'শ্রমিক-মালিক সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে'

'শ্রমিক-মালিক সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে'

শিল্পপ্রতিষ্ঠানে মালিক-শ্রমিকের সুন্দর ও সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্কের ওপর জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'শ্রমিক-মালিকের একটা সুন্দর সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে। মালিকদের সব সময় মনে রাখতে হবে, এই শ্রমিকরা শ্রম দিয়েই কিন্তু তাদের কারখানা চালু রাখেন এবং অর্থ উপার্জনের পথ করে দেন। সেই সঙ্গে শ্রমিকদেরও মনে রাখতে হবে, এই কারখানাগুলো আছে বলেই কিন্তু তারা কাজ করে খেতে পারছেন, তাদের পরিবার-পরিজনকে পালতে পারছেন বা তারা নিজেরা আর্থিকভাবে কিছু উপার্জন করতে পারছেন। কারখানা যদি ঠিকমতো না চলে, তাহলে নিজেদেরই ক্ষতি হবে।'

বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে 'গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড-২০২০' প্রদান এবং কর্মজীবী নারীদের হোস্টেলসহ আটটি স্থাপনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে এ বিষয়ে কথা বলেন সরকারপ্রধান।

শেখ হাসিনা বলেন, 'যে কারখানা আপনার রুটি-রুজির ব্যবস্থা করে, অর্থাৎ আপনার খাদ্যের ব্যবস্থা করে বা আপনার জীবন-জীবিকার ব্যবস্থা করে, সেই কারখানার প্রতি যত্নবান হতে হবে। অনেক সময় "কিছু কিছু শ্রমিকনেতা বা কোনো কোনো মহল বাইরে থেকে উসকানি দিয়ে" কলকারখানায় অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে। মনে রাখতে হবে, এখন বিশ্ব প্রতিযোগিতামূলক। এই প্রতিযোগিতাময় বিশ্বে শিল্প-কলকারখানায় উৎপাদন এবং রপ্তানি সঠিকভাবে করতে কারখানাগুলো যথাযথভাবে চলার ব্যবস্থা নিতে হবে।' পরিবেশ অশান্ত হলে রপ্তানির পাশাপাশি কাজের পরিবেশও নষ্ট হয় উলেস্নখ করে, শেখ হাসিনা বলেন, 'তখন বেকারত্বের অভিশাপ নিয়ে ঘুরতে হবে। সেই কথাটা মনে রেখে শ্রমিকদের দায়িত্ববান ভূমিকা পালন করতে হবে।' তিনি বলেন, মালিক ও শ্রমিক-দুই পক্ষের সঠিক উদ্যোগেই একটি কারখানা সফলভাবে উৎপাদন চালিয়ে যেতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'মালিকদের দেখতে হবে শ্রমিকদের অসুবিধা কী। তাদের জীবন-জীবিকা সুন্দরভাবে যাতে চলে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। শ্রমের ন্যায্য মূল্যটা যেন তারা পায় এবং শ্রমের পরিবেশ যেন সুন্দরভাবে থাকে। আবার শ্রমিকদেরও দায়িত্ব থাকবে কারখানাটা সুন্দরভাবে যেন চলে, উৎপাদন যেন বাড়ে, সেই বিষয়টা নিশ্চিত করা। সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আপনাদের কাজ করতে হবে।'

শেখ হাসিনা বলেন, 'পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর এ দেশে ট্রেড ইউনিয়ন বাতিল করা হয়েছিল। এরপরে ১৯৮৪ সালে আমার মনে আছে, পঁচাত্তরের পর ক্ষমতা অবৈধভাবে দখল করেছিল জিয়াউর রহমান। এরপর ক্ষমতা দখল করেন জেনারেল এরশাদ। ৮৪ সালে রাষ্ট্রপতি ডায়ালগের ডাক দিয়েছিলেন। আমরা বঙ্গভবনে সেখানে গিয়েছিলাম আলোচনা করতে। কিন্তু আলোচনা শুরুর আগেই আমার দু'টি শর্ত ছিল। একটা হচ্ছে শ্রমিকদের ট্রেড ইউনিয়ন করতে দিতে হবে। আরেকটা হলো আমাদের ১৪ জন ছাত্রনেতাকে জিয়াউর রহমান ফাঁসির আদেশ দিয়েছিল, সেই আদেশ বাতিল করার।'

তিনি বলেন, 'আমরা সেই ডায়ালগ করার সময়েই এই ট্রেড ইউনিয়ন করার অধিকার আদায় করতে সক্ষম হয়েছিলাম। এটা অবশ্য অনেকের জানার কথা না বা হয়তো এখন ভুলেই গেছে। কিন্তু আমি আজকের দিনে সেটা স্মরণ করছি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশের কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের জন্যই সারাটা জীবন সংগ্রাম করেছেন।'

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগের বর্তমান সরকার শ্রমজীবী মানুষের কল্যাণ এবং শিল্প উন্নয়নে যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে এবং ভবিষ্যতের যে পরিকল্পনা রয়েছে সেগুলো তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে নিরাপদ ও শোভন কর্মপরিবেশ, পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি এবং দক্ষ শ্রমশক্তি ব্যবহারের জন্য এ অনুষ্ঠানে ৩০টি কারখানাকে 'গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড' দেওয়া হয়। এর মধ্যে তৈরি পোশাক খাতে রেমি হোল্ডিংস, তারাসিমা অ্যাপারেলস, পস্নামি ফ্যাশনস, মিথিলা টেক্সটাইল, ভিনটেজ ডেনিম স্টুডিও, এ আর জিন্স প্রডিউসার, করনি নিট কম্পোজিট, ডিজাইনার ফ্যাশন, ক্যানপার্ক বাংলাদেশ অ্যাপারেল, গ্রিন টেক্সটাইল লিমিটেড, ফোর এইচ ডাইং অ্যান্ড প্রিন্টিং, উইসডম অ্যাটায়ার্স, মাহমুদা অ্যাটায়ার্স, স্মোটেক্স আউটারওয়্যার এবং অকো-টেক্স এ পুরস্কার পেয়েছে।

খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ খাতে হবিগঞ্জ অ্যাগ্রো, আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ ও ইফাদ মাল্টি প্রোডাক্টস। চা-শিল্পের গাজীপুর চা-বাগান, লস্করপুর চা-বাগান, জাগছড়া চা-কারখানা ও নেপচুন চা-বাগানও পেয়েছে গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড।

চামড়া শিল্পে অ্যাপেক্স ফুটওয়্যার ও এডিসন ফুটওয়্যার এবং পস্নাস্টিক শিল্পের বঙ্গ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস লিমিটেড, অলপস্নাস্ট বাংলাদেশ ও ডিউরেবল পস্নাস্টিকও এ পুরস্কার পেয়েছে।

এছাড়া ওষুধ শিল্পে গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে স্কয়ার ফার্মা, বেক্সিমকো ফার্মা এবং ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. এহছানে এলাহীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে