শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

তিন মাসের আগাম জামিন পেলেন নিপুণ রায়

যাযাদি ডেস্ক
  ৩০ মে ২০২৩, ০০:০০
তিন মাসের আগাম জামিন পেলেন নিপুণ রায়

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নিপুণ রায় ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে হামলা, ভাঙচুর ও নেতাকর্মীদের মারধরের অভিযোগে করা মামলায় তিন মাসের আগাম জামিন পেয়েছেন।

সোমবার বিচারপতি মো. হাবিবুল গনি ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ জামিন চেয়ে তার করা আবেদনের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন।

এর আগে, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে হামলা, নেতাকর্মীদের মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগে জিনজিরা ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এসএম সুমন গত শনিবার কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় ওই মামলা করেন। এতে নিপুণ রায়সহ বিএনপির ১০৮ নেতাকর্মীর নাম উলেস্নখ করা হয়েছে। এ ছাড়া অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলায় আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন নিপুণ রায়। জামিন আবেদনের শুনানি থাকায় হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে এদিন সকালে আদালত প্রাঙ্গণে আসেন নিপুণ। পরে হুইলচেয়ারে করে আদালতে হাজির হন তিনি। নিপুণের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন- আইনজীবী নিতাই রায় চৌধুরী ও এম বদরুদ্দোজা। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন- ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। পরে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এম বদরুদ্দোজা বলেন, মামলায় হাইকোর্ট নিপুণ রায়কে তিন মাসের আগাম জামিন দিয়েছেন। এ সময়ের পর তাকে ঢাকা মহানগর দায়রা আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, গত শুক্রবার সকালে ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ঢাকা জেলা বিএনপি সমাবেশের আয়োজন করে। সমাবেশ শুরু হওয়ার পর বিএনপির বিভিন্ন নেতারা আওয়ামী সরকারকে উৎখাতসহ বিভিন্ন উত্তেজনামূলক বক্তব্য দেন। এতে সেখানে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ সময় নিপুণ রায় উসকানিমূলক বক্তব্য দিলে নেতাকর্মীরা সরকারবিরোধী বিভিন্ন কটূক্তিমূলক স্স্নোগান দিতে থাকেন। একপর্যায়ে নিপুণ রায়ের হুকুমে নেতাকর্মীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র ও বাঁশের লাঠিসোঁটা নিয়ে সড়কে যানবাহন ও মানুষের চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে এবং গালিগালাজ করতে থাকেন। একপর্যায়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে প্রবেশ করে কার্যালয়ের আসবাবপত্র ও গস্নাস ভাঙচুর এবং দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজহার বাঙালিসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও মারধর করেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে