আশা ইউজিসি চেয়ারম্যানের

সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তিতে যুক্ত হবে

সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তিতে যুক্ত হবে

দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তিতে যুক্ত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান কাজী শহীদুলস্নাহ বলেছেন, এতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের ভোগান্তি কমবে।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট গুচ্ছের ২৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভায় ইউজিসি চেয়ারম্যান এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, 'গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় নানা ধরনের চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসব চ্যালেঞ্জ থেকে উত্তরণ ঘটাতে পারলে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তিতে বিরাট সফলতা আসবে। দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষ গুচ্ছভর্তি পরীক্ষার দিকে তাকিয়ে আছে। ইউজিসি দেশবাসীকে সুন্দর একটি পরীক্ষা উপহার দিতে সক্ষম হবে। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে উত্থাপিত যুক্তিসঙ্গত সব বিষয় আমলে নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট গুচ্ছের কমিটিকে পরামর্শ দেন ইউজিসি চেয়ারম্যান।

ইউজিসি সদস্য দিল আফরোজা বলেন, 'গুচ্ছপদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার মূল চ্যালেঞ্জ হচ্ছে সুষ্ঠু ও প্রশ্নাতীতভাবে স্বচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা নেয়া। এজন্য গুচ্ছের মূল দায়িত্বে থাকা উপাচার্যদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।'

সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণে গুচ্ছের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে ইউজিসি সব সহযোগিতা করবে বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন এবং সর্বোচ্চ সংখ্যক শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানান ইউজিসি সদস্য মুহাম্মদ আলমগীর।

তিনি বলেন, 'এটি করা না গেলে জিপিএ-৫ অর্জনকারী শিক্ষার্থী ছাড়া কেউ ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।'

সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছের যুগ্ম আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মীজানুর রহমান বলেন, 'গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি ভালোভাবেই চলছে। ইতোমধ্যে ৯টি কমিটিও গঠন করা হয়েছে, কমিটিগুলো কাজও শুরু করেছে। ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু করা এবং সর্বোচ্চ সংখ্যক শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়ার জন্য তারা আন্তরিক।'

ভার্চুয়াল সভায় সাধারণ এবং প্রকৌশল গুচ্ছের আহ্বায়ক ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল আলম, কৃষিগুচ্ছের আহ্বায়ক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য গিয়াসউদ্দীন মিয়া বক্তব্য রাখেন।

সভায় ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক মো. সাজ্জাদ হোসেন, অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দ, অধ্যাপক মো. আবু তাহের এবং সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ফেরদৌস জামান যুক্ত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে