জুনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজারের বেশি

জুন মাসে করোনা সন্দেহে টেস্ট করা হয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৬৬৩টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি টেস্ট করা হয়েছে ২৯ জুন ১৪ হাজার ৯১২টি
জুনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজারের বেশি

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। জুনের শুরুর দিকে আক্রান্তের সংখ্যা কম থাকলেও মাঝের দিক থেকে বাড়তে শুরু করে। জুনের শেষের চারদিনে দেশে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় দশ হাজার। সারা মাসে সুস্থ হয়েছে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ। আর এই মাসে আক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজার ২৭৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে দেশে করোনার সংক্রমণ গাণিতিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে ফেব্রম্নয়ারি মাসকেও টপকে যাবে।

জুন মাসে করোনা সন্দেহে টেস্ট করা হয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৬৬৩টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি টেস্ট করা হয়েছে ২৯ জুন ১৪ হাজার ৯১২টি। সবচেয়ে কম টেস্ট করা হয়েছে ৪ হাজার ১২৪টি। এই মাসে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ২০ হাজার ২৭৮ জন। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে ২৯ জুন ২ হাজার ২৪১ জন। সবচেয়ে কম আক্রান্ত হয়েছে ২ জুন ২২ জন। হিসাব করে আরও দেখা যায় এই মাসে সুস্থ হয়েছে ৪ হাজার ৭৪৯ জন। এর মধ্যে ১৮ জুন সবচেয়ে কম সুস্থ হয়েছেন ৪৭ জন। আর সবচেয়ে বেশি সুস্থ হয়েছে ৪২৫ জন ৭ জুন। এই মাসে মারা গেছেন ১৮ জন। মাসের শেষ দিন ৩০ জুন মারা গেছে ৪ জন। সারা মাস জুড়েই মৃতু্য শূন্যের কোটায় ছিল। ২০ জুন থেকে প্রথম মৃতু্য শুরু হয়।

২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে করোনা পরীক্ষা হয়েছিল ৯ লাখ ৮৭ হাজার ১৯৪টি। শনাক্ত হয়েছিল ২ লাখ ১৩ হাজার ২৯৮ জন। সেই মাসে সুস্থ হয়েছিল ১৯ হাজার ১১২ জন। মৃতু্য হয়েছে ৩২২ জনের। ফেব্রম্নয়ারি মাসে পরীক্ষা করা হয় ৯ লাখ ২২ হাজার ৬৫৭টি। আক্রান্ত ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৪৪ জন। সুস্থ ২ লাখ ৪৬ হাজার ৪৫২ জন। মৃতু্যবরণ করে ৬৪৩ জন। মার্চ মাসে করোনা পরীক্ষা করা হয় ৪ লাখ ২২ হাজার ৬৬৮টি। শনাক্ত হয় ৮ হাজার। সুস্থ হন ৬৬ হাজার ৬৩৯ জন। এরপর করোনা কমতে থাকে।

এপ্রিল মাসে করোনা পরীক্ষা করা হয় ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪৫৯টি। শনাক্ত হয় ১ হাজার ১১৪ জন। সুস্থ হন ১৪ হাজার ১০০ জন। মৃতু্য হয় ৪ জনের। মে মাসে আরও কমে যায় আক্রান্ত-শনাক্ত ও মৃতু্য। ১ লাখ ৩২ হাজার ৫৬টি টেস্ট হয় এই মাসে। যার মধ্যে ৮১৬ জন আক্রান্ত হন। সুস্থ হয় ৭ হাজার ৩৫৬ জন। আর মৃতু্য হয় ৪ জনের।

বর্তমানে শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৩১ শতাংশ। সুস্থতা ৯৬ দশমিক ৫৬ শতাংশ আর মৃতু্যর হার ১ দশমিক ৪৮ শতাংশ। করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছে ২৯ হাজার ১৫৪ জন। যার মধ্যে নারী ১০ হাজার ৫৪৪ জন। আর পুরুষ মারা গেছে ১৮ হাজার ৬১০ জন। বিভাগ হিসাব করলে মৃতু্য ঢাকায় বেশি। এখানে মারা গেছেন ১২ হাজার ৮১৭ জন। যা মোট মৃতু্যর ৪৩ দশমিক ৯৬ শতাংশ। সরকারি হাসপাতালে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছে। সরকারি হাসপাতালে মারা গেছে ২৪ হাজার ৭১৪ জন। বেসরকারি হাসপাতালে মারা গেছে ৩ হাজার ৬২২ জন ও বাসায় মারা গেছে ৭৮৩ জন। হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে ৩৫ জনকে। মৃতু্যর দিক থেকে রাজধানী পুরো দেশের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে। শহরে মারা গেছে ৮ হাজার ৩৩৪ জন। আর সবচেয়ে কম মারা গেছে বান্দরবানে ১৮ জন।

২০২১ সালে করোনা পরীক্ষা করা হয় ৮২ লাখ ৬৩ হাজার ৮৯০টি। এতে শনাক্ত হয় ১০ লাখ ৭২ হাজার ২৯ জন। সুস্থ হন ১০ লাখ ৯১ হাজার ৬৪২ জন। মারা যায় ২০ হাজার ৫১৩ জন মানুষ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে