শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

পুকুরে সাঁতার কাটতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই মাদ্রাসা ছাত্রের

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
  ১৪ জুন ২০২৪, ১৫:৪৯
আপডেট  : ১৪ জুন ২০২৪, ১৭:৪৯
ছবি-যায়যায়দিন

ঈদের ছুটিতে মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় বাড়ির পাশেই একটি পুকুরে সাঁতার কাটতে যায় কয়েকজন শিশু। একপর্যায়ে তাঁদের মধ্য থেকে জাহিদ ও নাসির নামের দুজন পানিতে তলিয়ে যায়। ডুব দেওয়ার পর তাঁদের উঠে আসতে দেরি হলে আশপাশের লোকজনকে বিষয়টি জানায় অন্য শিশুরা।

এসময় স্থানীয়রা পুকুরে প্রায় আধা ঘণ্টা খুঁজাখুঁজি করে দুইজনের নিথর দেহ উদ্ধার করে। হৃদয়বিদারক এমন ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব গ্রামে ।

শুক্রবার (১৪ জুন) বেলা সাড়ে দশটার দিকে সোনাব গ্রামের নাসিরের পুকুরের পানিতে ডুবে ওই দুই শিশুর মৃত্যু হয়।

নিহত মো. জাহিদ (১০) উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব গ্রামের কালু মিয়ার ছেলে এবং অপরজন মো. নাসির (১০) মোড়লপাড়া গ্রামের মো. কাইয়ুমের ছেলে। তারা দুজন কাওরাইদের একটি কওমি মাদ্রাসায় একই শ্রেণীতে পড়াশোনা করতো। সাঁতার কাটতে গিয়ে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হওয়ার আধা ঘন্টা পর তাদের নিথর দেহ উদ্ধার হয়।

শিশুদের স্বজন ও পুলিশ জানায়, ঈদ উপলক্ষে তাদের মাদ্রাসা বন্ধ ছিল। তাই অবসর সময়ে নাসিরদের পুকুরে সাঁতার কাটতে গিয়েছিল তারা। সঙ্গে আরো কয়েক বন্ধু ছিল। সাঁতার কাটার একপর্যায়ে নাসির ও জাহিদ পানিতে তলিয়ে যায়। সঙ্গে থাকা অন্য শিশুরা চিৎকার করে আশপাশের লোকজনদের ডেকে আনে। তারা পুকুরে নেমে প্রায় আধাঘন্টা অনুসন্ধান করে শিশু দুটির নিথর দেহ উদ্ধার করেন। পরে তাঁদেরকে দ্রুত শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে, সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁদের মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: শারমিন আক্তার বলেন, 'মৃত অবস্থায় ওই দুই শিশুকে হাসপাতালে আনা হয়। আমরা পুলিশকে অবগত করেছি।'

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান যায়যায়দিনকে বলেন, এ ঘটনায় পুলিশ পাঠানো হয়। নিহতের স্বজনদের কেনো অভিযোগ না থাকায় এবং আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশ বিনা ময়নাতদন্তে দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে