বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

কবিরহাটে নৈশপ্রহরীকে হত্যা করে ২ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি

কবিরহাট (নোয়াখালী) প্রতিনিধি
  ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৩:৪৬

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় নৈশপ্রহরীকে হত্যা করে দুই স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি করে প্রায় তিন কোটি টাকার স্বর্ণ ও নগদ টাকা লুট করার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ৩টা থেকে শুক্রবার ভোর সাড়ে ৪টা পর্যন্ত উপজেলার চাপরাশিরহাট ইউনিয়নের চাপরাশিরহাট পশ্চিম বাজারে মা-মনি জুয়েলার্স ও নূর জুয়েলার্সে এ ডাকাতি ও হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহত নৈশপ্রহরী মো. শহীদ উল্যা কবিরহাট উপজেলার ধানশালিক ইউনিয়নের উপদ্দি লামছি গ্রামের শামসুল হকের ছেলে।

ডাকাতি হওয়া মা-মনি জুয়েলার্সের মালিক মিন্টু চন্দ্র নাথ বলেন, ডাকাত দল গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করে আমার স্বর্ণের দোকানের লকার কেটে ২৫০ ভরি স্বর্ণ, ১৫০ ভরি রূপা ও নগদ আড়াই লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। যার আনুমানিক দাম প্রায় আড়াই কোটি টাকা।

মেসার্স নূর জুয়েলার্সের মালিক নুর আলম বলেন, পরিকল্পিতভাবে এই বাজারে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। আমার নূর জুয়েলার্স থেকে স্বর্ণ ও রূপা লুট করে নিয়ে যায়। এ ছাড়া আমার দোকানে প্রচুর ভাঙচুর করা হয়েছে।

ডাকাতির খবর শুনে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল কাদের মির্জা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং তাৎক্ষনিকভাবে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের পক্ষ থেকে ভুক্তভোগি দুই ব্যবসায়ীকে নগদ ৩লক্ষ টাকা এবং নিহত নৈশপ্রহরীকে নগদ ৫০হাজার টাকা প্রদান করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা নুর ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাতে চাপরাশিরহাট বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যায়। রাতে বাজার পাহারা দেন পাঁচজন নৈশপ্রহরী। রাত সাড়ে ৩টার দিকে ২০ থেকে ২৫ জনের একদল ডাকাত একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ে চাপরাশিরহাট পশ্চিম বাজার আসে। পরে তারা তিনজন নৈশপ্রহরীকে বেঁধে মুখে টেপ লাগিয়ে দেয়। এ সময় ধস্তাধস্তি করতে গেলে শহীদ উল্যাহকে প্রথমে মাথায় আঘাত ও পরে শ্বাসরোধে করে হত্যা করে ডাকাত দলের সদস্যরা। এরপর বেঁধে রাখা বাকি দুজনকে পিটিয়ে আহত করা হয়। বিষয়টি টের পেয়ে বাজারে থাকা দুইজন সিএনজি চালক বের হয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে বেঁধে রাখা হয়। পরে বাজারের মা-মনি জুয়েলার্স ও নূর জুয়েলার্সের লকার ভাঙচুর করে কয়েক শ ভরি স্বর্ণ এবং নগদ অর্থ লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতির সময় দোকানগুলোতে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।

চাপরাশিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন টিটু বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ডাকাত দল রাত সাড়ে তিনটা থেকে প্রায় সাড়ে ৪টা পর্যন্ত দুটি স্বর্ণের দোকানে লুটপাট চালায়। ডাকাতি শেষে তারা গাড়ি নিয়ে ফেনীর সোনাগাজীর দিকে চলে যায় বলে লোকজন জানিয়েছে। বিষয়টি পুলিশকে জানালে তারা এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাসহ আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘটনাস্থল থেকে অনেকগুলো আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। দোষীদের খুঁজে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে