রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

কিডনির বিষাক্ত পদার্থ পরিষ্কার হবে ৫ খাবারে 

যাযাদি ডেস্ক
  ০৭ নভেম্বর ২০২৩, ১৩:৫৩

শরীরের গুরুত্বপূর্ণ এক অঙ্গ হলো কিডনি। বিশেষজ্ঞদের মতে, কিডনি শরীরের ফিল্টার রূপে কাজ করে। এই অঙ্গটি প্রস্রাবের সঙ্গে একাধিক ক্ষতিকর পদার্থ দেহের বাইরে বের করে দেয়। এটিই কিডনির মূল কাজ। এছাড়া বস্নাডপ্রেশার নিয়ন্ত্রণ ও বিভিন্ন হরমোন তৈরির কাজটিও সামলায় অঙ্গটি।

তবে অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার কারণে কিডনিতে জমতে থাকে বিষাক্ত সব পদার্থ। এর থেকেই পরবর্তী সময়ে একাধিক রোগ বাসা বাঁধে কিডনিতে। তাই বিশেষজ্ঞরা বারবার কিডনি ডিটক্স করার পরামর্শ দেন। কিছু খাবার আছে যার মাধ্যমে সহজেই আপনি কিডনিতে জমে থাকা টক্সিন দূর করতে পারবেন।

আপেল সিডার ভিনেগার

কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে ভিনেগার। কিডনির অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমিয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিক গতিতে নিজের কাজ করে যেতে পারে অঙ্গটি।

এ বিষয়ে অ্যাডভান্স ইউরোলজি ইনস্টিটিউট জানাচ্ছে, অ্যাপেল সিডার ভিনেগার নিয়মিত ব্যবহারে শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট প্রবেশ করে।

ফলে বস্নাড, সুগার ও বস্নাডপ্রেশার নিয়ন্ত্রণে থাকে। এমনকি কিডনিতে জমে থাকা একাধিক ক্ষতিকর পদার্থ বের করে দেওয়ার কাজেও অ্যাপেল সিডার ভিনেগার দারুণ উপকারী।

কিডনি বিনস

কিডনি বিনসে থাকে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা কিডনি থেকে টক্সিন বের করে দিতে পারে। এছাড়া এই খাবারে রয়েছে ভিটামিন বি, ফাইবার ও কিছু খনিজ। কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে।

লেবুর রস

গবেষণায় দেখা গেছে, লেবু ইউরিনে সাইট্রিক লেভেল বাড়িয়ে দেয়। ফলে খুব সহজেই দেহ থেকে টক্সিন বেরিয়ে যেতে পারে। এছাড়া নিয়মিত লেবুর রস পান করলে ক্যালশিয়াম অক্সালেটও মূত্রের সঙ্গে দেহের বাইরে বেরিয়ে যায়। ফলে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি কমে।

খেজুর

খেজুর অত্যন্ত উপকারী এক খাবার। জানলে অবাক হবেন, এই ফল খেলে কিডনি স্টোনে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে। এই ফলে উপস্থিত ফাইবার কিডনিতে পাথর জমতে দেয় না।

পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে

শরীর থেকে টক্সিন বের করতে পানির ভ‚মিকা অনস্বীকার্য। তাই পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, গরম আবহাওয়ায় দিনে অন্তত ৮ গস্নাস পানি পান করতে হবে।

আর যারা বাইরে কাজ করেন তারা এর চেয়েও বেশি পান করবেন। মনে রাখবেন পানিশূন্যতার কারণে কিন্তু কিডনি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই কিডনি ভালো রাখতে পর্যাপ্ত পানি পান করা জরুরি।

সূত্র: হেলথলাইন

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে