logo
মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

  মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০  

পুষ্টি বাগানের সুফল পাচ্ছে মহাদেবপুরের ৩২০ পরিবার

নওগাঁর মহাদেবপুরে পারিবারিক পুষ্টি বাগান গড়ে তুলে সেখান থেকে সুফল পেয়েছে ৩২০ পরিবার। করোনাভাইরাসের প্রভাবে প্রান্তিক কৃষকদের যেন খাদ্য সংকটে পড়তে না হয় সেজন্য উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় ওই ৩২০টি পরিবার তাদের বসত বাড়ির আঙ্গিনাসহ পতিত জমিতে পারিবারিক পুষ্টি বাগান স্থাপন করে। তাদের বিনামূল্যে বীজ ও নগদ অর্থ সহায়তা করা হয়। এ বাগান থেকে শুধু পুষ্টি নয়, সংসারে অর্থও জোগান দিচ্ছে প্রত্যন্ত এলাকার কয়েকশ কৃষক পরিবার। দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এসব বাগান।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে পুরো দেশ যখন লকডাউনে ছিল তখন সবজি সরবরাহ ও উৎপাদনসহ নানা বিষয়ে চরম সংকটের সৃষ্টি হয়। এছাড়াও সম্প্রতি অতি বৃষ্টি ও বন্যায় সবজির খেত নষ্ট হয়েছে। সেই সংকট যেন বৃহৎ আকার ধারণ না করে তাই উপজেলা পর্যায়ে কৃষি বিভাগ কৃষকদের ফেলে রাখা জমিতে পারিবারিক পুষ্টি বাগান তৈরি করতে উদ্বুদ্ধ করছে। উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের প্রত্যেকটিতে ৩২টি করে মোট ৩২০টি বাগান স্থাপন করা হয়। এসব বাগানে উৎপাদিত বিষমুক্ত সবজি কৃষকরা নিজেদের প্রয়োজন মিটিয়ে অতিরিক্ত অংশ বাজারজাত করে বাড়তি আয় করছেন।

এনায়েতপুর গ্রামের কৃষক আবু বক্কর, আব্দুস ছাত্তার ও ময়নুল ইসলাম বলেন, বসতবাড়ির পাশের জমি দীর্ঘদিন ধরে পতিত ছিল। কোনো কাজে আসছিল না। বাগান তৈরির খরচ হিসেবে কৃষি অফিস থেকে এক হাজার ৯৩৫ টাকা ও ১৬ প্রকারের শাক-সবজির বীজ পেয়েছেন। বাগান থেকে উৎপাদিত সবজি দিয়ে পারিবারিক চাহিদা মিটিয়ে বাকি সবজি বাজারে বিক্রি করে বাড়তি অর্থ আয় হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ অরুন চন্দ্র রায় বলেন, পরিবারের চাহিদা মিটিয়ে স্থানীয় বাজারে বিক্রি হচ্ছে আগাম জাতের শীতকালীন সবজি। এতে উপজেলার ৩২০টি কৃষক পরিবার উপকৃত হচ্ছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে