বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

মেহেরপুরে প্রনোদনার পেঁয়াজ চাষে স্বপ্ন পুরণ চাষীদের

মেহেরপুর প্রতিনিধি
  ২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১৪:২৯

মেহেরপুরে প্রনোদনার পেঁয়াজ চাষ করে স্বপ্ন পুরন হয়েছে চাষীদের। ভাল ফলন ও বর্তমান বাজার দর চাষীর স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করেছে।

ইতোমধ্যে চাষীরা পেঁয়াজ তোলা শুরু করেছে। বাজারে ভাল দাম থাকায় আর্থীকভাবে লাভবান হচ্ছে চাষী। এই মৌসুমে ৪ হাজার মেঃটন পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা কৃষি বিভাগের।

কৃষি অফিস জানায়, পেঁয়াজের ঘাটতি কমাতে মেহেরপুরে সরকারি প্রণোদনার মাধ্যমে ১ হাজার ৭০০ বিঘা জমিতে গ্রীস্মকালীন নাসিক জাতের পেঁয়াজ চাষ করেছিল ১ হাজার ৭০০ জন চাষী। এখন সেই পেঁয়াজ তুলতে শুরু করেছে চাষী। পেঁয়াজের ভাল ফলন পেয়ে খুশির ঝলক চাষীর চোখেমুখে। চাষীরা জানায়, এই পেয়াজটা আরো কিছুদিন রাখলে বিঘাপ্রতি ১০০-১২০ মন পর্যন্ত ফলন পাওয়া যেতো কিন্তু বাজার দাম এখন ভাল তাই বিঘাপ্রতি ৬০-৭০ মন ফলন পেয়েই পুশিয়ে যাচ্ছে তাদের। বর্তমানে চাষীরা বাজারে ৭০-৭৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। বিঘাপ্রতি ৫০ হাজার টাকা খরচ করে দেড় লাখ টাকার উপরে ঘরে তুলছে । এই সময় পেঁয়াজের এমন ফলন ও বাজার দাম দেখে এলাকার চাষীদের মধ্যে সাড়া পড়ে গেছে পরবর্তিতে আবাদ করার।

আগামীতে যাতে গ্রীস্মকালীন পেঁয়াজ চাষ বৃদ্ধি পায় তার জন্য মাঠ দিবস ও কৃষক সমাবেশ সহ বিভিন্নভাবে উদ্বুদ্ধ করছে কৃষি বিভাগ। কৃষকরা বলছেন এই পেঁয়াজের বীজ দেশে পর্যাপ্ত না। ফলে বেশী মূল্য দিয়ে বাইরের দেশ থেকে অধিক মূল্যে বীজ কিনতে হয়। চাষীদের দাবী আগামীতে যেনো সরকারীভাবে চাষীদের পর্যাপ্ত বীজ দেওয়া হয়। তাহলে চাষীরা আরো বেশী পেঁয়াজ আবাদ করবে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিজয় কৃষ্ণ হালদার যায়যায়দিনকে জানান, মেহেরপুরে এই সময় এই পেঁয়াজ চাষটা খুব ভাল হয়েছে। জেলায় এই মৌসুমে ৪ হাজার মেঃটন পেঁয়াজ উৎপাদন হবে যা জেলার চাহিদা মিটিয়ে অন্য জেলায় আমদানী করা যাবে।

বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের মহা পরিচালক বাদল চন্দ্র বিশ^াস যায়যায়দিনকে জানান, মেহেরপুর জেলার পেঁয়াজের এমন ফলন হলে দেশের পেঁয়াজ ঘাটতি কমে যাবে এবং ভোক্তারাও তাদের সাধ্যের মধ্যে পেঁয়াজ ক্রয় করতে পারবে । আগামীতে যাতে গ্রীস্মকালীন পেঁয়াজ চাষ চাষীরা বেশি বেশি করে আবাদ করতে পারে তার জন্য সকল সুবিধা চাষীদের দেওয়া হবে।

মেহেরপুরে পেঁয়াজের মাঠ পরিদর্শনে এসে পেঁয়াজের ফলন দেখে সন্তুস্টি প্রকাশ করে চাষীদের ধন্যবাদ জানালেন কৃষি মন্ত্রনালয়ের সচিব ওয়াহিদা আক্তার। তিনি চাষীদের দাবীর সাথে একমত হয়ে আগামীতে পেঁয়াজ আবাদের প্রনোদনান বরাদ্দ বাড়ানোর আশ^াস দিলেন চাষীদের। তিনি মনে করেন এই সময় যেহেতু পেঁয়াজের ঘাটতি দেখা যায় সেক্ষেত্রে যদি চাষীদের পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা দেওয়া যায় তবে চাষীরা বেশি করে পেঁয়াজ আবাদ করবে এবং দেশে পেঁয়াজের ঘাটতি কমে যাবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে