বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের সাত মাস পর উত্তোলন

ম স্টাফ রিপোর্টার, যশোর
  ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০
বিনা ময়নাতদন্তে দাফনের সাত মাস পর যশোরের চৌগাছার বিপস্নব হোসেন ওরফে বিলস্নালের (৪৫) মরদেহ উত্তোলন করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে সোমবার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিব হাসান ও তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের উপ-পরিদর্শক সঞ্জয় বিশ্বাসের উপস্থিতিতে চৌগাছা উপজেলার দেবীপুর গ্রামের কবর থেকে বিপস্নবের লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পিবিআই যশোরের পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন। জানা যায়, চলতি বছরের ১ মার্চ রাতে উপজেলার চৌগাছা-কোটচাঁদপুর সড়কের মুক্তাদহ মোড়ের উত্তর পাশে সড়ক দুর্ঘটনায় বিপস্নব হোসেন বিলস্নাল মারা যান। তখন মৃতের ভাই রুবেল হোসেন সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন মর্মে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ দাফনের জন্য চৌগাছা থানার ওসি বরাবর লিখিত আবেদন করেন। অভিযোগ না থাকায় ওসি বিনা ময়নাতদন্তে লাশ দাফনের জন্য মৃতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন। এরপর গত ১৬ মে যশোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিহতের স্ত্রী নাসরিন আক্তার নিহতের চাচাতো ভাই আরিফসহ চারজনের নামে মামলা করেন। আদালত মামলাটি তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য যশোর পিবিআইকে নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে সোমবার যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী নাজিব হাসানের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করা হয়। এর আগে গত ২৬ জুলাই প্রেস ক্লাব যশোর মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে নিহত বিপস্নব হোসেন বিলস্নালের স্ত্রী নাসরিন আক্তার দাবি করেন, বিপস্নব সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাননি। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালান নিহতের চাচাতো ভাই ও অনুসারীরা। মামলার অভিযুক্তরা হলেন, চৌগাছা উপজেলার দেবীপুর গ্রামের আরশাদ আলীর ছেলে আরিফ হোসেন, আলামিন ও আরশাদ আলী, রমজান মালিথার ছেলে আরিফুল ইসলাম, নিয়ামতপুর গ্রামের বুদোর ছেলে বিপুল হোসেন।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে