বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

শ্রীপুরে পদ হারালেন আ. লীগ সভাপতি!

শ্রীপুর(গাজীপুর)প্রতিনিধি
  ০৭ মে ২০২৩, ২০:৪৪
আপডেট  : ০৭ মে ২০২৩, ২১:০৩
শ্রীপুরে পদ হারালেন আ. লীগ সভাপতি!

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রাজাবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ কামাল উদ্দিন ফরাজিকে তাঁর পথ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল । রোববার (৭ মে) সকালে এক বিশেষ বর্ধিত সভায় তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। উপজেলা আ"লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির হিমু পদত্যাগ পত্র গ্রহণ ও পদটি শূন্য ঘোষণার বিষয়টি দৈনিক যায়যায়দিনকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রোববার বিশেষ বর্ধিত সভা ডেকে পদত্যাগের আবেদন গ্রহণ করে উপজেলা আওয়ামীলীগ। শারীরিক অসুস্থতার জন্য দায়িত্ব পালনে অপারগতার কথা পদত্যাগ পত্রে উল্লেখ করেছেন ওই নেতা।

ইউনিয়ন আ"লীগের গুরুত্বপূর্ণ একটি সুত্র জানায়, জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশে জরুরি ভিত্তিতে রোববার সকাল ১০ টার দিকে রাজাবাড়ি ইউনিয়ন আ'লীগ কার্যালয়ে এক বিশেষ বর্ধিত সভা ডাকা হয়। সভায় জেলা আ'লীগের সহ-সভাপতি সাফি উদ্দিন মোড়ল, জেলা আ' লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আক্তারুজ্জামান পলান, উপজেলা আ"লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির হিমু, সাধারণ সম্পাদক হারুন উর রশিদ ফরিদ,উপজেলা পরিষদ ভাইসচেয়ারম্যান মাহতাবউদ্দিন সহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি মারার বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা করা হয়। তবে, সভায় অভিযুক্ত ইউনিয়ন আ"লীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন ফরাজি উপস্থিত ছিলেন না। সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত চলে সভার কার্যক্রম। সভায় এ ঘটনার বিস্তারিত জানতে এবং ভুক্তভোগী পরিবারের খোঁজ খবর নিতে জেলা আ' লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আক্তারুজ্জামান পলানকে প্রধান করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রাজাবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন বলেন, " বিশেষ বর্ধিত সভায় ওই নারীর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে, তিনি লাথি দিয়েছেন এমন প্রমাণ কেউ দিতে পারেনি। সেখানে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলায় বিএনপি ও আ"লীগের অনেক লোকই উপস্থিত ছিল। ওই নারী হঠাৎ সভাপতির জামার কলার টেনে ধরায় তিনি ধাক্কা দিয়েছেন। লাথি দেননি। সিনিয়র নেতৃবৃন্দ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেছেন"।

এর আগে গত ২ মে তারিখে রাজাবাড়ি ইউনিয়নের নালিয়াটেকি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিবেশী এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি দেওয়ার অভিযোগ ওঠে কামাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে। ওই নারী নালিয়াটেকি গ্রামের মোঃ আল আমিনের স্ত্রী নাসরিন আক্তার। লাথি দেয়ার পর নাসরিন আক্তার অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে পরবর্তীতে সুস্থ হন। এই ঘটনায় ২ মে তারিখে শ্রীপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়।

পদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ কামাল উদ্দিন ফরাজির মুঠোফোনে কল দিলে তিনি তা রিসিভ করেননি। পরে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তাই তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

পদত্যাগের বিষয়টির সঙ্গে অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি দেয়ার ঘটনার সম্পর্ক আছে কিনা এমন প্রশ্নে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুন উর রশিদ বলেন, ' ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও অন্যান্য বেশ কয়েকজনের কাছে শুনেছি। তবে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। কামাল উদ্দিন ফরাজি শারীরিক অসুস্থতার জন্য অব্যাহতি চেয়েছেন। আমরা তাৎক্ষণিক আবেদন গ্রহণ করে তাকে অব্যাহতি দিয়েছি '।

যাযাদি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে