ঢাবি ছাত্র সৌরভের দায়িত্ব নিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসন

ঢাবি ছাত্র সৌরভের দায়িত্ব নিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাওয়া শিক্ষার্থী সৌরভ দাসের পড়াশোনার খরচ যোগাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসন। স্নাতকোত্তর সম্পন্ন পর্যন্ত বছরে কিস্তিতে ৫০হাজার টাকা করে তাকে দেওয়া হবে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোঃ শাহগীর আলম নিজ কার্যালয়ে সৌরভকে ডেকে নিয়ে পড়াশোনার খরচ বাবদ প্রাথমিকভাবে নগদ ২৫ হাজার টাকা তুলে দেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ জানুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকের অনলাইন সংস্করণে সৌরভ দাসকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দৃষ্টিগোচর হলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সৌরভের বিষয়টি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোঃ শাহগীর আলম সৌরভকে নিজ কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে তার পড়াশোনার খরচ চালানোর সমস্ত দায়িত্ব নেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক প্রথম বর্ষ থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত সৌরভকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতি ছয় মাস পর পর ২৫ হাজার টাকা করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর জন্য সৌরভকে প্রতি ছয় মাস পর পর স্বশরীরে বা ইমেইলের মাধ্যমে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (সার্বিক) কাছে একটি দরখাস্ত লিখতে হবে। পরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সৌরভের ব্যাংক হিসাবে ২৫ হাজার টাকা পাঠিয়ে দিবেন। জেলা প্রশাসন সৌরভকে একটি ভালো ফলাফল অব্যাহত রাখার শর্ত দিয়েছেন।

সৌরভ দাস ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের কানিউচ্ছ গ্রামের বিষ্ণু দাস ও চম্পা রানী দাসের ছেলে। গত বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগে ভর্তির সুযোগ পান সৌরভ। তাঁর বাবা বিষ্ণু দাস চট্টগ্রামে ফেরি করে স্টিলের হাড়িপাতিলসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করেন।

পরিবারিক অভাব-অনটনের কারনে সৌরভ জেলার নবীনগর উপজেলার সুহাতা গ্রামের নানী বাড়িতে থেকে পড়াশুনা করতো। সেখানে থেকেই এসএসসি পাস করেন সৌরভ। পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসক শাহগীর আলম সৌরভকে তার কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে যান ও তার পড়াশোনা ও পারিবারের খোঁজ নেন। তিনি সৌরভকে পড়াশোনার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেন। সে সময় তিনি জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত পড়াশোনার খরচ হিসেবে সৌরভের হাতে ২৫ হাজার টাকা তুলে দেন।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ রুহুল আমিন, সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আরিফুল হক, সহকারী শিক্ষক স্বপন মিয়া, সাংবাদিক মাসুকুর রহমান, আবুল হাসনাত, মাইনুদ্দিন রুবেল ও মাজহারুল করিম অভি উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক শাহগীর আলম বলেন, আমরা সৌরভের পড়াশোনার সকল দায় দায়িত্ব গ্রহন করেছি। স্নাতক থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত সৌরভকে পড়াশোনার খরচ হিসেবে প্রতি ছয় মাস পর পর ২৫ হাজার টাকা করে দিবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসন। আশা করি এতে তার খাতা-বই কেনাসহ পড়ার খরচ হয়ে যাবে।

যাযাদি/এসআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে