ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাভাইরাস টিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাভাইরাস টিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষায় টিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালসহ জেলার প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ রানা নুরুস শামস্ বলেন, প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত হাসপাতালে একাধারে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা কার্যক্রম চলবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ একরাম উল্লাহ বলেন, দ্বিতীয় ডোজের টিকা এখনো ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে পৌছায়নি। আমাদের স্টকে থাকা প্রায় ৩০ হাজার ডোজ টিকার মাধ্যমে বৃহস্পতিবার থেকে দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু করেছি।

তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টিকার প্রথম ডোজ গ্রহনের জন্য ৭৭ হাজার ৮৩১ জন রেজিষ্ট্রেশন করেছিলেন। এর মধ্যে ৬৪ হাজার ১৮১জন প্রথম ডোকের টিকা গ্রহন করেছেন। আমাদের স্টকে থাকা টিকার মাধ্যমে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু করেছি। তাতে কোন সমস্যা হবেনা। তিনি বলেন, আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয় ডোজের চালান আসবে। তিনি বলেন, টিকা নিয়ে বিভ্রান্ত হওয়ার কোন সুযোগ নেই।

এদিকে সরজমিনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সকাল থেকে চলছে করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম। দ্বিতীয় ডোজ গ্রহন করে খুশী টিকা গ্রহিতারা।

হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, টিকা নিয়ে এখন পর্যন্ত কারো কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয়নি। প্রথম ডোজের পাশাপাশি শান্তিপূর্নভাবে দ্বিতীয় ডোজ প্রদান করা হচ্ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে স্ব-স্ত্রীক দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতে আসা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এ.এস.এম শফিকুল্লাহ জানান, টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহন করেছি। কোনো সমস্যা হয়নি। একই ধরনের কথা বললেন সদর উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক মোঃ সেলিম মিয়া। তিনি বলেন, প্রথম ডোজের মতো দ্বিতীয় ডোজে কোন ধরনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের নিজস্ব ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে টিকার দ্বিতীয় ডোজ সম্পর্কে প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

সেখানে যারা প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন তাদেরকে ৮ সপ্তাহ পর মোবাইল মেসেজ পেলে কার্ড সহ নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। কোন কারণে মোবাইলে মেসেজ না পেলে ৮ সপ্তাহ পূর্ণ হবার পর নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে দ্বিতীয় ডোজের টিকা গ্রহন করা যাবে।

তাছাড়া যারা ২৭/২৮ জানুয়ারি ও ৭/৮ ফেব্রুয়ারি প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন তারা কোন এসএমএস না পেলেও নির্ধারিত টিকা কেন্দ্রে টিকার কার্ড সহ গিয়ে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতে পারবেন।

একই সাথে প্রথম ডোজের টিকা প্রদানও চলমান রয়েছে। তাই প্রথম ডোজের টিকা নেয়ার জন্য অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করে নির্ধারিত দিনে নির্ধারিত কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

ওই নির্দেশনায় বলা হয়, আগামী রমজান মাসেও করোনাভাইরাসের টিকা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি জরুরী প্রয়োজনে বাইরে গেলে সরকারি নির্দেশনা মেনে মাস্ক পরা এবং অন্তত ৩ ফুট দুরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সাবান-পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে ঘন ঘন হাত ধোয়ার পরামর্শও দেয়া হয় ওই ফেজবুক পেইজে। এছাড়াও সঠিক তথ্যের প্রয়োজনে ৩৩৩, ৯৯৯ অথবা ১৬২৬৩ হেল্প লাইনে ফোন করার পরামর্শ দেয়া হয় ।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে