমে চলে গেছেন। আলস্নাহ আপনাকে বেহেস্ত নসিব করুক মোহন আঙ্কেল। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি।'

মডেল অভিনেত্রী তারিন জাহান লিখেছেন, 'ইন্না লিলস্নাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। আমাদের প্রিয় স্বনামধন্য নাট্যকার, পরিচালক ও প্রযোজক মোহন খান ভাই ১১.৫০ মিনিটে ইন্তেকাল করেছেন। সবাই মোহন খান ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন। মহান আলস্নাহ যেন উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন। কত শত স্মৃতি! কত নাটক! কত শুটিংয়ের ফাঁকে আড্ডা! হাসিখুশি মানুষটা চলেই গেলেন...।'

টিভি ও চলচ্চিত্র অভিনেতা ইমন তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেছেন, 'মোহন ভাই আপনার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। আলস্নাহ আপনাকে বেহেশত নাসিব করুক। আমিন।'

এ ছাড়াও অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি, অভিনেতা শাহেদ আলী, অভিনেত্রী রিমু রোজা খন্দকার, উপস্থাপক-নির্মাতা আনজাম মাসুদসহ অনেকেই মোহন খানের মৃতু্যতে শোক প্রকাশ করেছেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে