বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শিক্ষা ও গবেষণায় দেশসেরা জাবি উপাচার্যের অভিনন্দন

জাবি প্রতিনিধি
  ০১ অক্টোবর ২০২৩, ১৭:৫৩
শিক্ষা ও গবেষণায় দেশসেরা জাবি উপাচার্যের অভিনন্দন

যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা সাময়িকী ‘টাইমস হায়ার এডুকেশন (টিএইচই)’ সম্প্রতি বিশ্বের ১০৮টি দেশের ১ হাজার ৯০৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাঙ্কিং তালিকা প্রকাশ করেছে। শিক্ষা ও গবেষণার মান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মচারী অনুপাত, সাইটেশন, আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীসহ ১৮টি পারফরম্যান্স সূচকের ওপর ভিত্তি করে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক র‌্যাঙ্কিংয়ের এ তালিকায় দেশের মধ্যে সেরা হয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)।

এবারের তালিকায় সারাবিশ্বে প্রথম অবস্থানে আছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, দ্বিতীয় স্থানে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং তৃতীয় স্থানে ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (এমআইটি)। তালিকায় প্রথম ১ থেকে ৮০০ এর মধ্যে দেশের কোন বিশ্ববিদ্যালয় নেই। তবে ৮০১ থেকে ১৫০০ এর মধ্যে দেশের ৯টি বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে।

প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, ৮০১ থেকে ১০০০ এর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। তালিকার ১০০১ থেকে ১২০০ এর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এছাড়া তালিকার ১২০১ থেকে ১৫০০ সিরিয়ালের মধ্যে রয়েছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এ বছর প্রকাশিত তালিকায় দেশের মধ্যে শীর্ষে থাকা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর যথাক্রমে শিক্ষায় ২৪ দশমিক ১, গবেষণার পরিবেশে ৮ দশমিক ৯, গবেষণার মানে ৭১ দশমিক ০৯, শিল্পে ১৯ দশমিক ৫ ও আন্তর্জাতিক আউটলুকে ৪৯ দশমিক ৭।

প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক র‌্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা হওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্যরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং অক্সফোর্ড, ক্যামব্রিজ ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার ও পোস্ট ডক্টরাল ফেলো ডক্টর মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম বলেন, ‘আন্তর্জাতিক র‌্যাংকিংয়ে দেশসেরা হওয়া আমাদের জন্য বড় পাওয়া। এর পেছনে উপাচার্যের সদিচ্ছা, আন্তরিকতা ও কার্যকরী ভূমিকা প্রশংসনীয়।

তবে এতে আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোন সুযোগ নেই। বরং আগামীতে র‌্যাঙ্কিংয়ে কিভাবে আরও এগিয়ে আসা যায় তা নিয়ে ভাবতে হবে। এ লক্ষ্যে বিদেশি শিক্ষার্থীদের বেশি সংখ্যায় অন্তর্ভুক্তির পাশাপাশি বিদেশী শিক্ষকদেরকেও সীমিত পরিসরে নিয়োগের ব্যাপারে ভাবতে হবে। মানসম্মত গবেষণা নিশ্চিতের জন্য গবেষণায় বরাদ্দ বাড়াতে হবে। সর্বপরি, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।’

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন অর্জনে শিক্ষক, গবেষক ও সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দন জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মো. নূরুল আলম। রোববার জনসংযোগ কার্যালয় থেকে প্রেরিত এক শুভেচ্ছা বার্তায় উপাচার্য বলেন, ‘বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে স্থান লাভ করায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আনন্দিত। এই অনন্য নজির স্থাপনে তথ্য-উপাত্ত দিয়ে সহযোগিতা করার জন্য শিক্ষক-গবেষকবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানাই। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আগামীতে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আরও সম্মানজনক স্থান লাভ করবে। এ লক্ষ্যে সকলকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাই।’

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে