​লালপুরে খাসজমিতে পুকুর খননের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

​লালপুরে খাসজমিতে পুকুর খননের প্রতিবাদে  মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহমেদ লিংকন ও তার পরিবার কর্তৃক প্রভাব খাটিয়ে নিজ এলাকা নাটোরের লালপুর উপজেলার আড়বাব ইউনিয়নের বিলশলিয়া এলাকায় সরকারি খাসজমি দখল করে ও বিলের পানি প্রবাহের ব্রিজ সংলগ্ন স্থানে পুকুর খননের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছ স্থানীয় কৃষকরা। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বিলশলিয়া-সালামপুর সড়কের ওই পুকুর সংলগ্ন বটতলায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে কৃষকরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

মানববন্ধনে স্থানীয় ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, পুকুর খননে সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফ আহমদ লিংকন ও তার পরিবারের সদস্যরা (পিতা নাঈম উদ্দিন ও ভাই) নিজ গ্রামের ওই স্থানে প্রশাসনিক ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে খাসজমি দখল ও ব্রিজের পনি প্রবাহকে বাধাগ্রস্ত করে ওই ইউএও নিজে উপস্থিত থেকে পুকুর খনন করেছেন। অবৈধভাবে খননকৃত পুকুর অবিলম্বে ভরাট করা না হলে হাজার হাজার বিঘা জমির ফসল জলাবদ্ধতায় নষ্ট হয়ে যাবে। কৃষকদের স্বার্থে অবিলম্বে খননকৃত পুকুর ভরাট করার দাবি জানান তিনি।

সাবেক ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন বলেন, তার সময়ে এই রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। রাস্তাটি আনোয়ার মৃধার জমি দিয়ে করা হয়েছে। আর রাস্তার খাসজমি ওই ইউএনও ও তার পিতা, ভাই একসঙ্গে হয়ে জবরদখল করে তাদের পুকুরের সঙ্গে সংযুক্ত করে ফেলেছে, যা অবিলম্বে ভরাট করার দাবি জানান।

আনোয়ার মৃধা তার বক্তব্যে বলেন, যেহেতু রাস্তাটি তার জমি দিয়ে গেছে। তাই সংগতকারণে খাস জায়গাটি আমার হওয়ার কথা কিন্তু তা না হয়ে ক্ষমতার জোরে তারা খাসজমি দখল করে পুকুর কেটেছে। এই পুকুর কাটার কারণে মাঠের হাজার হাজার বিঘা ফসলি জমি জলাবদ্ধতায় অনাবাদি হয়ে যাবে।

ক্ষতিগ্রস্ত মুনছার, মোত্তালেবসহ একাধিক কৃষক মানববন্ধনে জানান, পুকুর কাটার সময় তারা প্রতিবাদ করলে গাছে বেঁধে মারধরসহ প্রশাসনিক ক্ষমতার ভয়ভীতি দেখানো হয়। এছাড়া শরিফ আহমমে লিংকনের পিতা নাঈম উদ্দিন কৃষকদের শুধু মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোর ভয় দেখিয়েই ক্ষান্ত হননি, স্থানীয় দুই কৃষককে প্রাণনাশের হুমকি পর্যন্ত দিয়েছেন বলে জানান তারা। এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়েরের কথা জানিয়েছেন তারা।

কৃষকরা আরও জানান, এ বিষয়ে উপজেলা ভূমি অফিসে মৌখিকভাবে অভিযোগ দিলে বিষয়টি খতিয়ে দেখার প্রতিশ্রুতি দিলেও বাস্তবে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরীফ আহমেদ লিংকন বলেন, কাউকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয়নি, আমার পিতৃসূত্রে প্রাপ্ত জমিতে আমি যেতেই পারি। সরকারি জমি দখল ও পুকুর খননে অনুমতি আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত নিবে।

এ বিষয়ে লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাম্মী আক্তার বলেন, বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলা হয়েছে, আদালত যে নির্দেশনা দিবে সে নির্দেশনা মোতাবেক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে