শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
প্রধানমন্ত্রীকে স্কটিশ প্রতিনিধি দল

বাংলাদেশ থেকে নির্মাণ শ্রমিক নিতে চায় স্কটল্যান্ড

যাযাদি ডেস্ক
  ২১ নভেম্বর ২০২৩, ০০:০০
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে সোমবার স্কটিশ পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপি ফয়সল চৌধুরীর নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন -ফোকাস বাংলা

স্কটল্যান্ডের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ছয় সদস্যের পার্লামেন্টারি গ্রম্নপের (সিপিজি) একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে সাক্ষাৎ করেছে। এ সময় তারা বাংলাদেশ থেকে নির্মাণ শ্রমিক নেওয়ার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, 'স্কটল্যান্ড সংসদের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপি ফয়সল চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ বৈঠকে প্রতিনিধিত্বকারী দলটির নেতৃত্ব দেন।

প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন মাইলস ব্রিগস, ইভলিন টুইড, জুনেদ হোসেন চৌধুরী, ফারহান মাসুদ খান ও মো. লুৎফুর রহমান।

স্কটিশ সংসদ সদস্যরা বলেন, 'ভাষাগত অদক্ষতা বাংলাদেশ থেকে নির্মাণ শ্রমিক নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রধান বাধা।'

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'তার সরকার কর্মীদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ভাষা শেখানোসহ বৃত্তিমূলক ও কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।'

তখন ফয়সল চৌধুরী বলেন, 'স্কটল্যান্ড বাংলাদেশের কৃষি খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।'

এ সময় প্রতিনিধি দল গত ১৫ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বলেন, বাংলাদেশি প্রবাসীরা স্কটল্যান্ডের মূলধারার রাজনীতিতে জড়িত এবং বর্তমানে প্রায় ২০০ বাংলাদেশি দেশটির কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

অ্যাম্বাসেডর অ্যাট লার্জ মো. জিয়াউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পর্যটনে বাংলাদেশ-নেপাল-মালদ্বীপের মধ্যে সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর

এদিকে পারস্পরিক স্বার্থে পর্যটন শিল্পের বিকাশের লক্ষ্যে বাংলাদেশ, নেপাল এবং মালদ্বীপের মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, 'বাংলাদেশ, নেপাল ও মালদ্বীপ পারস্পরিক স্বার্থে পর্যটনে সহযোগিতা গড়ে তুলতে পারে।'

সোমবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেন বাংলাদেশে মালদ্বীপের বিদায়ী হাইকমিশনার শিরুজিমাথ সমীর। এ সময় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, 'বৈঠকে পর্যটন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মালদ্বীপের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে দেশটির নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুইজ্জুকেও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।'

সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত বলেন, 'পর্যটন শিল্পে বাংলাদেশের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে, বিশেষ করে বিশ্বের দীর্ঘতম বালুকাময় সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে।'

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'অনেক বাংলাদেশি কর্মী মালদ্বীপে কাজ করছেন। তারা উভয় দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছে।'

মালদ্বীপের রাষ্ট্রদূত ঢাকায় তার দায়িত্ব পালনে তার সরকারের সর্বাত্মক সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, তার মেয়াদে মালদ্বীপ ও বাংলাদেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন অ্যাম্বাসেডার অ্যাট লার্জ এম জিয়াউদ্দিন ও মুখ্য সচিব এম তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া।

'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ভাষণ' গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ভাষণ' গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেছেন।

সোমবার দুপুরে গণভবনে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পলস্নী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও সাবেক সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন সম্পাদিত 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ভাষণ' গ্রন্থটিতে জাতির পিতার মোট ৫৮টি ভাষণ রয়েছে।

প্রতিটি ভাষণের পূর্ণাঙ্গ অডিও ভার্সন কিউআর কোড সন্নিবেশিত রয়েছে। কিউআর কোডগুলো স্ক্যান করলে প্রতিটি ভাষণের পুরোপুরি শোনা যাবে।

গ্রন্থটির ভূমিকা লিখেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। প্রকাশক মাওলা ব্রাদার্স। গণভবনে বইয়ের মোড়ক উন্মোচনে সম্পাদক মো. আকরাম-আল-হোসেন এবং মাওলা ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী আহমেদ মাহমুদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে