নির্বাচনে বিএনপির মিথ্যাচারের জবাব দিয়েছে জনগণ -ওবায়দুল কাদের

নির্বাচনে বিএনপির মিথ্যাচারের জবাব দিয়েছে জনগণ -ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের ভোটের সংস্কৃতি নিয়ে বিএনপির মিথ্যাচারের জবাব দিয়েছে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার ভোটাররা। বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীও যেখানে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানান, সেখানে অন্ধকারে ঢিল না ছুড়ে মির্জা ফখরুলকে নিজ দলের প্রার্থীর কথা অনুধাবন করার আহ্বান জানান তিনি।

জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার বাসা থেকে দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন-পরবর্তী তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে শনিবার সন্ধ্যায় একথা বলেন সেতুমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, গতকাল

অনুষ্ঠিত নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই আব্দুল কাদের মির্জা বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। ভোটের আগে সরকারের এমপি-মন্ত্রীর নানা অনিয়ম ও ভোটে কারচুপির আশঙ্কায় বিভিন্ন বিষয়ে বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি।

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে গণমাধ্যম এবং রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক আগ্রহ ছিল উলেস্নখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন সেখানেও অবাধ, শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপির প্রার্থীরা ভোটের পরিবেশ ও ভোটাধিকার প্রয়োগ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করলেও তাদের কেন্দ্রীয় নেতারা শুধু সমালোচনার জন্য সমালোচনা করছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রথমবারের মতো বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ইভিএমে ভোট হয়েছে এবং ৬০ ভাগেরও বেশি ভোটার ছিলেন, অথচ মির্জা ফখরুল সাহেব আমাকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করে যেসব কথা বলেছেন, তার জবাব আমি না দিলেও বসুরহাট পৌরসভার ভোটাররা শান্তিপূর্ণ ও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে এর জবাব দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, বসুরহাটে যে নির্বাচন হয়েছে এমন নির্বাচনই চান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নির্বাচনকে অনেকেই স্বচ্ছতার জন্য 'বসুরহাট মডেল' হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। বিএনপি ভোটে হারার আগেই হেরে বসে থাকে, তারা রাজপথ ভয় পায়, আন্দোলনেও ভয় পায়।

ভোটারদের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও ভোটাধিকার প্রয়োগ ইভিএমের ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তাই প্রমাণ করে উলেস্নখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি উদ্দেশ্যমূলক বিরোধিতা করলেও দেশের জণগণ অত্যন্ত সাবলীলভাবে ইভিএমে ভোট প্রদান করছে। ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারে জনগণ ইতোমধ্যে অভ্যস্ত হয়ে উঠলেও বিএনপির মানসিকতা এখনে অ্যানালগ রয়ে গেছে। তাই তারা এ পদ্ধতির বিরোধিতা করেন। বিএনপি মুখে স্বচ্ছতার কথা বললেও প্রকৃতপক্ষে প্রযুক্তিবিমুখ এবং পিছিয়েপড়া ধ্যানধারণা আঁকড়ে ধরে বসে থাকতে চায়।

দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার যে অপপ্রয়াস অবিরাম চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি, তা আর হালে পানি পাচ্ছে না উলেস্নখ করে তিনি আরও বলেন জনগণ এখন আর বিএনপি নেতাদের মিথ্যাচারে বিশ্বাস করে না। বিএনপি ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকার আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলে মাঝেমধ্যে, তারা কল্পিত অভিযোগ এনে ভোটের মাঠ ত্যাগ করে তাদের চর্চিত নেতিবাচক রাজনীতির ঐতিহ্য ধরে রাখার অপচেষ্টা করে।

মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কোথায় কে কী বলল সেটা বিষয় নয়। আওয়ামী লীগ একটি সুসংগঠিত রাজনৈতিক দল। আমরা আদর্শের রাজনীতি করি। জনগণের চোখের ভাষা, মনের ভাষা বুঝে রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ। তাই পরিবারের কে কোথায় কী বলল, সেটা বিষয় নয়। প্রত্যেকের ব্যক্তিগত অপিনিয়ন থাকতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ রয়েছে আওয়ামী পরিবারে, আবার গঠনতন্ত্রবিরোধী কার্যকলাপের জন্য শাস্তির বিধানও যথাযথভাবে কার্যকর করা হয়, যা বিএনপির রাজনৈতিক চর্চায় নেই।

স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে দেশের বিভিন্ন পৌরসভায় ভোটারদের এবং নির্বাচন কমিশনকে অভিনন্দন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটারদের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও উৎসব আমেজে ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে নির্বাচন নিয়ে যারা মিথ্যাচার করে, তার জবাব দিয়েছে জনগণ। নির্বাচনে জয়-পরাজয় থাকবে, তবুও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য প্রার্থীদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে