বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

জাবিতে রেড ক্রিসেন্টের 'ইয়্যুথ অ্যাডাপ্ট ট্রেনিং' অনুষ্ঠিত

জাবি প্রতিনিধি
  ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ২০:২১
আপডেট  : ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ১৫:২২

বৈশ্বিক উষ্ণতা ও জলবায়ু পরিবর্তনে সৃষ্ট সংকটে খাপ খাইয়ে নেয়া এবং ব্যবহারিক দক্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে যুব রেড ক্রিসেন্ট-জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে "ইয়্যুথ অ্যাডাপ্ট ট্রেনিং- ২০২৩" শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি পরিচালিত 'জাতীয় সদর দপ্তর যুব রেড ক্রিসেন্ট' এর সহযোগিতায় তিন দিনব্যাপী এ কর্মশালা আয়োজন করে যুব রেড ক্রিসেন্ট জাবি শাখা।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) বিকেল ৪ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ভবনে 'ইয়্যুথ অ্যাকশন অন ডেভেলপিং অ্যাডাপশন প্ল্যানস ফর টুমোরো' শীর্ষক এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে সনদপত্র তুলে দেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপ-উপাচার্য মনজুরুল হক বলেন, 'যারা ট্রেনিং নিয়েছেন, তারা জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতি কেন হচ্ছে, মোকাবিলা করার কৌশলের জ্ঞান অর্জন করেছেন। যা কিছু শিখেছেন তা মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। যারা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তারা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা এবং পারস্পরিক সম্পর্ক বাড়াতে হবে। নিজেদের পরিবার, কমিউনিটিতে এ জ্ঞান ছড়িয়ে দিতে হবে। এ দেশের উপকার করতে হবে।'

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রেড-ক্রিসেন্ট যুব ও স্বেচ্ছাসেবক বিভাগের পরিচালক ইমাম জাফর শিকদার বলেন, 'পৃথিবীব্যাপী রেড ক্রিসেন্ট মানবতার সেবায় নিয়োজিত থাকে। এই বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। বাংলাদেশে প্রায় ৭ লক্ষ সেচ্ছাসেবী রয়েছে যারা মনবতার কাজে সহযোগিতা করে। গ্লোবালি কম্পিটিশনে বাংলাদেশও এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সফলতার দাবিদার সকল রেড ক্রিসেন্ট সেচ্ছাসেবীরা। তরুণ প্রজন্মকে প্রশিক্ষণ করার মহান এ কাজ রেড ক্রিসেন্ট করে থাকে।'

সভাপতির বক্তব্যে যুব রেড ক্রিসেন্ট-জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনচার্জ এবং সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বয়ক মহিবুর রৌফ (শৈবাল) বলেন, 'আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭ সাল থেকে কাজ করছি। ইমার্জেন্সি রেসপন্সের জন্য ১২০ জনের টিম গঠন করা হয়েছে। সেখান থেকে আমরা ৩০ জনকে বাছাই করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। ভবিষ্যতে যেনো তারা দেশের কল্যাণে ভূমিকা রাখতে পারে সেলক্ষ্যে সবার মধ্যে স্বেচ্ছাসেবী মনোভাব তৈরি করাই আমাদের লক্ষ্য। এখান থেকে যারা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, তারাই সামনের দিনে অগ্রজদের প্রশিক্ষণ দিবেন বলে আশা করি। সারাদেশে মাইলফলক হিসেবে আমাদের একটা ভালো ইমেজ আছে। তবে আমাদের এখানে বিভিন্ন সংকট রয়েছে। সংকট কাটিয়ে আমরা সামনে সেবামূলক কাজ আরো বৃদ্ধি করার চেষ্টা করবো।'

সমাপনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন রেড ক্রিসেন্ট যুব ও স্বেচ্ছাসেবক বিভাগের উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান, জার্নালিজম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শিবলী নোমান, কোর্স কো-অর্ডিনেটর আসিফুর রহমান, রেড ক্রিসেন্ট জাতীয় যুব কমিশনের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জিহাদ, শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক বেগম নাসরিন, দলনেতা মুস্তার্শিদা মাসান্না অভি প্রমুখ।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে