১০ সন্তানের পিতা এলাছ মিয়া জীর্ণ ঘরে খাবার জুটে না!

১০ সন্তানের পিতা এলাছ মিয়া জীর্ণ ঘরে খাবার জুটে না!

বানিয়াচং উপজেলার ১০ সন্তানের জনক মানসিক রোগী এলাছ মিয়া জরাজীর্ণ বসত ঘরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ৪ নং দক্ষিণ পশ্চিম ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের যাত্রা পাশা( দীঘির পাড়) গ্রামের বসতি।

যাত্রাপাশা গ্রামের মৃত সফর উল্লাহ ছেলে এলাছ মিয়া (৫৫) দীর্ঘ ২ বছর ধরে অসুস্থ হয়ে চিকিৎসার অভাবে বাড়িতেই মানবেতর সময় পার করছেন। তাহা ৯ কন্যা সন্তান এবং ১ পুত্র সন্তানকে নিজে খেয়ে না খেয়ে অনেক কষ্টে কৃষি কাজ করে লালন পালন করেন।

শত অভাব অনটনের মাঝে কন্যা সন্তানরা বড় হয়ে অনেকেই গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীতে কাজ করে এলাছ মিয়ার পরিবারের হাল ধরলেও পর্যায়ক্রমে কন্যা সন্তানদের বিভিন্ন জায়গায় বিয়ে হয়ে যায়। মেয়েদের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় চাকরি ও নিজ পরিবারের জন্য ব্যস্থতা থাকায় এখন আর মেয়েদের পক্ষে বাবার খোঁজ নেওয়ার তেমন একটা সুযোগ নেই বললেই চলে।

এদিকে তার ছেলেটাও বিয়ে করে বউ নিয়ে পৃথক হয়ে মা বাবার দ্বায়িত্ব বা খোঁজখবর নিতে চায় না।

এলাছ মিয়ার স্ত্রী রিজিয়া খাতুন( ৪৫)এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ৯ মেয়ে এবং ১ ছেলেকে নিয়ে সংসারের চালাতে অনেক কষ্ট হলেও অনেক টা মনের দিকে সুখেই ছিলাম, মেয়েরা গার্মেন্টস চাকরি করে অনেক সহযোগিতা করেছে।

৮ মেয়ের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় এবং স্বামী হঠাৎ করে মানসিকভাবে অসুস্থ ও বয়স বেড়ে যাওয়ায় পরিবারের হাল ধরার মতো আমি ছাড়া এখন আর কেউ নেই।

অসুস্থ স্বামীর চিকিৎসার খরচসহ পরিবারের খরচ জোগানো আমার পক্ষে সম্ভব হয় না। ছোট মেয়ে এবং অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে প্রচন্ড শীতের মাঝে আমাদের এই জরাজীর্ণ ঘরেই জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

ছোট মেয়ে ফাইজা আক্তার(১০) ১৬নং যাত্রাপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীতে লেখাপড়া করে, এই অভাব অনঠনে তার লেখাপড়াও বন্ধের উপক্রম ।

কুয়াশার পানিতে প্রতিদিন বিছানা পত্র সহ ঘরের আসবাবপত্র নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, অল্প একটু বৃষ্টি হলে তো আর দুর্ভোগের সীমাই থাকেনা। অনেক সময় তাদের তিনজনকে না খেয়েও থাকতে হয়।

এলাকাবাসী এবং জন প্রতিনিধিসহ সমাজের বিত্তবানদের কাছে মেয়েদের বিয়ের ব্যাপারে হাত পাতলে কারো কোন সারা পাইনি,এমনকি স্বামীর চিকিৎসার জন্য সহায়তার জন্য অনেক কাকুতি মিনতি করেও কোন লাভ হয়নি বরং আরো নানা রকম কথা শুনতে হয়েছে বলে তিনি জানান।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে