শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

কমিউনিটি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হাওরাঞ্চলের মানুষ

মোঃ আবু হেনা, আজমিরীগঞ্জ (হবিগঞ্জ)
  ০৪ জুন ২০২৩, ১৪:৩৯
কমিউনিটি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হাওরাঞ্চলের মানুষ

কমিউনিটি ক্লিনিকের ভবন নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়েছে আরো অনেক আগেই কিন্তু এখন পর্যন্ত চালু না হওয়ায় সব ধরনের স্বাস্থ্যসেবা থেকেই বঞ্চিত রয়েছে হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার বদলপুর ইউনিয়নের পিটুয়াকান্দি গ্রামের হাজারো পরিবার।

অসুস্থ্য হলে নেই কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থা। গর্ভবতী নারীরাও পান না কোনো সেবা। যাতায়াতব্যবস্থা ভালো না থাকায়, উপজেলা সদরের হাসপাতালে নিতে পোহাতে নানান ঝুঁকি ঝামেলা। তাই সরকারিভাবে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার দাবি হাওরাঞ্চলবাসীর।

স্থানীয়দের সাথে আলাপকালে তারা বলেন, দীর্ঘদিন পূর্বে ওই ইউনিয়নের পিটুয়াকান্দি গ্রামে মতিউর রহমান কমিউনিটি ক্লিনিকের ভবনের নির্মাণকাজ শেষ হলেও এখন পর্যন্ত চালু করা হয়নি। এতে এলাকার গরিব মানুষ স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

পিটুয়াকান্দি গ্রামের গর্ভবতী সাহেদা আক্তার বলেন, প্রতি মাসেই তার শরীর পরিক্ষা নিরিক্ষার করার জন্য প্রায় ১ কিলোমিটার হেটে নদী পার হয়ে ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা দিয়ে প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা পাড়ি দিয়ে উপজেলা সদরে এসে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অথবা প্রাইভেট ডাক্তার দ্বারা চিকিৎসা সেবা নিতে হয়। এতে তার অনেক কষ্ট হয়। শুধু তিনিই নন আরো অনেকেই তাদের দুর্দশার বর্ণনা করেন।

ওই গ্রামের গ্রাম্য সর্দার মজিবুর রহমান বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকটি চালু না হওয়ায় ওই গ্রামের হাজার হাজার শিশু, নারী, পুরুষ ও গর্ভবতী নারীরা স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তারা দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে উপজেলা সদরের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাচ্ছেন। এছাড়া স্থানীয় ফার্মেসিতে না হয় গ্রাম্য চিকিৎসকের দারস্থ হতে হচ্ছেন।

হেলাল মিয়া বলেন, মতিউর রহমান কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা পরিচালনার জন্য কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। ক্লিনিকটি চালু হলে আমাদের এত কষ্ট হত না।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানাযায়, স্বাস্থ্য বিভাগ ওই ক্লিনিকটির জন্য একজন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার নিয়োগ দিয়েছে। বর্তমানে তিনি সিলেটে ৩ মাসের প্রশিক্ষনে আছেন। আগামি মাস দেড়েকের মধ্যে তার প্রশিক্ষন শেষ হয়ে যাবে। তার পরপরই চালু করা হবে কমিউনিটি ক্লিনিকটি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন, একজন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার প্রশিক্ষনে আছে। আসার পরপরই চালু করে প্রয়োজনী ঔষধের চাহিদা প্রেরন করা হবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে