শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০
walton
৪৭২ টন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা

কালীগঞ্জে সরিষার বাম্পার ফলন আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি
  ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:০০
গাজীপুরের কালীগঞ্জে বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে সরিষার ক্ষেত -যাযাদি

গাজীপুরের কালীগঞ্জে বিগত বছরের তুলনায় এ বছর রেকর্ড পরিমাণ জমিতে বিভিন্ন জাতের সরিষার চাষ করা হয়েছে। স্থানীয় চাষিরা বলছেন, বর্তমান বাজারে সরিষার দাম ও চাহিদা ভালো থাকায় অনেকেই সরিষা চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। তাছাড়া সরিষা সিজনে গ্রামবাংলার প্রকৃতি সাজে অন্যরকম এক সাজে। যা পথচারী ও প্রকৃতিপ্রেমীদের মুগ্ধ করে।

উপজেলার কৃষি অফিসের তথ্য মতে, কালীগঞ্জ পৌরসভাসহ ৭টি ইউনিয়নেই সরিষার চাষ হয়। তবে উপজেলার তুমলিয়া ও জামালপুর ইউনিয়নে সরিষার চাষ একটু বেশি হয়। এ উপজেলায় বারি সরিষা ৯, ১৪, ১৭ ও ১৮ এবং বিনা সরিষা ৯ ও ১১ উচ্চ ফলনশীল জাত ছাড়াও স্থানীয় টরি সেভেন ও মাঘি প্রজাতির রেকর্ড পরিমাণ সরিষা চাষ হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, চলতি বছর এ উপজেলায় ২৯৫ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সরিষা চাষ হয়েছে। গেল বছর ১৫০ হেক্টর জমিতে ২৩৭ টন সরিষা উৎপাদন হলেও এ বছর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৭২ টন। গত বছরের তুলনায় এ বছর ১৪৫ হেক্টর জমিতে সরিষার চাষ বেশি হয়েছে।

উপজেলা তুমলিয়া ইউনিয়নের পিপ্রাশৈর গ্রামের কৃষাণী স্টেলা জোৎস্না বলেন, 'আমি প্রতি বছর সরিষার চাষ করি। তবে এবার কৃষি কর্মকর্তাদের কাছ থেকে বীজ ও পরামর্শ পাওয়ায় সরিষা চাষ ভালো হয়েছে। সেই সঙ্গে আবহাওয়া ভালো থাকায় ফলন বেশ ভালো হয়েছে।'

কৃষক নয়ন মিয়া জানান, 'গত বছর ২ বিঘা জমিতে সরিষার চাষ করেছিলাম, ফলন খুব ভালো হয়েছে। গত বছরের ভালো ফলন দেখে এবার দ্বিগুণ জমিতে সরিষার চাষ করেছি। এবারও ফলন খুব ভালো হয়েছে। আগামীতে হয়তো আরও বেশি জমিতে সরিষার চাষ করার চেষ্টা করব।'

একই এলাকার আরেক কৃষক দিপু রোজারিও বলেন, 'গত বছর আমি ৩ বিঘা জমিতে সরিষার চাষ করেছি ফলন খুব ভালো হয়েছে। তবে এবারও আমি ৩ বিঘা জমিতেই সরিষার চাষ করেছি এ বছরও ফলন খুব ভালো হয়েছে।'

প্রকৃতিপ্রেমী নুরুল ইসলাম বলেন, 'এই সময়টা কৃষকের সরিষার চাষ প্রকৃতিতে অন্যরকম এক মাত্রা যোগ করে। চারদিকে হলুদের আভায় পথচারীদের মাঝেও আগ্রহ তৈরি হয় সরিষার ক্ষেত ঘুরে দেখার। যে কারণে আমি এবং বন্ধুরা মিলে সময় সুযোগ পেলেই ঘুরতে আসি।'

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ ফারজানা তাসলিম বলেন, বর্তমানে সরিষার ভালো দাম পাওয়ায় চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের। এবারের আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সরিষার ভালো ফলন হয়েছে। এছাড়া বোরো রোপণের আগে সরিষা একটি অল্প সময়ের ফসল সেই সঙ্গে লাভজনকও।

তিনি আরও বলেন, 'আমাদের মূলত টার্গেট হচ্ছে বিদেশ থেকে তেলের আমদানি নির্ভরতা কমানো। এছাড়াও কৃষকের এক ফসলি জমিকে দুই ফসলি এবং দুই ফসলি জমিকে তিন ফসলি জমিতে বৃদ্ধি করা।'

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে