logo
বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ৩০ জুন ২০২০, ০০:০০  

লা লিগা

রিয়ালকে শীর্ষে তুললেন কাসেমিরো

রিয়ালকে শীর্ষে তুললেন কাসেমিরো
এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরেই জয়ের নায়ক হয়ে গেলেন কাসেমিরো। প্রতিপক্ষের মাঠে রোববার রাতে লা লিগার ম্যাচে এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্সিভ-মিডফিল্ডারের একমাত্র গোলে জিতেছে রিয়াল। গোল করার পর তাকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন করিম বেনজেমা -ওয়েবসাইট
সেলতা ভিগোর কাছে পয়েন্ট খোয়ানোর পরই কাজটা সহজ হয়ে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের। একক ভাবে শীর্ষে ওঠার দারুণ সুযোগ ছিল তাদের। আর সে সুযোগ কাজে লাগাতে কোনো ভুল করেনি দলটি। যদিও জয় পেতে সংগ্রাম করতে হয়েছে তাদের। নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরা কাসেমিরোর একমাত্র গোলে জয় পায় দলটি। এস্পানিওলকে ১-০ গোলে হারিয়ে লা লিগায় ফের শীর্ষে উঠেছে জিনেদিন জিদানের দল রিয়াল মাদ্রিদ।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে তিন মাসেরও বেশি বিরতির পর ফের শুরু হওয়ার পর এখন পর্যন্ত পাঁচটি ম্যাচেই জয় তুলে নিল রিয়াল। এ জয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার সঙ্গে ২ পয়েন্টের ব্যবধান গড়েছে তারা। ৩২ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৭১। দ্বিতীয় স্থানে থাকা মেসিদের বার্সেলোনার সংগ্রহ ৬৯ পয়েন্ট।

রোববার রাতে এস্পানিওলের ঘরের মাঠে খেলতে নামে মাদ্রিদের জায়ান্টরা। বল দখলের লড়াইয়ে এদিন এগিয়ে ছিল রিয়ালই। ম্যাচজুড়ে শুধু চেষ্টাই করে গেল রিয়াল মাদ্রিদ, কিন্তু পারল না খেলায় গতি আনতে। স্পষ্ট হয়ে উঠল ক্লান্তির ছাপ। তবে প্রত্যাশিত জয় ঠিকই তুলে নিয়েছে তারা। এস্পানিওলকে হারিয়ে শিরোপা লড়াইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে পেছনে ফেলেছে জিনেদিন জিদানের দল।

এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরেই জয়ের নায়ক হয়ে গেলেন কাসেমিরো। প্রতিপক্ষের মাঠে লা লিগার ম্যাচে এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্সিভ-মিডফিল্ডারের একমাত্র গোলে জিতেছে রিয়াল।

প্রতি তিন দিনে একটি করে ম্যাচ-ঠাসা সূচির চাপ যেন পড়তে শুরু করেছে। সেটাই হয়তো ফুটে উঠল এদেন আজার-ভিনিসিউস জুনিয়রদের শরীরী ভাষায়। বল দখলে একচেটিয়া আধিপত্য করলেও রিয়ালের খেলায় ছিল না চেনা ধার।

পয়েন্ট তালিকার তলানির দল এস্পানিওল বরং ভালো খেলেছে। লিগ টেবিলে দুই দলের মাঝে বিস্তর ফারাক থাকলেও তাই মাঠের খেলায় ছিল না এর প্রতিচ্ছবি।

শুরুতে নিজেদের গুছিয়ে নিতে একটু সময় নেওয়া রিয়াল ম্যাচের দশম মিনিটে প্রথম উলেস্নখযোগ্য সুযোগটি পায়। খুব কাছ থেকে হেডে ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল পাঠান সের্হিও রামোস। ২০তম মিনিটে ডান দিক থেকে মার্ক রোকার বাঁকানো ফ্রি-কিক পাঞ্চ করে ফেরান রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া।

বিরতির আগে দুই-তৃতীয়াংশের বেশি সময় বল দখলে রেখে রিয়াল আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করে গেলেও তাদের খেলায় ছিল না চেনা ধার। বরং পালটা আক্রমণে স্বাগতিকরা দুবার ভীতি ছড়ায় রিয়াল শিবিরে, যদিও লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে কোর্তোয়াকে পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি তারা। ৪৪তম মিনিটে ১৫ সেকেন্ডের ব্যবধানে তাদের দুটি প্রচেষ্টা রুখে দেন স্বাগতিক গোলকিপার দিয়েগো লোপেস। এর মধ্যে সবচেয়ে সহজ সুযোগটি নষ্ট করেন আজার; ফাঁকায় বল পেয়ে তার নেওয়া শট কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান লোপেস। পরের মিনিটেই এগিয়ে যায় রিয়াল। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের বাড়ানো ক্রস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ব্যাকহিলে পেছনে বল বাড়ান করিম বেনজেমা। আর ছোট ডি-বক্সের মুখ থেকে অনায়াসে ঠিকানা খুঁজে নেন কাসেমিরো।

দ্বিতীয়ার্ধেও সেই একই চিত্র; অধিকাংশ সময় বল দখলে নিয়ে প্রতিপক্ষের ওপর চাপ ধরে রাখে, কিন্তু জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারছিল না তারা। উল্টো ৬৫তম মিনিটে জোরালো নিচু ফ্রি-কিকে গোল পেতে পারত এস্পানিওল, ঝাঁপিয়ে ঠেকান কোর্তোয়া।

শেষ ১০ মিনিটে কেউই তেমন কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। উভয় পক্ষেই ছিল ভুল পাসের ছড়াছড়ি। তবে শেষে গিয়ে জয় হাতছাড়া হতে বসেছিল সফরকারীদের; আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে হেড করেছিলেন মার্সেলো। বল পোস্টের বাইরে দিয়ে গেলে হাঁফ ছেড়ে বাঁচে রিয়াল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে