logo
রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

সৌদি আরব থেকে ফিরলেন আরও ৯৬ জন

যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ জরুরি

বাংলাদেশ একটি জনসংখ্যাবহুল দেশ। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশেই বাংলাদেশিরা কাজ করছে এবং সুনামের সঙ্গে। তথাপিও বলার অপেক্ষা রাখে না যে, নানা ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে বিভিন্ন সময়ে। সম্প্রতি পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত খবরে জানা গেল, সৌদি আরব থেকে আরও ৯৬ জন বাংলাদেশি পুরুষকর্মী দেশে ফিরেছেন। বুধবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে তারা দেশে ফেরেন। প্রসঙ্গত বলা দরকার, এ নিয়ে এই মাসে পাঁচ দিনে মোট ৪২১ জন ফিরলেন। তথ্য মতে, ১ নভেম্বর ১০৪ জন, ২ নভেম্বর ৭৫ জন, ৩ নভেম্বর ৮৫ জন, ৪ নভেম্বর ৬১ জন ও ৬ নভেম্বর ৯৬ জন কর্মী বাংলাদেশি সৌদি আরব থেকে ফিরেছেন। আর বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের দশ মাসে সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন ২০ হাজার ৬৯২ বাংলাদেশি। আর এবারেও বরাবরের মতো বুধবার রাতে ফেরত আসাদের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম থেকে খাবার-পানিসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য জরুরি সহায়তা প্রদান করা হয়।

দেশের কর্মীদের ফিরে আসার পরিপ্রেক্ষিতে এটাও উলেস্নখ করা দরকার, কেউ হয়তো কয়েক মাস আগে গেছেন তাকে ফিরতে হয়েছে, আবার তিন বছর ধরে সৌদি আরবে ছিলেন। সাড়ে ১৮ হাজার রিয়াল দিয়ে আকামা নবায়ন করেছিলেন; কিন্তু তাকেও ধরপাকড়ে পড়ে শূন্য হাতে ফেরত আসতে হয়েছে। এ ছাড়া ১৫ বছর ধরে সৌদি আরবে থাকা এবং বৈধ আকামা থাকা সত্ত্বেও সৌদি পুলিশ বাংলাদেশিদের রাস্তা থেকে ধরলে আকামা দেখানোর পরেও ছাড়া হয়নি এমন ঘটনাও ঘটেছে। জানা গেছে- চলতি বছর এখন পর্যন্ত প্রায় ২১ হাজার বাংলাদেশি নাগরিককে সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এমন বিষয়ও সামনে আসছে, গত দুই মাস ধরে ধরপাকড়ের তীব্রতা বেড়েছে। অনেকেই মনে করেন আকামা থাকলেই বৈধ। কিন্তু কেউ যদি বৈধ আকামা থাকার পরও যেখানে কাজ করার কথা, সেখানে না করে অন্য জায়গায় কাজ করেন, সৌদি আইন অনুযায়ী সেটাও অপরাধ। ফলে এই বিষয়গুলো কর্মীদের যেমন বোঝাতে হবে। তেমনিভাবে রিক্রুটিং এজেন্সিকেও এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে, যাতে কোনো কর্মী যেখানে যান, সেখানে গিয়ে সেই কাজ পান। ফ্রি ভিসার নামে প্রতারণা বন্ধ করা উচিত- এমনও বলেছেন ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান। আমরা বলতে চাই, এভাবে যখন প্রবাসে গিয়ে ফিরে আসার ঘটনা ঘটছে তখন তা দুঃখজনক। সঙ্গত কারণেই সৃষ্ট পরিস্থিতি আমলে নিয়ে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে সংশ্লিষ্টদের। এ ক্ষেত্রে বিদেশ গমনেচ্ছুদের আইন সম্পর্কিত বিষয়াদি সম্পর্কে যেমন সচেতন করার উদ্যোগ নিতে হবে, তেমনিভাবে যে কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটলেও প্রবাসীদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

সর্বোপরি আমরা বলতে চাই, যে কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রোধে করণীয় নির্ধারণ ও তার বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। এ ছাড়া প্রবাসে বিভিন্ন ধরনের ঘটনা ঘটে যেগুলো আমলে নিয়ে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। এক শ্রেণির দালালদের খপ্পরে পড়ে যেমন অনেকেই নিঃস্ব হয়ে পড়েন, আবার অনেকেই অবৈধপথে বিদেশে যাওয়ার সময় নানা পরিস্থিতির মুখোমুখি হন, নিহত হওয়ার ঘটনাও ঘটে। ফলে সামগ্রিক পরিস্থিতি আমলে নিয়ে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা জারি রাখা বাঞ্ছনীয়। সৌদি আরব থেকে আরও ৯৬ জন বাংলাদেশি পুরুষকর্মী দেশে ফিরেছেন- এই বিষয়টিকে আমলে নেওয়া এবং কর্মীদের প্রবাসে সচেতনতা বৃদ্ধিসহ কার্যকর পদক্ষেপ নিশ্চিত হোক এমনটি কাম্য।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে