কুকীর্তি ঢাকতে সরকার চক্রান্তের আশ্রয় নিয়েছে : রিজভী

কুকীর্তি ঢাকতে সরকার চক্রান্তের আশ্রয় নিয়েছে : রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘সরকারের যে কুকীর্তি গুলো বেরিয়ে পড়েছে, সেই কুকির্তী গুলো ঢাকার জন্য তারা ষড়যন্ত্র-চক্রান্তের আশ্রয় নিয়েছে। জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সাজা দেয়া হয়েছে। কারণ তারা চায়, বিএনপি এটা নিয়ে ব্যস্ত থাকুক তাহলে আমাদের কুকির্তী গুলো যেগুলো দেশে-বিদেশে প্রচারিত হচ্ছে এই বিষয়ে আর কেউ কথা বলবে না।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি প্রশ্ন রেখে রিজভী বলেন, ‘আপনি কি চাপা দিতে পারবেন প্রধানমন্ত্রী? আপনি চাপা দিতে পারবেন না? যে ঘটনাগুলো ঘটছে তা আজকে জনগণের কাছে উন্মোচিত হয়ে গেছে। বিটিআরসিকে দিয়ে আপনি আল-জাজিরার রিপোর্ট ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছেন। কিন্তু এটা করে কোন লাভ হবে না। কথা বললেই আমাদের নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতার করছেন। কম তো করেননি, আমাদের ৩৫ লক্ষ লোকের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, রিমান্ডের নামে নির্যাতন করছেন, তারপরও জাতীয়তাবাদী শক্তির শেকড় এত গভীরে যে এই শিকড় কে তুলে ফেলতে পারছেন না।’

রোববার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম আয়োজিত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এক প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকারের অন্যায়-অবিচার ও গুম-খুনের বিরুদ্ধে যে ঝড় উঠেছে, এই ঝড়েই এই মাফিয়াতন্ত্র লন্ডভন্ড হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘যে ঝড় উঠেছে এই ঝড়ের মধ্যে বালিতে মাথা গুঁজে রাখলে ঝড়ের প্রভাব কিন্তু কমবে না। এই ঝড়ে মাফিয়াতন্ত্র লন্ডভন্ড হয়ে যাবে। চারিদিকে অন্যায়, অবিচার, ও গুম-খুন যেভাবে বিস্তার লাভ করেছে, এটা চিরদিন চলতে পারে না। এর অবসান হবেই। এত অন্যায় অবিচার, এত রক্তপাত এর মধ্য দিয়ে একটি স্বাধীন দেশ চলতে পারেনা। এই দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন ফিরে আসবে। এই অপরাধীদেরও বিচার হবে।’

আয়োজক সংগঠনের সদস্য এবং ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আজিজুল বারী হেলালের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট নিপুন রায় চৌধুরীর সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সভায় বিএনপি’র স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, ঢাকা জেলা বিএনপি’র সভাপতি ডাক্তার দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে