​ চবিতে সাম্প্রদায়িক হামলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদী সভা

​      চবিতে সাম্প্রদায়িক হামলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদী সভা

দেশব্যাপী সনাতন ধর্মানুসারীদের হত্যা, মন্দির এবং বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) প্রতিবাদী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুর একটায় বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্যের সামনে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অসাম্প্রদায়িক শিক্ষার্থীবৃন্দের ব্যানারে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার।

এ সময় উপাচার্য বলেন, বাংলাদেশের নাগরিকদের মাঝে কোনো ভেদাভেদ নেই। যখনি দেশ একটি ভালো সময়ে যায়, সুন্দরের আবাহন করতে চায়; তখনি সাম্প্রদায়িক শক্তিহীন ছোবল হানে। কুমিল্লার ঘটনায় আমরা মর্মাহত হয়েছি। কোনো ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিই নিজেদের ধর্মালয়ে অন্যধর্মের উপকরণ রাখে না। তবুও বারবার এগুলোর পুনরাবৃত্তি ঘটছে। একত্রিত হয়ে আমরা সকল হীনশক্তিকে লীন করে দিতে পারি। হিন্দু, মুসলমানসহ সব ধর্মের মানুষ একই মায়ের সন্তান। আমাদের মাঝে যেন কেউ বিভেদ সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছেন যারা সাম্প্রদায়িক তারা মানুষ নন। আমরা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ব। তাই সংবিধানের শুরুতেই রাখা হয়েছে ধর্মনিরপেক্ষতা, হিন্দুদের দুর্গাপূজাও তারই অংশ। কিন্তু কিছু লোক ধর্মের দোহাই দিয়ে অপ-রাজনীতি করে বার বার হামলা করে পাকিস্তানি বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে। এদেরকে প্রতিহত করতে হবে, প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির মাধ্যমে বিষদাঁত ভেঙে দিতে হবে।

চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এমদাদুল হক বলেন, ‘এদেশের সম্প্রীতি কেউ নষ্ট করতে পারে না। অচিরেই সারাদেশ থেকে সাম্প্রদায়িকতার বিষবৃক্ষ সমূলে উৎপাটন করতে হবে। যারা হামলার শিকার হয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণ দিয়ে আমাদের প্রতি আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে। সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িত সবার বিচারের জন্য বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি জানাচ্ছি।’

বক্তৃতা পর্ব শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অভিনয়, কবিতা এবং নৃত্য পরিবেশন করেন। সংগীত পরিবেশন করেন চবি শিক্ষার্থীদের ব্যান্ড অজানা উড়ন্ত বস্তু।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আব্বাস ও নন্দিনী কর্মকার প্রাচীর সঞ্চালনায় প্রতিবাদ আরতিতে আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল আলম, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক সিরাজ উদ দ্দৌল্লাহ, লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী এসএম খসরুল আলম কুদ্দুসী, বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সেকান্দর চৌধুরী, যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক খন্দকার আলী আর রাজি, সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলাম, শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু প্রমুখ।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে