logo
সোমবার ১৪ অক্টোবর, ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

বাড়ি থেকে হাজার কিলোমিটার দূরে কাশ্মীরি বন্দিরা

জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর সেখানে প্রায় তিনশ' মানুষ জননিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেপ্তার হন; যাদের বেশির ভাগকেই হাজার কিলোমিটার দূরে ভারতের উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সংবাদসূত্র : এনডিটিভি

গ্রেপ্তারকৃতদের তালিকায় উজির মকবুল মালিকের মতো ১৯ বছরের নির্মাণ শ্রমিক যেমন আছেন, তেমনি রয়েছেন নাজির আহমেদ রণগার মতো কাশ্মীরের সুপরিচিত আইনজীবীও। জননিরাপত্তা আইনের (পিএসএ) অধীনে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিনা বিচারে সর্বোচ্চ দুই বছর পর্যন্ত আটকে রাখা যায়।

ভারত সরকার গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে রাজ্যটি কেন্দ্রশাসিত দুটি আলাদা অঞ্চলে ভাগ করার ঘোষণা দেয়। ঘোষণার আগে ও পরে বিশৃঙ্খলা ও উসকানি প্রতিরোধের নামে কাশ্মীরের বেশিরভাগ নেতাকে গৃহবন্দি করা হয়। এ ছাড়া নানা অভিযোগে আরও প্রায় চার হাজার মানুষকে আটক করে পুলিশ। যদিও তাদের ধীরে ধীরে মুক্তি দেয়া শুরু হয়েছে।

কিন্তু পিএসএর অধীনে কাশ্মীর বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক প্রধান নাজির আহমেদের মতো আরও অনেক আইনজীবী, শিক্ষক এবং রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ে কী করা হবে, তা এখনো অনিশ্চিত। বাড়ি থেকে হাজার কিলোমিটার দূরের কারাগারে আটকে রাখার কারণে বন্দিদের পরিবারের সদস্যরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে বা তারা কী অবস্থায় আছেন, সে সম্পর্কে কোনো তথ্যই পাচ্ছেন না।

ভারতীয় কর্মকর্তাদের দাবি, আগস্ট থেকে নয় বরং গত বছর থেকেই কাশ্মীরি বন্দিদের অন্যান্য রাজ্যের কারাগারে সরিয়ে নেয়ার নীতি গ্রহণ করা হয়েছিল। জঙ্গিদের নেটওয়ার্ক ছিন্ন করতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়। তবে আগস্ট থেকে বন্দি সরিয়ে নেয়ার গতি দ্রম্নত হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন তারা। বন্দিদের পরিবারের অভিযোগ, তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ ছাড়াই আটককৃতদের অন্য রাজ্যে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। অন্ধকারে হাতড়ে বন্দিদের মধ্যে থাকা স্বজনদের সন্ধান পেলেও তাদের সঙ্গে সামান্য যোগাযোগই করতে দেওয়া হয়।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে